২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইংল্যান্ডের হাতে বিশ্বকাপ দেখছি- গ্রিনস্টোন লোবো

ইংল্যান্ডের হাতে বিশ্বকাপ দেখছি- গ্রিনস্টোন লোবো

অনলাইন ডেস্ক ॥ অবিশ্বাস্য, অতিমানবীয় আর গোটা ক্রিকেট বিশ্বের কুর্নিশ আদায় করে নেওয়া একটা ইনিংসে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে অস্ট্রেলিয়াকে ছিটকে দিয়েছেন বিরাট কোহালি। যার পর থেকেই কাপটা মুঠোয় পোরার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন প্রত্যেক ভারতীয়।

প্রশ্ন হল, সামনের দু’টো ম্যাচ জিতে টিম ইন্ডিয়া কি আরও একটা বিশ্বকাপ জিততে পারবে?

আমার জ্যোতিষ বলছে, সেই সম্ভাবনা দূর অস্ত্।

টুর্নামেন্টে এ পর্যন্ত মহেন্দ্র সিংহ ধোনির টিমের পারফরম্যান্সের কথা উঠলে বলব, ভারত যে টুর্নামেন্টে ভাল খেলবে, সেই ভবিষ্যদ্বাণী কিন্তু আমি আগের লেখাতেই করেছিলাম। এমনকী মুম্বইয়ে জিতে ভারত ফাইনালে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

তবে আমি এটাও লিখেছিলাম যে, ভারত ফাইনালে উঠলেও জিততে পারবে না। কাপ নিয়ে যাবে অন্য ফাইনালিস্ট। কারণ জ্যোতিষের গণনা অনুযায়ী এ বার বিশ্বকাপ জেতার কোনও রকম সুযোগই নেই ভারতের সামনে।

জ্যোতিষ মতে টিমের বিশ্বকাপ জেতা নির্ভর করে ক্যাপ্টেনের রাশিচক্র বা কোষ্ঠীর উপর। যে ক্যাপ্টেনের কোষ্ঠীতে গ্রহ-নক্ষত্রের অবস্থান সবচেয়ে সেরা জায়গায়, জ্যোতিষ অনুযায়ী কাপ ওঠে তাঁর টিমের হাতেই। সঙ্গে এটাও দেখতে হয়, ক্যাপ্টেন এর আগে কোনও মেগা টুর্নামেন্ট জিতেছে কি না। সংশ্লিষ্ট ক্যাপ্টেন আগে কোনও বড় টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়ে থাকলে চলবে না। আর একটা খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, ক্যাপ্টেনের বয়স। বিশ্বকাপের মতো এত বড় পুরস্কার জেতার জন্য ক্যাপ্টেনের বয়স খুব বেশি বা খুব কম হলে চলে না। সব শেষে, ট্রফি জেতার জন্য টিম আর কোচের কোষ্ঠীও ভাল হওয়া জরুরি।

ক্রিকেট বিশ্বে এই মুহূর্তে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির চেয়ে ভাল কোষ্ঠী আর কারও নেই। কিন্তু জ্যোতিষ মতে কাপ জেতার বাদবাকি অত্যাবশ্যক শর্তগুলো পুরোপুরি ধোনির বিরুদ্ধে যাচ্ছে।

প্রথমত, ক্রিকেটে যা যা ট্রফি আর সম্মান জেতা সম্ভব, সবগুলোই ওঁর আগে পাওয়া হয়ে গিয়েছে। সঙ্গে বয়সটা একটু বেড়ে যাওয়ায় বিশ্বকাপ জেতার ব্যাপারে ওঁর রাশিচক্রে অবস্থিত গ্রহসমূহের সাহায্যও ধোনি তেমন পাবেন না।

আমাদের টিমে এ বার এমন কয়েক জন সিনিয়রও আছেন, যাঁরা আগে অন্তত ভারতের হয়ে একটা বিশ্বকাপ জয়ী টিমের সদস্য ছিলেন। এঁদের উপস্থিতিতেও আমাদের কাপ জেতার সম্ভাবনা ধাক্কা খাচ্ছে। ভারতের সুযোগ নষ্ট হচ্ছে আরও একটা গুরুতর কারণে। সেটা টিমে কোনও নিয়মিত কোচ না থাকা।

এতসব প্রতিকুলতার মধ্যেও জ্যোতিষ অনুযায়ী আমাদের একটা আশার আলো অবশ্য রয়েছে।

বিরাট কোহালি।

জ্যোতিষ গণনা অনুযায়ী আমাদের টিমের সামনে কাপ জেতার একমাত্র সুযোগ ক্যাপ্টেন বদল। শেষ দু’টো ম্যাচে যদি কোনও কারণে ধোনি না খেলেন এবং টিমের নেতৃত্ব বিরাটের হাতে আসে, তবে ভারতের কাপ ভাগ্য খুলতে পারে।

এই টুর্নামেন্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাপ ভাগ্যও একদম ভারতের মতো। ডারেন স্যামির নেতৃত্বে ওরা একটা বিশ্বকাপ আগেই জিতেছে। তাই এ বার ওদেরও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

তাই জ্যোতিষ অনুযায়ী এ বারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতার সবচেয়ে উজ্জ্বল সম্ভাবনা প্রথম সেমিফাইনালের বিজয়ীর। যেটা হল ইংল্যান্ড।

বুধবার ফিরোজ শাহ কোটলায় যে দু’টো টিম খেলল, দু’টোরই ক্যাপ্টেন এবং দলের সদস্যদের বয়সটা কম। জ্যোতিষের বিচারে দু’টো টিমেরই কোষ্ঠী খুব ভাল এবং দু’টো টিমই আগে কোনও বড় সাফল্যের স্বাদ পায়নি। তাই ফাইনালে যে কেউ যেতে পারত। গেল ইয়ন মর্গ্যানের ইংল্যান্ড। এবং জ্যোতিষ বলছে, ইডেনে ওদের হাতেই কাপটা ওঠার প্রবল যোগ।

ভারতের দুর্ভাগ্যই বলব। এত দিন দেশকে ক্রিকেটের সমস্ত বড় বড় সম্মান এনে দিয়েছেন ধোনি। কিন্তু ভারত অধিনায়কের সেই অবিশ্বাস্য সাফল্যের ইতিহাসটাই এ বার আরও একটা বিশ্বকাপ জেতার পথে টিমের কাপ-ভাগ্যে সবচেয়ে বড় গ্রহণ লাগাতে চলেছে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা