১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাতক্ষীরায় জলাবদ্ধতা নিরসনে নারীদের গণমাধ্যম সংলাপ

স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ ‘জলাবদ্ধতার সময় নারী ও শিশুরা সবচেয়ে বেশি বিপদাপন্ন হয়ে পড়ে। সে সময় জন্ম নেয়া শিশু হয় প্রতিবন্ধী অথবা পুষ্টিশূন্য। মা ও শিশুসহ সব বয়সের মানুষ চর্মরোগে আক্রান্ত হয়। জলাবদ্ধতা শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ অবস্থা চলতে থাকে।’ সাতক্ষীরার প্রাণ বেতনা নদী ও নদীতীরবর্তী নারী-শিশুর প্রাণ প্রবাহের দাবিতে আয়োজিত গণমাধ্যম সংলাপে ভুক্তভোগী মানুষ এভাবেই তাদের সমস্যা তুলে ধরেন। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় সদর উপজেলার মাছখোলায় গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এবং শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা এই গণমাধ্যম সংলাপের আয়োজন করে।

সংলাপে বেতনা পাড়ের মানুষ জানান, নদী ভরাট হয়ে বেতনা পাড়ের পানি নিষ্কাশিত না হওয়ায় প্রতিবছর ছয় মাস ধরে এলাকায় জলাবদ্ধতা বিরাজ করে। এই কারণে বেতনা তীরে কোন ফসল নেই। গাছ-গাছালি মরে গেছে। হাঁস-মুরগি, গবাদিপশু পালনেরও সুযোগ হারিয়ে গেছে। যে বেতনা তীরে কর্মসংস্থানের প্রাণচাঞ্চল্য ছিল, সেই বেতনার দুই ধারের মানুষ কাজ না পেয়ে এদিক-ওদিক চলে গেছে। জলাবদ্ধতায় এলাকায় সুপেয় পানির চরম সঙ্কট দেখা দেয়। টিউবওয়েলগুলোয় লোনা পানি উঠছে। বেতনা পাড়ের শিশুরা পারিবারিক দারিদ্র্য, যোগাযোগ সঙ্কট এবং অন্যান্য কারণে স্কুল ছেড়ে কাজের সন্ধানে এদিক-ওদিক চলে গেছে। এখন এলাকায় কর্মসংস্থানের খুবই অভাব। ক্ষেত নেই, ফসলও নেই। পেয়ারা, পেঁপে, সজিনা, কাঁঠালসহ নানা ধরনের ফল-ফলাদির গাছ অকালে মারা গেছে। বেতনা তীরে জলাবদ্ধতার কারণে প্রতিটি পরিবারে পুষ্টিহীনতা দেখা দিয়েছে উল্লেখ করে তারা বলেন, চিকিৎসা করেও কোন ভাল ফল পাওয়া যাচ্ছে না।

চট্টগ্রামে সাউদার্ন মেডিক্যালের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ বেতন ভাতা ও সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির আশ্বাসে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিয়েছে চট্টগ্রামের বেসরকারী সাউদার্ন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মকর্তা কর্মচারীরা। দুপুর ১টায় কর্মসূচী প্রত্যাহারের ঘোষণার পর সচল হয় হাসপাতালের সকল বিভাগ। আজ ৩০ মার্চ থেকে পুনরায় শুরু হচ্ছে পাঠদান কার্যক্রম। সাউদার্ন ইউনির্ভাসিটির চিকিৎসক ও কর্মকর্তা কর্মচারীরা লাগাতার কর্মসূচী শুরু করেছিলেন বেতন ভাতা ও সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির দাবিতে। তাদের অভিযোগ, চট্টগ্রামের মা ও শিশু হাসপাতাল, ইউএসটিসি এবং বিজিসি ট্রাস্ট মেডিক্যালসহ সকল বেসরকারী হাসপাতালের তুলনায় সাউদার্ন হাসপাতালের বেতন ভাতা ও সুযোগ সুবিধা অনেক কম। প্রায় দুই বছর ধরে আবেদন নিবেদন এবং দেন দরবার করেও কোন কাজ হয়নি। ফলে তারা গত ২৩ মার্চ থেকে কর্মবিরতি শুরু করতে বাধ্য হয়েছেন।