১৮ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পেনাল্টি মিস করেও জিতল বিজেএমসি!

রুমেল খান ॥ ক্রিকেটে একটা প্রবাদ আছে, ‘ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস।’ ফুটবলেও হয় তো এই বাক্যটাকে প্রবাদ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা যায়, ‘পেনাল্টি মিস তো, খেলা ডিসমিস।’ টিম বিজেএমসি অবশ্য এই প্রবাদকে ভুল প্রমাণ করেছে! শুক্রবার বহুল আলোচিত মৌসুম সূচক ফুটবল আসর ‘স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী খেলায় তারা পেনাল্টি মিস করেও জিতেছে! ১-০ গোলে হারিয়েছে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ক্লাব রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিকে।

অথচ দু’দলই খেলেছে সমানে সমান। রহমতগঞ্জ প্রাপ্ত সুযোগগুলো কাজে লাগাতে না পারায় হারের স্বাদ পেতে হয় তাদের। দলটির কোচ কামাল বাবু বলেই বিজেএমসি তাদের সমীহ করে খেলতে বাধ্য হয়। কামাল বাবু হচ্ছেন সেই কোচ, যিনি স্বাধীনতা কাপের ২০১১ আসরে একেবারেই আনকোরা একটি দল ফরাশগঞ্জকে শিরোপা জিতিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় অবশ্য কামাল বাবু চমক সৃষ্টি করতে পারেননি।

দেশের ফুটবল অঙ্গনে স্বস্তি। দেরিতে হলেও অবশেষে শুরু হলো ঘরোয়া ফুটবল। দীর্ঘ ৭ মাসেরও বেশি সময় পর আবারও মাঠে গড়াল ঘরোয়া ফুটবল।

যদিও উদ্বোধনী দিনে দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেখ জামাল টুর্নামেন্টে অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় খেলার সূচীতে পরিবর্তন আসে। ফলে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচটি পিছিয়ে যায়। আজ সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় অনুষ্ঠিত হবে ব্রাদার্স ইউনিয়নের প্রতিপক্ষ উত্তর বারিধারা। আগামীকাল থেকে প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। বড় দলের ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে নতুন মৌসুমÑ এমনটাই প্রত্যাশা ছিল ফুটবলপ্রেমীদের। প্রথমে ফিক্সচারটাও সে রকমই ছিল। কিন্তু শেখ জামাল-বাফুফে নাটকে ভজকট হয়ে যায় সব। ফলে মাঝারি মানের দলের ম্যাচ দিয়েই শেষ পর্যন্ত শুরু হয় টুর্নামেন্ট। আজকের ম্যাচটাও তেমনিটাই। তাই দর্শকদের কিছুটা সময় অপেক্ষা করতে হবে বড় দলগুলোর খেলা উপভোগ করতে।

১৯ মিনিটে অল্পের জন্য গোল পায়নি বিজেএমসি। ফরোয়ার্ড সোহেল রানার ভলি দর্শনীয়ভাবে ঝাঁপিয়ে ফিস্ট করে কর্নারের বিনিময়ে এ যাত্রা দলকে রক্ষা করেন রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক আল-আমিন। ৩৯ মিনিটে গোলের দর্শন পায় বিজেএমসি। নাইজিরিয়ান ফরোয়ার্ড এলিটা কিংসলের তীব্র শট খুঁজে পায় রহমতগঞ্জের জাল (১-০)। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে রহমতগঞ্জের সোহেল মিয়া প্রতিপক্ষের দুই খেলোয়াড়কে কাটিয়ে বাঁ পায়ের জোরালো শট নিলে ঝাঁপিয়ে বল প্রতিহত করেন প্রতিপক্ষ গোলরক্ষক।

৭৩ মিনিটে পেনাল্টি পেয়েও ব্যবধান দ্বিগুণ করতে ব্যর্থ হয় বিজেএমসি। শট নিয়েছিলেন এলিটা কিংসলে। কিন্তু দারুণভাবে সেটা ফিরিয়ে দেন রহমতগঞ্জের গোলরক্ষক আল-আমিন।

বেলুন উড়িয়ে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন বাফুফের সভাপতি কাজী মোঃ সালাউদ্দিন। এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুশের্দী, বাফুফে সদস্য সত্যজিৎ দাস রূপু, ফজলুর রহমান বাবুল এবং পৃষ্ঠপোষক কেএফসির উর্ধতন কর্মকর্তারা।