১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অসাংবিধানিক পথে আর ক্ষমতা হস্তান্তর হতে দেব না ॥ নাসিম

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, অসাংবিধানিক পথে আর কোন দিন বাংলাদেশে ক্ষমতা হস্তান্তর হতে দেয়া যাবে না। আমরা ভুল করলে আগামী নির্বাচন আছে। কারণ নির্বাচনের মধ্য দিয়েই সরকার পরিবর্তন হয়Ñ এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু আমরা কোনভাবেই অসাংবিধানিক পথে ক্ষমতা পরিবর্তন হতে দেব না; এটার প্রশ্নই ওঠে না।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্র্স মিলনায়তনে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরাম (বিআইএফ) আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার শুধু আগামী ২০১৯ সালের জাতীয় নির্বাচনেই নয়, ২০২৪ সালের নির্বাচনেও ক্ষমতায় আসবে। আর ২০১৯ সালেও খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন করবে এবং করতে বাধ্য হবেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি আর আন্দোলন করতে পারবে না। আন্দোলন করার ক্ষমতা তাদের নেই। যে আন্দোলনে জনগণ সঙ্গে থাকে না, সেই আন্দোলন সফল হয় না। সংবিধান অনুযায়ী ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কারও ক্ষমতা নেই সংবিধান লঙ্ঘন করে নির্বাচন করে।

‘আগামীতে শেখ হাসিনাবিহীন নির্বাচন করব’ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে ১৪ দলের কেন্দ্রীয় এই মুখপাত্র বলেন, সংবিধানে কী লেখা আছে, তা পড়ে দেখেন বেগম জিয়া। ভারত, ব্রিটেন, ইউরোপে যেভাবে নির্বাচন হয়Ñ বাংলাদেশেও ইনশাআল্লাহ ঠিক একইভাবে নির্বাচিত সরকারের অধীনেই নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচন ২০১৯ সালেই হবে।

মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের একসঙ্গে থেকে লড়াই করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গণতন্ত্র ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে হবে। কাজেই আমরা মনে করি, ৫ বছর বা দশ বছর ক্ষমতায় থেকে সবকিছু সফল করা সম্ভব হয় না। একটা সময় লাগে। আমরা দেশটাকে ধারাবাহিকভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। তাই আপনারা সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আছেন বলেই দেশের সব খাতে পরিবর্তন হচ্ছে। কারণ আমরা যখন ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসেছিলাম তখন ছিল অন্ধকারের বাংলাদেশ। আর এখন শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ হয়ে গেছে ‘আলোকিত বাংলাদেশ’। সময় পেয়েছেন বলেই এটা করেছেন।

মোহাম্মদ নাসিম আরও বলেন, ভুলত্রুটি আমাদেরও হতে পারে। কারণ মানুষের ভুল হওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু ভুল আমরা সংশোধন করি। শেখ হাসিনা কোন অপরাধীকেই ক্ষমা করেননি। তিনি বঙ্গবন্ধু হত্যার খুনীদের বিচার করেছেন, একাত্তরের ঘাতকদের বিচার করেছেন। অপরাধ করলে নিজের দলের লোকদেরও রেহাই দেননি। মন্ত্রী-এমপিরাও রেহাই পাননি।

আয়োজক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠনের এবং পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিএম ইউসুফ আলীর সভাপতিত্বে সভায় বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এম শেফাক আহমেদ, পদ্মা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান এবিএম জাফরুল্লাহ, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সেক্রেটারি ফজলুল হক খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

জনগণ পলাতক তারেক জিয়াকে খুঁজছে -ড. হাছান ॥ ‘ইন্টারপোল তারেক জিয়াকে খুঁজছে না’Ñ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন দাবির জবাবে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, তারেক জিয়া একজন দুর্নীতিবাজ। তাই সারাবাংলার মানুষ পলাতক তারেক জিয়াকে খুঁজছে। জামায়াতের ডাকা হরতাল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কে হরতাল দিয়েছে, কেন দিয়েছেÑ কেউ জানে না। হরতালকারীদের মাইক্রোস্কোপ বা দুরবিন দিয়েও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

নির্বাচিত সংবাদ