১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সংবর্ধনা নিয়ে বিরোধে চট্টগ্রামে ভার্সিটি ছাত্র নিহত

  • অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা ;###;৯ সদস্যের তদন্ত কমিটি

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাস অফিস ॥ ফ্রেশার্স সংবর্ধনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ গ্রুপের ছুরিকাঘাতে নাসিম আহমেদ সোহেল নামে চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটার দিকে নগরীর দামপাড়ার প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে। এতে আরও অন্তত তিনজন আহত হন। আহতদের চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহভাজন ৪ জনকে আটক করেছে চকবাজার থানা পুলিশ। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আহমেদ রাজিব চৌধুরীকে প্রধান করে ৯ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তদন্ত শেষ করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. অনুপম সেন। নিহত সোহেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগের এমবিএ দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। তার গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা সদর দক্ষিণে। তিনি নগরীর শেরশাহ এলাকায় পরিবারের সাথে থাকতেন।

এদিকে, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোহেলের বন্ধু ও বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা দামপাড়া ওয়াসা মোড়, নগরীর প্রর্বতক মোড়সহ বেশ কয়েকটি সড়ক ও মোড়ে ব্যারিকেড দেয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অন্তত অর্ধশত গাড়ি ভাংচুর করে বলে জানা গেছে। বিক্ষোভের সময় কিছু কিছু শিক্ষার্থীকে সশস্ত্র অবস্থায় দেখা গেছে। ভাংচুরকালে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সড়কে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। অফিস ফেরত নগরবাসিকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে হেঁটে গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়।

অপরদিকে ঘটনার সাড়ে তিন ঘণ্টা পর নগরীর প্রবর্তক মোড় এলাকায় যান চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। তিনি সেখানে নিহত সোহেলের হত্যাকারীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার ঘোষণা দিলে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ব্যারিকেড তুলে নেয়।

এ সময় মেয়র বলেন, সোহেলের হত্যাকারী যেই হোক, যত বড়ই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। এর পিছনে প্রভাবশালী কোন গডফাদার থাকলে তাকেও ছাড় দেয়া হবে না।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীরা জানান, দামপাড়া ক্যাম্পাসে বিবিএ ৩১তম ব্যাচের নবীনবরণকে কেন্দ্র করে আলোচনা চলছিল। সেখানে কয়েকজন শিক্ষার্থীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে বেশ কয়েকজন ছাত্র সোহেলকে ছুরিকাঘাত করে। এতে তার মাথা ও পেটে মারাত্মক জখম হয়। পরে খবর পেয়ে চকবাজার থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নিয়ে যায়। দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

চকবাজার থানার ওসি আজিজ আহমেদ জানান, নবীনদের সংবর্ধাকে ঘিরে গত দুই মাস ধরে বিবিএ শিক্ষার্থীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিল। এ ঘটনায় ২ মাস আগে একটি জিডি দায়ের করা হয়। জিডি দায়েরের পর কর্তৃপক্ষসহ বসে আমরা প্রোগ্রামটি স্থগিত করে দিই। সেটি আবার করার সিদ্ধান্ত নিলে পুনরায় শিক্ষার্থীদের মাঝে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। মঙ্গলবার প্রোগ্রাম নিয়ে আলোচনার এক পর্যায়ে কয়েক জন ছাত্র এমবিএ দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র সোহেলকে ছুরিকাঘাত করে। এতে তার মাথা ও পেটে মারাত্মক জখম হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় এখনও নিশ্চিত হয়ে কাউকে শনাক্ত করা যায়নি। তবে আমরা ঘটনাস্থল থেকে চারজনকে আটক করেছি। যাচাই-বাছাই শেষে নিরপরাধ শিক্ষার্থীদের ছেড়ে দেয়া হবে। এখনও বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সড়কে অবস্থান করছে। তবে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে বলে জানান তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের দামপাড়া ও প্রবর্তক মোড় ক্যাম্পাসে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এতে ভবন দুটির জালার কাঁচসহ কক্ষের আসবাব পত্র তছনছ করে ফেলে শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারের কক্ষ ভাংচুর করেছে তারা।

ফ্রেশার্স সংবর্ধনা কমিটি সূত্রে জানা গেছে, নিহত সোহেল ৩১তম ব্যাচের সংবর্ধনা কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে কেন্দ্র করে এ ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। সংঘর্ষে আহত ৩ জন হলেন রাহাত, শুভ ও ইমতিয়াজ। তাদের চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে আহ্বায়ক কমিটির এক সদস্য জানান, সংবর্ধনা কমিটি অনুষ্ঠানে সাবেক মেয়র মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে প্রধান অতিথি করার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু সোহেল কাউকে না জানিয়ে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে প্রধান অতিথি করেন। বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়। তার জের ধরে মঙ্গলবার হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আহমেদ রাজিব চৌধুরী বলেন, কিছু উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীর ছুরিকাঘাতে এমবিএ দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী সোহেল নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৯ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি ঘটন করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করেছেন। নিহত সোহেলের লাশ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।