২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইরাকে আরও সৈন্য পাঠাতে পারেন ওবামা

  • সংবাদ সম্মেলনে জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড

ইরাকে আসছে সপ্তাহগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা সংখ্যা বাড়ানো হবে কি না সে বিষয়ে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সিদ্ধান্ত নেয়ার সম্ভাবনা আছে। বুধবার মার্কিন সামরিক বাহিনীর প্রধান মেরিন জেনারেল জোসেফ ডানফোর্ড এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানিয়েছেন। খবর বিজনেস ইনসাইডারের।

ইরাকি বাহিনীগুলো মসুল দখল করে রাখা ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গীদের হটাতে বড় ধরনের অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে জানিয়ে জেনারেল ডানফোর্ড বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের অতিরিক্ত সেনা এই অভিযানে ইরাকি বাহিনীর সক্ষমতা বহুগুণ বাড়িয়ে তুলতে পারবে। ২০১৪ সালের জুনে আইএসের দখলে চলে যাওয়া মসুল পুনরুদ্ধারের পরিকল্পনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরাকের সামরিক কর্মকর্তারা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীগুলো ইরাকি বাহিনীর উদ্যোগকে কী ধরনের সমর্থন দিতে পারে তা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।

ডানফোর্ড বলেন, ওই বৈঠকে কিছু সুপারিশ তৈরি হচ্ছে এবং আসছে সপ্তাহগুলোতে এ বিষয়ে কিছু সিদ্ধান্ত নেয়ার সুযোগ পেতে পারেন প্রেসিডেন্ট। আমি বিষয়টি প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে (এ্যাশ কার্টার) জানিয়েছি। প্রতিরক্ষামন্ত্রী বিষয়গুলো প্রেসিডেন্টকে জানাবেন। বর্তমানে ইরাকে তিনহাজার আট শ’ মার্কিন সেনা মোতায়েন আছে। যুক্তরাষ্ট্রের এই সেনা সংখ্যা আরও বাড়ার প্রত্যাশা করছেন বলে গেল সপ্তাহে জানিয়েছিলেন ডানফোর্ড। তবে ওই সিদ্ধান্তগুলো চূড়ান্ত হয়নি। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ইরাকি বাহিনীর গেল বছরের রামাদি পুনরুদ্ধারের মতো আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাম্প্রতিক সাফল্যগুলোকে অব্যাহত রাখার আশা করছেন তারা। ডানফোর্ড জানান, অভিযানের পরবর্তী ধাপের সময় ঠিক করার ওপরই এখন জোর দেয়া হচ্ছে। যা হবে মসুলের দিকে এবং এক্ষেত্রে রামাদি অভিযানের প্রত্যয় ধরে রাখার চেষ্টা হচ্ছে।

নিহত চীনা সৈন্যদের দেহাবশেষ ফেরত পাঠাল দঃ কোরিয়া

দক্ষিণ কোরিয়া বৃহস্পতিবার কোরীয় যুদ্ধে নিহত চীনা সৈন্যদের দেহাবশেষ মাতৃভূমিতে সমাহিত করার জন্য ফেরত পাঠিয়েছে। ১৯৫০-৫৩ সালে কোরীয় যুদ্ধে চীনের এসব সৈন্য নিহত হয়। খবর এএফপি’র। দেহাবশেষগুলো বিমানে করে ইনচিওন বিমানবন্দর থেকে চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় নগর শেনইয়েংয়ে পৌঁছায়। এখানে যুদ্ধে নিহতদের জন্য চীনের রাষ্ট্রীয় সমাধিস্থল রয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ