১৮ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কক্ষ পেয়েও উঠতে পারছে না ৩শ’ ছাত্রী

রাবি সংবাদদাতা ॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের জন্য নির্মিত বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা হল উদ্বোধনের এক বছরের মাথায় ৩শ’ জনকে কক্ষ বরাদ্দ দেয়া হয়। এরপর তিন মাস পেরিয়ে গেলেও সর্বাধুনিক সুবিধাসম্পন্ন এই হলে উঠতে পারছে না বরাদ্দ পাওয়া ছাত্রীরা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা।

হল প্রাধ্যক্ষের ভাষ্য, প্রয়োজনীয় স্টাফ এবং সুপেয় পানির ব্যবস্থা না থাকায় হলটি চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য় অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেছেন, ছাত্রীদের আবাসিক সঙ্কট নিরসনের জন্য হলটি দ্রুত নির্মাণ করে প্রাধ্যক্ষকে সব বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত স্টাফও দেয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা জানান, হলের ২৬৪টি কক্ষে মোট ৫২৮ ছাত্রীর আবাসিক ব্যবস্থা রয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ৩শ’ ছাত্রীকে কক্ষ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে অন্য পাঁচ আবাসিক হলের সিনিয়র ৪০ করে ২শ’ ছাত্রী রয়েছে। কিন্তু নবনির্মিত হলটি এখনও চালু না হওয়ায় তারা আগের হলেই অবস্থান করছেন।

তাদের অভিযোগ, ভর্তি ও ফরম পূরণসহ বিভিন্ন কাজ তারা আর আগের হলে করতে পারছেন না। তাই বাধ্য হয়ে তাদের ফজিলাতুন্নেছা হলের অফিস কক্ষেই যেতে হচ্ছে। অন্যদিকে নতুন হলে উঠতে না পারায় পুরাতন হলের বরাদ্দকৃত কক্ষও ছাড়তে পারছেন না। ফলে ওই হলগুলোর গণরুমের শিক্ষার্থীদের কক্ষ বরাদ্দ পেতেও দেরি হচ্ছে।

হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন বলেন, হলের অবকাঠামোগত সব কাজ শেষ। তবে স্টাফ নিয়োগ দেয়া হয়নি। এতে হলের ডাইনিং, ক্যান্টিন ইত্যাদি চালু করা যাচ্ছে না। তাই শিক্ষার্থী তোলাও সম্ভব হচ্ছে না। এছাড়া হলে সুপেয় পানির কোন ব্যবস্থাও করা হয়নি।

তবে রাবির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, হলের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পর প্রাধ্যক্ষকে সব কিছু বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। অন্য হলগুলো থেকে প্রয়োজনীয়সংখ্যক স্টাফ ফজিলাতুন্নেছা হলে স্থানান্তর করা হয়েছে। কাজেই হলটি চালু করতে আর কোন সমস্যা থাকার কথা নয়।