২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেখ হাসিনা হেলথ কার্ড- চালু হলো স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচী

শেখ হাসিনা হেলথ কার্ড- চালু হলো স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর আওতায় হেলথ কার্ড কার্যক্রম ‘শেখ হাসিনা হেলথ কার্ড’ নামে পরিচিত হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে গত বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইলের কালীহাতি থানায় হেলথ কার্ড বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। এই পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে মধুপুর, কালীহাতি ও ঘাটাইল থানায়। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর অংশ হিসেবে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে বিনামূল্যে আধুনিক চিকিৎসা সেবা দিতে এই পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে। পরবর্তী পর্যায়ে এই পাইলট প্রকল্প ধাপে ধাপে সারাদেশে সম্প্রসারণ করা হবে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম জনকণ্ঠকে বলেন, স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর মাধ্যমে দেশের মানুষ চিকিৎসা সেবা পাবে। যেখানে আমেরিকার কোটি কোটি মানুষ ন্যূনতম চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয় সেখানে আমরা আবার এ কাজ শুরু করেছি। ওবামা অনেক আগেই এ কাজ শুরু করেছিলেন। এ জন্য তিনি দ্বিতীয়বার নির্বাচিত হয়েছেন। সেজন্য আমেরিকাতে এটাকে ‘ওবামা হেলথ ইন্সুরেন্স’ বলা হয় । বাংলাদেশে শেখ হাসিনার এই কর্মসূচী চলবে। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশে এই কর্মসূচী শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দরিদ্রবান্ধব সরকার। দেশ থেকে দারিদ্র্য বিমোচনে সরকার সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচী গ্রহণসহ নানাবিধ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে। ফলে গত কয়েক বছরে দেশে দারিদ্র্যের হার অনেক কমেছে। তিনি বলেন, সরকার গরিব মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে যেসব কর্মসূচী হাতে নিয়েছে তার সুফল জনগণ পাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে অতি দরিদ্র মানুষ যেন জটিল রোগের চিকিৎসা বিনামূল্যে করতে পারে সে লক্ষ্যে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।

এই পাইলট প্রকল্পের সফলতা কামনা করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, সারাদেশে সরকারী হাসপাতালগুলোতে বিনামূল্যে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করে যাচ্ছে সরকার। স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন ঘটিয়ে দেশে-বিদেশে বেশ সুনাম কুড়িয়েছে বাংলাদেশ। জনবল বৃদ্ধিসহ স্বাস্থ্য সেক্টরের অবকাঠামোর সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কর্মকা- অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করে দেশের দরিদ্র মানুষের সেবায় সর্বদা তৎপর রয়েছে সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় দরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্যসেবায় ‘স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচী’ নামে নতুন একটি প্রকল্প (পাইলট) যাচাই করতে যাচ্ছে সরকার।

ডাক্তার, নার্সদের নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে হবেÑ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ॥ ‘শেখ হাসিনা হেলথ কেয়ার কর্মসূচী’ বাস্তবায়নে আন্তরিক ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, সকল চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে হবে। মনে রাখতে হবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক আগ্রহে গরিব জনগোষ্ঠীর মধ্যে ৫০টি রোগের বিনামূল্যে চিকিৎসা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর আওতায় এই উদ্যোগ হাতে নেয়া হয়েছে।

রবিবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্বকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। সভায় স্বাস্থ্যসচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলামসহ মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন ৩২টি অপারেশন পরিকল্পনার বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী এই সময় সকল প্রকল্পের দ্রুত বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদের আরও দক্ষতা ও গতিশীলতার সঙ্গে কাজ করতে নির্দেশ প্রদান করেন।

এ সময় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, জনগণের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে প্রকল্পে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার সঙ্গে কাজ করে যেতে হবে। বর্তমান সরকার দরিদ্রবান্ধব সরকার। দরিদ্র জনগণের দোরগোড়ায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ডাক্তার বা নার্স কারও গাফিলতি সহ্য করা হবে না। হাসপাতালে উপস্থিত থেকে জনগণের জন্য চিকিৎসা নিশ্চিত করতে তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রতি আবারও তাগিদ দেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, নিয়মিত মনিটরিং চালাতে হবে। যন্ত্রপাতিসমূহের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। অপ্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ক্রয় করা যাবে না। রোগীরা যাতে দুর্ভোগ ও হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে।