২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝুঁকিপূর্ণ ৮ বেইলি ব্রিজ

সাজেদুর রহমান শিলু, দিনাজপুর ॥ প্রায় ৩২ বছর আগে জেলার বিভিন্ন সড়কে অস্থায়ী ভিত্তিতে নির্মিত ৮টি বেইলি ব্রিজ এখন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ এসব ব্রিজের কয়েকটিতে ইতোমধ্যে ভেঙ্গে গিয়ে দুর্ঘটনাও ঘটেছে। অথচ অস্থায়ী এ ব্রিজগুলো পাকা করার কোন উদ্যোগ না থাকায়, স্থায়ী হিসেবেই ব্যবহার হচ্ছে।

দিনাজপুর সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, ৮০’র দশকে তৎকালীন সরকার দ্রুত সড়ক যোগাযোগের স্বার্থে অস্থায়ী ভিত্তিতে জেলায় ৮টি বেইলী ব্রিজ নির্মাণ করে। এগুলো হলো, দিনাজপুর-ফুলবাড়ি মহাসড়কের আমবাড়ি, দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কের আত্রাই, গর্ভেশ্বরী বেইলি ব্রিজ ও কাঁকড়া, বীরগঞ্জ-পীরগঞ্জ সড়কের বকুলতলা, কালোপীর ও ফুটকিবাড়ী এবং কাহারোল বেইলি ব্রিজ। বর্তমানে এই সড়কগুলো বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার সাথে যোগাযোগ রক্ষা করার কারণে এসব বেইলি ব্রিজ দিয়ে অসংখ্য মালবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস চলাচল করছে।

প্রায় ৩২ বছর ধরে সড়ক বিভাগ টুকিটাকি মেরামতের মধ্যদিয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু রেখেছে। কিন্তু চলাচলের অযোগ্য এসব ব্রিজ ভেঙ্গে গিয়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। আমবাড়ি ব্রিজ ভেঙ্গে গত মাসে মালবাহী ট্রাক নিচে পড়ে যায়। এটি মেরামত করার পর ১৬ ফেব্রুয়ারি ব্রিজটি পুরোপুরি ভেঙ্গে পড়ে। বর্তমানে এখানে নতুন করে আরেকটি বেইলি ব্রিজ নির্মাণ কাজ চলছে। বকুলতলা ব্রিজও অনুরূপ দুর্ঘটনা ঘটে একই বছরের জানুয়ারি মাসে। বছরের প্রথম দিকে আত্রাই ব্রিজ ভেঙ্গে ট্রাক নিচে পড়ে যায়। নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, দিনাজপুরে এ সড়কগুলোর গুরুত্ব অনুসারে এসব বেইলি ব্রিজ বর্তমান সময়ের জন্য পুরোপুরি অযোগ্য।

যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব সংবাদদাতা, সাভার, ৩০ মার্চ ॥ যৌতুকের টাকা না পেয়ে আশুলিয়ায় আরজিনা খাতুন নামের এক নারী শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে তার স্বামী। এ ঘটনায় ঘাতক স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার সকালে আশুলিয়া ইউনিয়নের চারাবাগ এলাকায় মজিবর রহমানের ভাড়া বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আহত নারী শ্রমিককে উদ্ধার করে দুপুরে সাভারের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত নারী শ্রমিক আরজিনা জানায়, কয়েকদিন ধরে তার স্বামী আলী তার দরিদ্র পিতার থেকে যৌতুক হিসেবে কয়েক হাজার টাকা আনার জন্য তাকে চাপ দিয়ে আসছিল। কিন্তু টাকা আনতে অস্বীকার করলে বুধবার সকালে তার স্বামী তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে ও এক হাত ভেঙ্গে দেয়।

শিক্ষার্থী হত্যা ॥ আট ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ হত্যা মামলায় ছাত্রলীগ নেতা হোসাইন আহমদ সাগরসহ ৮ নেতাকর্মীকে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। বুধবার সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী কাজী হাবীবুর রহমান হত্যা মামলায় মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন ৮ আসামি। শুনানি শেষে বিচারক সাইফুজ্জামান হিরো তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। মামলার আসামিরা হলেন হোসাইন আহমদ সাগর, আবদুল আউয়াল আহমদ, সাইফুর রহমান, নয়ন রায়, আশিক উদ্দিন, আলাউর খান, শোয়াইব আহমদ, ময়নুল ইসলাম। এদের সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। উল্লেখ্য, গত ১৯ জানুয়ারি অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সামনে ছাত্রলীগ নেতা হোসাইন আহমদ সাগরের নেতৃত্বে একই দলের কর্মী কাজী হাবিবুর রহমানের ওপর হামলা চালায়।