১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আর্জেন্টিনার জয়, ব্রাজিলের হতাশার ড্র

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রাশিয়া বিশ্বকাপের দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে দরুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে আর্জেন্টিনা। প্রাণভোমরা লিওনেল মেসিকে ফিরে পেয়ে পঞ্চম ও ষষ্ঠ পর্বের দুটি ম্যাচেই জয় পেয়েছে দিয়াগো ম্যারাডোনার দেশ।

অন্যদিকে ঠিক উল্টো চিত্র ব্রাজিলের। প্রথম চার পর্বে সাফল্য দেখানো কার্লোস দুঙ্গার দল পঞ্চম ও ষষ্ঠ পর্বের দুটি ম্যাচেই ড্র করেছে। প্রথমে উরুগুয়ের বিপক্ষে জেতা ম্যাচে হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়ে। এরপর প্যারাগুয়ের বিপক্ষে হারতে হারতে কোনমতে ড্র করেছে রেকর্ড সর্বোচ্চ পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে অনুষ্ঠিত ম্যাচে স্বাগতিক প্যারাগুয়ে ২-২ গোলে রুখে দেয় অতিথি ব্রাজিলকে। ফলশ্রুতিতে পয়েন্ট তালিকায়ও অবনমন হয়েছে সেলেসাওদের। অন্যদিকে টানা দুই ম্যাচ জিতে পয়েন্ট তালিকার সেরা তিনে উঠে এসেছে জেরার্ডো মার্টিনোর দল।

বুধবার ভোরে অনুষ্ঠিত ম্যাচে আর্জেন্টিনা ২-০ গোলে হারায় বলিভিয়াকে। এছাড়া উড়তে থাকা ইকুয়েডরকে প্রথম হারের স্বাদ দিয়েছে কলম্বিয়া। কার্লোস বাক্কার জোড়া গোলে ৩-১ গোলে জয় পায় ব্রাজিল বিশ্বকাপে চমক দেখানো দলটি। পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট তালিকার এক নম্বরে উঠে এসেছে উরুগুয়ে। ভেনিজুয়েলাকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে কোপা আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন চিলি। বর্তমানে ৬ ম্যাচ শেষে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উরুগুয়ে, সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল গড়ে দুইয়ে ইকুয়েডর। ১১ পয়েন্ট নিয়ে আর্জেন্টিনা তিনে। ১০ পয়েন্ট করে নিয়ে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে যথাক্রমে চিলি ও কলম্বিয়া। ৯ পয়েন্ট করে নিয়ে ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে ব্রাজিল ও প্যারাগুয়ে।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে প্রথম চার দল সরাসরি ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পাবে। পঞ্চম হওয়া দলটিকে খেলতে হবে এশিয়া অঞ্চলের দলের সঙ্গে প্লেঅফ। তার মানে, এবার ব্রাজিলের জন্য বাছাইপর্ব পেরুনোর অগ্নিপরীক্ষা। অনেকেই মনে করছেন, ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা এবার বাছাইপর্ব থেকেই বাদ পড়তে পারে! সেটা হলে পরবর্তী বিশ্বকাপের জৌলুস নিশ্চিতকরেই কমে যাবে।

উরুগুয়ের বিপক্ষে ঠিক আগের ম্যাচে দুই গোলে এগিয়েও ড্রয়ের হতাশায় পুড়তে হয়েছিল ব্রাজিলকে। এবার ঠিক বিপরীত অভিজ্ঞতা হয়েছে পেলের দেশের। প্যারাগুয়ের মাঠে ২-০ গোলে পিছিয়ে পরাজয়ের শঙ্কায় পড়া দলটি শেষ মুহূর্তে দানি আলভেসের দুর্দান্ত গোলে মুখরক্ষা করে। হলুদ কার্ডের খাঁড়ায় কাটা পড়ে এক ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার শাস্তি পাওয়া অধিনায়ক নেইমার ও ডেভিড লুইজ ম্যাচটি লেখতে পারেননি। ম্যাচের ৩৯ মিনিটে ডারিও লেজকানোর গোলে পিছিয়ে পড়ে ব্রাজিল। সমতা ফেরানোর আশায় বিরতির পর মিডফিল্ডার ফার্নান্ডিনহোর জায়গায় ফরোয়ার্ড হাল্ককে নামান সেলেসাও কোচ দুঙ্গা। কিন্তু ৪৯ মিনিটে এডগার বেনিতেজের গোলে প্যারাগুয়ে এগিয়ে যায় ২-০ গোলে। এরপর ব্রাজিলের একের পর এক আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়ে প্যারাগুয়ের রক্ষণভাগ। ৬২ মিনিটে জিলের গোল ফাউলের কারণে বাতিল হয়। তবে ৭৯ মিনিটে দুঙ্গার শিষ্যদের রোখা যায়নি। প্রায় ২৫ গজ দূর থেকে নেয়া হাল্কের জোরালো শট ফিরিয়ে দেন প্যারাগুয়ের গোলরক্ষক ভিয়ার। কিন্তু রিকার্ডো অলিভেইরার ফিরতি শট তিনি রুখতে পারেননি। আর ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে (৯২ মিনিট) আলভেজের গোলে হার এড়ায় ব্রাজিল। ম্যাচে জিততেও পারত সেলেসাওরা। পরের মিনিটেই ব্রাজিলের নিশ্চিত গোলের সুযোগ দু’দফায় রুখে দেন স্বাগতিক গোলরক্ষক।

বলিভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে ব্যক্তিগত সাফল্যে আরও এক ধাপ অতিক্রম করেছেন আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। এই ম্যাচে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করে নিজের ৫০ নম্বর আন্তর্জাতিক গোল করেন বার্সিলোনা তারকা। ম্যাচের ২১ মিনিটে আর্জেন্টিনার পক্ষে প্রথম গোলটি করেন গ্যাব্রিয়েল মারকাডো। এরপর ২৯ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি করেন মেসি। আর এর মাধ্যমেই জাতীয় দলের জার্সিতে নিজের গোলের অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি। এর ফলে আর্জেন্টিনার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ডও হাতছানি দিচ্ছে মেসিকে। ৫৬ গোল নিয়ে সবার ওপরে আছেন সাকে তারকা গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। বাতির গোল অবশ্য ম্যাচ ৭৮, সেখানে ইতোমধ্যেই মেসি খেলেছেন ১০৭ ম্যাচ। ম্যাচ শেষে মেসি বলেন, আমরা বলিভিয়া ও চিলির বিপক্ষে জয় চেয়েছিলাম। সেটা হওয়ায় খুশি।

নির্বাচিত সংবাদ