১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রাম আবাহনীতে স্লোভাকিয়ান কোচ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কয়েক মৌসুম আগেই যারা ছিল নিচু ও দুর্বল সারির দল, যারা প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলে অবনমিত হয়ে আবার উঠে এসে আবারও অবনমন হতে হতে কোনমতে বেঁচে যায়, সেই চট্টগ্রাম আবাহনীর এখন সম্পূর্ণ ভিন্ন রূপ। অঢেল অর্থ ব্যয় করে জাতীয় দলের একাধিক ফুটবলার ধারে দলে ভিড়িয়ে গত বছরের অক্টোবরে তারা চমক দেখায় ‘শেখ কামাল গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট’-এর শিরোপা জিতে। সর্বশেষ সম্পন্ন হওয়া দল বদলে দেখায় আরও চমক। প্রায় ১২-১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে শক্তিশালী দলগঠন করে তারা এখন ঘরোয়া ফুটবলের প্রতি ট্রফি জেতার দাবিদার! ক’দিন আগেও দলটির কোচ ছিলেন শফিকুল ইসলাম মানিক (তার অধীনেই শেখ কামাল ট্রফি জয়)। তিনি হঠাৎই শেখ জামাল ধানম-িতে চলে গেলে কোচের পদটি শূন্য হয়ে যায়। তবে এখন আর সেটি ফাঁকা নেই। সেটি ভরাট করা হয়েছে ইউরোপের এক কোচকে দিয়ে। তিনি সেøাভাকিয়ান কোচ জোযেফ প্যাভলিক। আগামী এক বছরের চুক্তিতে চট্টগ্রাম আবাহনীতে কোচ হিসেবে কাজ করবেন তিনি।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবনে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে এই কোচকে পরিচয় করিয়ে দেন ক্লাবটির কর্মকর্তারা। প্যাভলিকের খেলোয়াড়ি জীবনের শুরু হয় ১৯৯৩ সালে সেøাভাকের দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব সেøাভান লিভাইসে। খেলতেন মিডফিল্ড পজিশনে। সর্বশেষ খেলেছেন ২০০৪ সালে অস্ট্রেলিয়ান ক্লাব মিস্টেলবিচে। ২০০৫ সালে কোচিং ক্যারিয়ার শুরু করেন সেøাভাকিয়ান বিখ্যাত ক্লাব এফসি নিটরা ক্লাবে। অনুর্ধ ১৩, ১৪, ১৫ দলের হেড কোচ হিসেবে এই ক্লাবে কোচিং করেছেন তিনি। এরপর বিভিন্ন সময়ে গ্রিক, সেøাভাক এবং লিবিয়ায় সহকারী কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

চট্টগ্রাম আবাহনীর চেয়ারম্যান এমএ লতিফ, এমপি বলেন, ‘ভাঙ্গগড়াটা স্বাভাবিক নিয়ম। কোচ হিসেবে কেউ আসবে, কেউ যাবে এটাই স্বাভাবিক। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার চেয়ে ফুটবলে নবজাগরণ দেখা আমাদের জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণেই ভালমানের একজন সেøাভাকিয়ান কোচ নিয়ে নবযাত্রা শুরু করতে যাচ্ছি।’ যেহেতু জাতীয় দলের বেশিরভাগ ফুটবলারই খেলছে চট্টগ্রাম আবাহনীতে, তাই এই কোচের তত্ত্বাবধানে দল ভাল করলে বাংলাদেশ জাতীয় দলেও এর প্রভাব পড়বে বলে বিশ্বাস ক্লাব কর্তাদের।

গত শনিবার বাংলাদেশে পা দিয়ে দলের দায়িত্ব নিয়ে মাত্র দুই সেশন অনুশীলন করিয়েছেন প্যাভলিক। ফলে দল সম্পর্কে এখনও স্পষ্ট ধারণা হয়নি তার। তবে জানালেন, যে তার দলে ভালমানের ফুটবলার রয়েছে। এদের বিভিন্ন ফর্মেশনে খেলিয়ে তবেই একটা ফর্মেশন ঠিক করা যাবে। আরও বলেন, ‘এই দেশে আমি নতুন। এদেশের সংস্কৃতি ও ফুটবল সম্পর্কে আগে জানতে হবে। অবশ্য এশিয়ান ফুটবল সম্পর্কে কিছুটা ধারণা আছে আমার। এই ক্লাবে এসে কিছু ভাল লোক পেয়েছি। তাই আমার ক্লাবে কাজ করতে সুবিধা হবে।’

নির্বাচিত সংবাদ