১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দুইবোনকে গনধর্ষণ: মামলা তুলে নিতে হুমকি

দুইবোনকে গনধর্ষণ: মামলা তুলে নিতে হুমকি

নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর ॥ লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ইসলামগঞ্জ বাজার এলাকায় গনধর্ষনের শিকার হয়েছেন ১৬ ও ১৪ বছর বয়সের কিশোরী দু’সহোদর বোন। এ ঘটনায় জড়িতদের এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার কমলনগর থানায় মামলা হয় এবং তা গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়।

এ দিকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীকে হুমকি-ধামকি দিয়ে বেড়াচ্ছে আসামীরা। নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন ওই পরিবার। তবে পুলিশ সুপার আ.স.ম মাহাতাব উদ্দিন বলেছেন, খুব শীঘ্র জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হবে। ধর্ষিতাদের নিরাপত্তা দেবে পুলিশ। শনিবার বিকেলে লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেছেন পুলিশ সুপার। এছাড়া ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করা এবং ধামা-চাপা দেয়ার যে অভিযোগ উঠেছে ইউপি সদস্য আবদুর রহিম দুলালে বিরুদ্ধে । তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও তিনি জানান। সত্যতা মিললে তাকেও গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এ দিকে মামলার বাদী জানান, মামলা দায়ের করার পর থেকে ইউপি সদস্য আবদুর রহিম দুলাল ও ঘটনার সাথে জড়িতরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য চাপ ও হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছেন। ঘটনার পর চার দিন অতিবাহিত হলেও কোন আসামী গ্রেপ্তার করা হয়নি। কি করবেন, কোথায় যাবেন, এ নিয়ে দুঃচিন্তা ও হতাশার মধ্যে রয়েছেন ভিকটিমের পরিবার। সন্ত্রাসীদের হুমকিতে আতংকে ভূগছেন তারা। নিরাপত্তা দাবী করেছেন নির্যাতিতদের পরিবার।

নির্যাতিতরা জানায়, বড় বোনের সাথে একই এলাকার খোকনের সাথে প্রেমের সর্ম্পক ছিল। এ সুবাধে গত মঙ্গলবার রাতে খোকন তাদের বাড়িতে আসে। বড় বোনকে ঘর থেকে বের হতে বলে খোকন। একা ঘর থেকে বের হবেনা বললে ছোট বোনকে সাথে আনতে বলে সে। দুই বোন ঘর থেকে বের হয়ে উঠানে আসলে খোকনসহ ৪/৫জন যুবক একত্রিত হয়ে তাদের মুখে বেধে পাশের পরিত্যক্ত বাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। ওই বাড়ির পুকুর পাড়ে রাতভর তাদের দুই বোনকে গনধর্ষন করে অচেতন অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায় তারা। এ দিকে নির্যাতিতদের মা বিভিন্ন স্থানে খোজাঁখুজির এক পর্যায়ে পুকুর পাড়ে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। পরে তাদের দুই বোনকে উদ্ধার করে স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুর রহিম দুলাল মাঝিকে বিষয়টি জানায় তাদের মা। পরে ইউপি সদস্য থানায় মামলা না করতে চাপ দেয় ও মিমাংসার আশ্বাস দেন। ধর্ষনের আলামত নষ্ট করার জন্য ইউপি সদস্য আবদুর রহিম দুলাল মাঝি এ কাজ করছেন। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে নির্যাতিত দুই বোনের মা আমিনা বেগম বাদী হয়ে ৪জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ২জনকে অজ্ঞাত আসামী করে কে কমলনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান দুই আসামী হচ্ছেন কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ এলাকার মৃত ইসরাফিলের ছেলে খোকন, একই এলাকার মৃত সোলায়মানের ছেলে সিরাজ উদ্দিন। এ ছাড়া ইছমাইল হোসেনের ছেলে ইউসুফ ও হোসেন আহমদের ছেলে আবদুল করিম।