২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘জনগনের রক্তের ওপর দিয়ে ক্ষমতায় যেতে মানুষ হত্যার নির্দেশ দেয় খালেদা জিয়া’

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ ॥ নৌ পরিবহন মন্ত্রী ও আন্তজার্তিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের আহবায়ক শাহজাহান খান বলেছেন, বিএনপি জনগনের রক্তের ওপর দিয়ে ক্ষমতায় যেতে চাচ্ছে। এজন্যই কিছুদিন আগে লাগাতার পেট্রোল বোমা দিয়ে যানবাহনে অগ্নিসংযোগ, সাধারন মানুষ-শ্রমিক আর পুলিশ হত্যাসহ নানা সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে শান্ত দেশকে অস্থিতিশীল করতে নিদের্শ দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। আর তাতে ইন্ধন যোগায় স্বাধীনতা বিরোধী চক্র সেই পাকিস্তানী পেতাত্মা রাজাকার-আলবদর-আলশামস্। ফলে এখনই এই দেশের মুক্তিকামী মানুষকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, ৭১’ সালে ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জত আর ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত সোনার বাংলা কি আবারও পাকিস্তান হবে নাকি মুক্তিযোদ্ধা-প্রগতিশীল মানুষের রাষ্ট্রই থাকবে।

তিনি বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জ সার্কিট হাউজ সভা কক্ষে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের ব্যানারে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দানকালে ওই কথা বলেন। জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ইউনিটের কমান্ডার এডভোকেট মোহাম্মদ আলী পাঠানের সভাপতিত্বে এবং মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম সন্তান জয়নাল আবেদীন রাসেলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট মোঃ আবু জাহির, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক ওসমান আলী, হবিগঞ্জ পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও পরিবহন মালিক সমিতি নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক কর্মচারী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফরিদ আহমেদ রাজু সহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ। সমাবেশে উপস্থিতি জেলার ৮ উপজেলা থেকে আগত মুক্তিযোদ্ধাগণ, ৭১’এর ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, চেতনায় প্রজন্ম, বিদ্যুত ও শ্রমিক লীগ সহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতা-কর্মী এবং অন্যান্য নানা পেশার মানুষের উপস্থিতিতে গেল বিএনপি-জামায়াত ও হেফাজত কর্তৃক জ্বালাও-পোড়াও আন্দোলনের সচিত্র ডকুমেন্ট মন্ত্রী শাহজাহান খান স্বয়ং তুলে ধরলে সকলেই আগামীতে এই রকম কর্মসূচী প্রত্যাখ্যানের জোরালো অনুভুতি প্রকাশ করেন। এসময় তিনি এডভোকেট মোহাম্মদ আলী পাঠানকে আহবায়ক ও শ্রমিক নেতা সজীব আলীকে সদস্য সচিব করে হবিগঞ্জে আন্তজার্তিক যুদ্ধাপরাধ আন্দোলনের প্রথম একটি কমিটি ঘোষনা করেন। এদিকে তার আগে মন্ত্রী জেলা পরিবহন মালিক-শ্রমিক সংগঠনের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন। বিকেলে হবিগঞ্জ স্থল বন্দর পরিদর্শনে যান।