১৮ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উখিয়ায় জামায়াত কর্মী দফায় দফায় ধর্ষন করেছে এক শিশুকে ॥ গর্ভবতী শিশুর কান্না শুনছে না কেউ

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ কক্সবাজারের উখিয়া বালুখালী এলাকার জামায়াত কর্মী ও ইমাম মৌলভী নুরুল হোছাইনের লালসার শিকার তিন মাসের অন্ত:সত্ত্বা শিশুর ফরিয়াদ দুই মাস ধরে আমলে নেয়নি জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালীরা। টাকার জোরে হতদরিদ্র ওই পরিবারের মা-মেয়েকে এক প্রকারের গৃহবন্ধি করে রেখেছে তারা। শালিস বা প্রশাসনের দ্বারস্থ হতে কোথাও যেতে দেয়া হচ্ছিল না। ওই জামায়াত কর্মীর পক্ষে হতদরিদ্র পরিবারটির বাড়ির পাশে লাঠিসোঠা নিয়ে বসে থাকে সন্ত্রাসীরা। অবশেষে কৌশলে ঘর থেকে বের হয়ে ধর্ষিতা শিশুর মা রোকেয়া বেগম বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে অভিযোগ সহকারে উপস্থিত হয়েছে। উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন জনকণ্ঠকে বলেন, বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিতে উখিয়া থানার ওসিকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, উখিয়ার দক্ষিণ বালুখালী জমিদারপাড়ার হতদরিদ্র পরিবারের মো: সেলিমের কন্যা (১৩) কোরআন শিক্ষা নিতে মসজিদ ভিত্তিক ফোরকানিয়া মাদ্রাসায় যেত। ওই মসজিদের ইমাম জামায়াত কর্মী লম্পট মৌলভী নুরুল হোছাইন অন্য ছাত্র-ছাত্রীদের ছুটি দিয়ে ফুঁসলিয়ে মোঃ সেলিমের শিশুকে আটকে রেখে ধর্ষণ করতেন। পরবর্তীতে ওই লম্পট মসজিদের ভিতরে মিম্বরের পাশে দাঁড়িয়ে বিয়ে করার মিথ্যা প্রলোভন দিয়ে শিশুকে দফায় দফায় ধর্ষণ করেছে। এক পর্যায়ে মাদ্রাসা ছাত্রী গর্ভবতী হয়ে পড়লে ঘটনা খুলে বলে তার মাকে। মা রোকেয়া প্রথমে লম্পট মৌলভীর কাছে গিয়ে নাজেহাল হয়। এ ব্যাপারে কাউকে বিচার শালিস না দেয়ার জন্য প্রভাবশালীদের সহযোগিতায় মৌলভী নুরুল হোছাইন অসহায় শিশুর পরিবারকে মামলায় জড়ানোসহ প্রান নাশের হুমকি দেয়। পরে ধর্ষিতার পিতা-মাতা বিষয়টি স্থানীয় মেম্বারসহ জনপ্রতিনিধিদের জানান।

এদিকে শিশুর গর্ভপাত ঘটাতে ব্যর্থ হয়ে সন্ত্রাসীরা মামলা মোকদ্দমা না করার জন্য শিশুর বাবা-মার কাছ থেকে ৩’শ টাকা মুল্যের ননজুডিশিয়াল খালী ষ্টাম্পে টিপ স্বাক্ষর নিয়েছে বলে জানা গেছে। উখিয়া থানার ওসি মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত করে আইনানূগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। কক্সবাজার জেলা নারী-শিশু পাচার ও নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে এইচএম এরশাদ ও আবুল কাশেম শিশু নির্যাতনকারী ওই লম্পট মৌলভীকে আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তি প্রদানের দাবী জানিয়েছেন।