১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তানে ফাঁসির আসামি আসিয়ার আইনজীবীর জীবন ঝুঁকিতে

পাকিস্তানের লাহোরে কট্টর ইসলামপন্থী বিক্ষোভকারীরা ধর্মের প্রতি কটাক্ষের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বী পাঁচ সন্তানের মা আসিয়া বিবিকে ফাঁসি দেয়ার জন্য এ সপ্তাহে আবারও চাপ সৃষ্টি করছে এবং অন্যদিকে, তার আইনজীবী সাইফ-উল-মুলুকের জীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে তার পক্ষ নেয়ার কারণে। খবর এএফপির।

সাইফ-উল-মুলুক তার কন্যা ও স্ত্রীকে নিয়ে বাস করেন লাহোরের নিকটবর্তী এক এলাকায়। তার বাড়িতে প্রহরায় রয়েছে পুলিশ। তিনি এএফপিকে বলেছেন, একটি গ্রুপ আমাকে পরিকল্পিত হত্যার জন্য আমার অফিস রেকি করেছে বলে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানানোর পর পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মুলুক সুবিদিত আইনজীবী নন। কিন্তু সুবিদিত তার মক্কেল আসিয়া বিবি। আসিয়া ধর্মকে কাটাক্ষ করার জন্য ২০১০ থেকে মৃত্যুদ-ের আসামি হিসেবে করাগারে অবস্থান করছেন। এক বোতল পানিকে কেন্দ্র করে এক মুসলিম মহিলার সঙ্গে তর্কের পর তার বিরুদ্ধে ঐ অভিযোগ আনা হয়। এ দুর্দশা থেকে তার মুক্তির জন্য ভ্যাটিকান থেকে প্রার্থনা করা হয়েছে এবং অন্যদিকে, পাকিস্তানে কট্টরপন্থী মুসলিমরা তার ফাঁসি কার্যকরের দাবি জানাচ্ছে। ইসলামপন্থী বিক্ষোভকারীরা এ সপ্তাহে লাহোরে আবারও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। মুলুক বলেন, তিনি আসিয়াকে মৃত্যুদ- থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন বলে তিনি ভয়ের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। ভয় পাচ্ছেন নিজের ছায়াকেও। তিনি কেবল যাতায়াত করেন বাড়ি থেকে অফিস এবং অফিস বাড়ি। ৫০ বছর বয়স্ক আইনজীবী বলেন, এখানে কেউ আসেন না। আমরা আত্মীয় ও বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করার জন্য বেরোই না। পাকিস্তানে এ বিপজ্জনক পরিস্থিতি বিরাজ করছে সত্যিকারভাবেই। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এ দেশটিতে ধর্মের প্রতি কোন কটাক্ষ অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়। এখানে এ সংক্রান্ত কোন ভিত্তি বা প্রমাণ নেই এমন অভিযোগেও জনতা উচ্ছৃঙ্খল ও সহিংসতায় মেতে ওঠে। পাঞ্জাবে ২০১৪ সালে কোরান অবমাননার মিথ্যে অভিযোগে এক খ্রীস্টান দম্পত্তিকে ইটের ভাটায় ফেলে পুড়িয়ে মারা হয়। আসিয়াকে গত বছর স্থানান্তর করা হয় এক নির্জন কারা প্রকোষ্ঠে। মুল্লুক বলেন, আমি যখন আসিয়ার মামলাটি গ্রহণ করি তখন আমার এক আইনজীবী বন্ধু বলেছেন, তুমি শেষ পেরেকটি মারলে তোমার কফিনে।