২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এক মুজিব লোকান্তরে লক্ষ মুজিব ঘরে ঘরে

  • লেডিস ক্লাবে মুজিব উৎসব

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর আজিমপুর লেডিস ক্লাবের পেছনের উঠোনে বসা ঠাকুরমা, তার সামনে বসা সাদা পাঞ্জাবি আর মুজিব কোট পরা একঝাঁক শিশু। ঠাকুরমা বাচ্চাদের বঙ্গবন্ধুর গল্প শোনাচ্ছেন। তার পাশে প্রদর্শিত হচ্ছে জাতির জনকের বিভিন্ন কর্মকা-ের আলোকচিত্র। ক্লাবের সামনের মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ দিচ্ছে এক শিশু। মেলার প্রতিটি স্টলেও টাঙানো বঙ্গবন্ধুর ছবি। পুরো লেডিস ক্লাবজুড়েই যেন বঙ্গবন্ধু। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব উৎসবেরই চিত্র এটি। এক মুজিব লোকান্তরে লক্ষ মুজিব ঘরে ঘরে, এই সেøাগানকে সামনে রেখে জাতির জনকের ৯৭তম জন্মদিন উপলক্ষে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ২৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিকের ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিন দিনব্যাপী এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। মানিক জনকণ্ঠকে বলেন, আমরা ১ বৈশাখ বাংলা নববর্ষ পালন করি, ১ ফাল্গুন বসন্ত উৎসব পালন করি। তবে যিনি আমাদের এই উৎসবগুলো পালনের জন্য স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন তাকে ভুলে যাই। তিনি বলেন, এখন থেকে প্রতিবছর জাতির জনকের জন্মদিনে দেশব্যাপী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব উৎসব পালনের উদ্যোগ নিয়েছি। ১৭ মার্চ সবাই বঙ্গবন্ধুর পোশাক পরে জাতীয়ভাবে মুজিব উৎসব পালন করবে, এমনটাই আশা মানিকের। মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বেলুন উড়িয়ে এবং কেক কেটে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। এর আগে বঙ্গবন্ধু উৎসব উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মের পরই হয়ত ঠিক হয়ে গিয়েছিল, এই শিশুটিই একদিন এদেশের নেতৃত্ব দেবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন মার্চ মাসে এবং বাংলাদেশের জন্মদিন একই মাসে, তাই এই মাসটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বঙ্গবন্ধুই আমাদের স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন।

মঞ্চের সামনে বঙ্গবন্ধুর পোশাক পরা শিশুদের ধন্যবাদ জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বলেন, তোমরা যেমন বঙ্গবন্ধুর পোশাক ধারণ করেছ, তেমনিভাবেই বঙ্গবন্ধুর দর্শনও তোমাদের ধারণ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর মতো দেশপ্রেমও তোমাদের মধ্যে বহন করতে হবে। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

নির্বাচিত সংবাদ