২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাঁটা দিয়ে কাঁটা তোলা

সাবেক ফিলিপিনো ফার্স্টলেডি ইমেলদা মার্কোসের অলঙ্কার দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। ইমেলদার স্বামী দেশটির সাবেক একনায়ক ফার্ডিনান্ড মার্কোস প্রবল গণআন্দোলনের মুখে তিন দশক আগে সপরিবারে দেশ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন। মার্কোস দম্পতি বিশেষ করে ইমেলদার বিলাসী জীবনের খ্যাতি প্রায় কিংবদন্তির পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছিল।

১৯৮৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর মার্কোস ও তার পরিবার প্রশান্ত মহাসাগরীয় মার্কিন দ্বীপ হাওয়াইতে আশ্রয় নেন। বছর তিনেক পর মার্কোস সেখানেই মারা যান। ইমেলদা দেশে ফিরে এলে দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে ১২ বছর কারাদ- হয়। পরে অবশ্য আপীলে সাজা মওকুফ হয়। অলঙ্কার, নগদ, স্থাবর ও অস্থাবর মিলিয়ে তখনকার হিসেবে এক হাজার কোটি ডলারের বেশি সম্পত্তি মার্কোস পরিবারের মালিকানায় ছিল। অবশ্য এই সম্পত্তি দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত হয়নি বলে ইমেলদা দীর্ঘদিন দাবি করে এসেছেন। তিনি ১৯৬৫ থেকে ৮৬ সাল পর্যন্ত দেশটির ফার্স্টলেডি ছিলেন। তিনি তার সময়ে বিলাসী জীবনের প্রতীকে পরিণত হয়েছিলেন। বলা হয়ে থাকে, তার এক হজার জোড়ার বেশি জুতা ছিল। ৯ মে অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রেসিডেন্সিয়াল কমিশন অন গুড গবর্নমেন্ট মার্কোস পরিবারের মালিকানাধীন অলঙ্কার ও রতœরাজির ইন্টারনেটে ভার্চ্যুয়াল প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। উদ্দেশ্য জনগণকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সচেতন করে তোলা। -বিবিসি