১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ট্রান্সফর্মার চোর ঠেকাতে কৃষকের নজরদারি

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ বোরো মওসুম এলেই কৃষককে মোকাবেলা করতে হয় সার ও সেচ সমস্যা। এবার সারের কোন সমস্যা না থাকলেও সেচ সমস্যা রয়ে গেছে। বিদ্যুত চালিত সেচযন্ত্র সচল রাখতে কৃষক একদিকে লোডশেডিং নিয়ে যেমন টেনশনে অপরদিকে রয়েছে ট্রান্সফর্মার চুরি আতঙ্ক। লোডশেডিংয়ের শেষ আছে কিন্তু একবার ট্রান্সফর্মার চুরি হলে ৬ মাসেও নতুন সংযোগ মেলে না। তাই ট্রান্সফরমার চোর ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে দিনাজপুরের কৃষক।

কয়েক বছর ধরে ট্রান্সফর্মারসহ বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি চুরির ঘটনা আশঙ্কাজনক বেড়ে গেছে। ভরা বোরো মওসুমে এই চুরি ‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’র মতো। সেচকাজ বাধাগ্রস্ত হয়। নষ্ট হয় ধান। তাই এবার কৃষক আগে থেকেই সচেতন। তারা ধান বাঁচাতে ট্রান্সফর্মারের ওপর নজরদারি করছে। একবার ট্রান্সফর্মার চুরি হলে শুধু সেচকাজ বন্ধ হয় না, এর মূল্য পরিশোধ করতে হয় গ্রাহকদের। পল্লীবিদ্যুত সমিতির নিয়ম অনুযায়ী, যন্ত্রাংশ চুরি বা খোয়া গেলে প্রথমবার ৫০ ভাগ টাকা, পরেরবার থেকে ১০০ ভাগ টাকা গ্রাহকদের বহন করতে হয়। এ কারণে চোরের ব্যাপারে গ্রাহকরা অনেক সচেতন। সদর উপজেলার নশিপুর এলাকার বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে কৃষকরা পালাক্রমে পাহারা দিচ্ছে। কর্নাই গ্রামের মাঠের অবস্থা একই। কোন কোন মাঠে গ্রাহক টাকা পরিশোধ করতে না পারায় বৈদ্যুতিক খুঁটির ওপর ঝুলছে চুরি যাওয়া ট্রান্সফর্মারের খালি ড্রাম।

কেরানীগঞ্জ গণহত্যা দিবস পালন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেরানীগঞ্জ, ২ এপ্রিল ॥ ২ এপ্রিল কেরানীগঞ্জ গণহত্যা দিবস। দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে কেরানীগঞ্জবাসী। ১৯৭১ সালের এদিন ভোরে পাক হানাদার বাহিনী কেরানীগঞ্জের ৫ সহস্রাধিক নিরীহ মানুষকে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে হত্যা করে। পুড়িয়ে দেয় শত শত বাড়িঘর। কেরানীগঞ্জের মানুষ এ ভয়াবহ রাতের কথা স্মরণ করে আজও শিউরে ওঠে। পাক হানাদার বাহিনী মেশিনগান, মর্টার ও ভারি যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে ঘুমন্ত লোকজনের ওপর। কিছু বুঝে ওঠার আগেই কেরানীগঞ্জ রক্তাক্ত জনপদে পরিণত হয়। সে ভয়াল রাতে কলাতিয়া জিনজিরা, নজরগঞ্জ, নেকরোজবাগ, শুভাঢ্যা, ইমামবাড়ি, মুনবেপারীরঢাল, কালিন্দী, ইমামবাড়ি, ঘাটারচর, আটিভাওয়ালসহ বিভিন্ন এলাকায় পাক বাহিনী নির্বিচারে গণহত্যা চালায়। দিনটির তাৎপর্য তুলে ধরে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেছে।