১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মর্যাদার এল ক্লাসিকো আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মর্যাদার এল ক্ল্যাসিকো আবারও দোয়ারে। আজ রাতে স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সিলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ। বার্সার মাঠ নু্যুক্যাম্পে অনুষ্ঠিত হবে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচটি।

প্রথম লেগের ম্যাচে সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে স্বাগতিক রিয়ালকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল অতিথি বার্সা। এবার কাতালানদের মাঠে কঠিন চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নামবেন রোনাল্ডো, বেল, বেনজেমারা। কাজটা যে সহজ হবে না সেটা বলাইবাহুল্য। স্বাগতিক বার্সাও ম্যাচটি জিততে মুখিয়ে আছে। গত মাসে দলটির কিংবদন্তি জোহান ক্রুইফ মৃত্যুবরণ করেছেন। তার স্মরণে ম্যাচটি জিততে চাই লুইস এনরিকের দল।

দলটির সেরা তারকা লিওনেল মেসি জাতীয় দল ও ক্লাব মিলিয়ে ‘৫০০’ গোলের দ্বোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে। ৪৯৯ গোল করা মেসি আর এক গোল করলেই ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করবেন। অন্যদিকে রিয়ালের জন্য অনেকটাই বাঁচামরার ম্যাচ এটি। বর্তমানে পয়েন্ট তালিকার তিন নম্বরে গ্যালাক্টিকোরা। সবচেয়ে বড় কথা, ৩০ ম্যাচ শেষে এক নম্বরে থাকা বার্সার চেয়ে ১০ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে রিয়াল। বার্সার পয়েন্ট যেখানে ৭৬ সেখানে রিয়ালের পয়েন্ট ৬৬। ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে মাঝখানে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। এমনতিইে শিরোপা রেস থেকে একপ্রকার ছিটকে পড়েছে জিনেদিন জিদানের দল। তার ওপর এই ম্যাচ হারলে আর কোন সম্ভাবনাই থাকবে না। এ কারণে ম্যাচটি জিততে মরিয়া প্রত্যয়ের কথা শুনিয়েছেন বেল, রামোসরা।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে ম্যাচটি সামনে রেখে বার্সিলোনা অধিনায়ক আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা বলেন, ক্লাসিকো জয় হবে ক্রুইফকে দারুণ শ্রদ্ধা জানানো। আশা করছি, তার জন্য আমরা জিততে পারব। অবশ্যই এটা বাড়তি একটা অনুপ্রেরণা। বার্সিলোনার সাবেক ফরোয়ার্ড ও কোচ কিংবদন্তি ডাচ্ খেলোয়াড় ক্রুইফ ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে গত ২৪ মার্চ না ফেরার দেশে চলে যান। ইনিয়েস্তা আরও বলেন, আমাদের বাকি থাকা ম্যাচগুলোর চেয়ে ক্লাসিকোকে অন্যভাবে দেখি না। সবই ফাইনাল। রিয়ালকে অবশ্য সম্মান করছেন তিনি। বলেন, আমি সব সময়ই মাদ্রিদকে খুব বিপজ্জনক ও শক্তিশালী প্রতিপক্ষ হিসেবে দেখি। আমাদের যা করতে হবে তা না করলে কাজটা ঠিকমতো হবে না। সম্ভাব্য সেরা উপায়ে মৌসুমটি শেষ করার ইচ্ছা ও আগ্রহ আমাদের আছে।

রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোস প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে এক হালি গোল হজম করার কথা ভোলেননি। তাই তো এই ম্যাচটি জিততে চান তিনি। রামোস বলেন, প্রথম ক্লাসিকোর বাজে ফলের পর ফুটবল আপনাকে প্রতিশোধের সুযোগ দিয়েছে। আমরা জানি যে, ভাল করতে চাই। আর দলে খুব ভাল প্রাণচঞ্চলতা আছে। ইতিবাচক মানসিকতা আছে আমাদের এবং ৩ পয়েন্ট পেয়ে তাদের সঙ্গে লীগে ব্যবধান কমানোর জন্য দারুণ একটি ম্যাচ খেলব আমরা। রিয়াল এখনও লীগ শিরোপা জয়ের আশা ছাড়েনি বলে বার্সিলোনাকে হুমকি দিয়ে রেখেছেন গ্যারেথ বেল। ওয়েলস তারকা এল ক্লাসিকো সামনে রেখে বলেন, আমি বিশ্বাস করি, ফুটবলে সবকিছুই সম্ভব। আমরা ১০ পয়েন্ট পিছিয়ে আছি। কিন্তু এটা অসম্ভব না হয়ে যাওয়া পর্যন্ত আমরা লড়াই করতে থাকব।

তিনি আরও বলেন, আমরা ব্যবধান ৭ পয়েন্টে নিয়ে আসতে পারি এবং আপনি জানেন না, এরপর কি ঘটতে পারে। স্পষ্টতই লা লিগার প্রত্যেকটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যদি জিতি তাহলে আত্মবিশ্বাস সঞ্চয় করে নিতে পারি এবং এই আত্মবিশ্বাস চ্যাম্পিয়ন্স লীগেও নিয়ে যেতে পারি। রিয়াল-বার্সা দ্বৈরথের আগে কোচ জিনেদিন জিদানের প্রশংসা করে বেল বলেন, আমরা একটা দল হিসেবে খেলতে চাই। সংঘবদ্ধ আক্রমণ আর রক্ষণ করতে চাই। আমি আশা করি, আমরা মৌসুমটা একটা শিরোপা জিতে শেষ করব।

পরিসংখ্যানে রিয়াল-বার্সা

লীগের শীর্ষে থেকে এবং ১০ বা তার বেশি পয়েন্টে এগিয়ে থাকা অবস্থায় বার্সিলোনা কখনও রিয়ালের বিপক্ষে কোন ম্যাচ জেতেনি। এই অবস্থায় রিয়ালের সঙ্গে একটি ম্যাচ ড্র করার পাশাপাশি দুটি ম্যাচ হেরেছে কাতালানরা।

রিয়ালের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সবশেষ সাত ম্যাচের একটিতে হেরেছে বার্সিলোনা। এর মধ্যে পাঁচ ম্যাচ জেতে তারা। একমাত্র হার ২০১২ সালের এপ্রিলে (২-১)।

রিয়াল-বার্সার ১৭১ দ্বৈরথে ম্যাচ প্রতি তিনটির উপরে গোল হয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশিবার হওয়া ফল ২-১ গোলে রিয়ালের জয়, যা হয়েছে ১৮ বার।

সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে বার্সা-রিয়াল দ্বৈরথে সবশেষ চার লালকার্ডের সবটিই দেখেছে রিয়ালের খেলোয়াড়রা।