১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চট্টগ্রাম নগরীতেও মেট্রোরেল নির্মাণের চিন্তা

  • সিইউজে সম্মেলনে ও. কাদের

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ ঢাকা-চট্টগ্রাম এক্সপ্রেস হাইওয়ের কাজ ২০১৮ সালের মধ্যেই শুরু হবে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কও চারলেনে উন্নীত করা হবে। এতে করে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে যাতায়াতে সময় অনেক কমে যাবে। আর যানজট নিরসনে চট্টগ্রাম নগরীতেও মেট্রোরেল নির্মাণের চিন্তাভাবনা করছে সরকার। এছাড়া সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে মীরসরাই থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত আরেকটি মেরিন ড্রাইভের কাজও হাতে নেয়া হয়েছে। এতে বিদেশী সংস্থাগুলো অর্থায়নে সম্মত হয়েছে।

বুধবার চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রামকে ঘিরে বিশাল পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম পিছিয়ে থাকলে সারাদেশ পিছিয়ে থাকবে। আর সে কারণেই বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের উন্নয়নকে বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন।

মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের কাজ অল্প কিছুদিনের মধ্যে শুরু হয়ে যাবে। চীনের এক্সিম ব্যাংকের সঙ্গে কয়েকদিনের মধ্যেই চুক্তি হয়ে যাবে। এরপরই টানেলের কাজ উদ্বোধন করা হবে। সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে মীরসরাই থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত আরেকটি মেরিন ড্রাইভ নির্মাণের। এক্ষেত্রে বিদেশীদের কাছ থেকে অর্থ সহায়তা পাওয়া যাবে। ইতোমধ্যেই কক্সবাজার থেকে টেকনাফ পর্যন্ত ৮২ কিলোমিটার মেরিন ড্রাইভের মধ্যে ৫৮ কিলোমিটারের কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে বাকি কাজ সম্পন্ন হবে।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন সমস্যার বিষয়ে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি নিজেও সাংবাদিক ছিলাম। সে কারণে সাংবাদিকদের বেদনা আমি বুঝি। তিনি বলেন, সাংবাদিক ও সংবাদপত্রের কল্যাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক আন্তরিক। তিনি ইতোমধ্যেই কল্যাণ ফান্ডসহ বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকতার মান নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, রাজনীতিতে যেমন হাইব্রিড রয়েছে তেমনিভাবে সাংবাদিকতায়ও অনেক হাইব্রিড দেখা যাচ্ছে। রাজনীতি ও সাংবাদিকতা উভয় ক্ষেত্রেই মান কমে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তবে আশার কথা যে, পুরোটাই অন্ধকারের ছবি নয়। অনেক তরুণ এখন সাংবাদিকতায় আসছেন, যারা ভাল করার চেষ্টা করছেন। মন্ত্রী সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকা- তুলে ধরার পাশাপাশি আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনগুলোর অন্তর্কোন্দলে তাঁর অসন্তোষের কথাও ব্যক্ত করেন। বিশেষ করে গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের প্রিমিয়ার ইউনির্ভাসিটিতে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে এক ছাত্র নিহত হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি চট্টগ্রামেরই দুই নেতার উদ্দেশে বলেন, আপনারা এই কোন্দল বন্ধ করুন। এভাবে চলতে থাকলে সরকারের সকল অর্জন ম্লান হয়ে যাবে। চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের বার্ষিক সাধারণ সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যবিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বিএফইউজের সাবেক মহাসচিব আবদুল জলিল ভূঁইয়া, বর্তমান মহাসচিব ওমর ফারুক ও ডিইউজের সভাপতি শাবান মাহমুদ। অনুষ্ঠানে গুণীজন হিসেবে সম্মাননা প্রদান করা হয় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং সাংবাদিক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী ও নাসির উদ্দিন চৌধুরীকে। অনুষ্ঠানের একপর্যায়ে মঞ্চে এসে একাত্মতা প্রকাশ করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। তিনি শুভেচ্ছা বক্তব্যও রাখেন।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, সাংবাদিকদের নিরপেক্ষ হতে হয়। তবে সকল ক্ষেত্রে নিরপেক্ষতা নয়। দেশের স্বাধীনতার ক্ষেত্রে নিরপেক্ষ থাকার সুযোগ নেই। যারা গণতন্ত্রের শত্রু, দেশের শত্রু, স্বাধীনতার শত্রু এবং যারা মৌলবাদী শক্তি তাদের বিরুদ্ধে কলম চালিয়ে যেতে হবে। তিনি সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন বৃদ্ধি করে প্রায় দ্বিগুণ করায় প্রধানমন্ত্রী প্রসঙ্গে বলেন, এমন সাহস অতীতে আর কোন সরকার দেখাতে পারেনি। সাংবাদিক-কর্মচারীদের বেতনের ক্ষেত্রেও যেন বৈষম্য দূর হয় সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ব্যবস্থা নেবেন বলে তিনি আশস্ত করেন।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভা ও সম্মেলনের প্রথম পর্ব দুপুরে শেষ হওয়ার পর বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় পর্ব। সেখানে আলোচনা করেন ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ সদস্যরা। দ্বিতীয় অধিবেশনে সংগঠনের বার্ষিক প্রতিবেদন পাস হয়।

আজ সিইউজে নির্বাচন ॥ চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। নির্বাচনে ৯টি পদের জন্য ২২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবার ভোটার ৩৪৬ জন। তারা আগামী দুই বছরের জন্য নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন।