২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্সের নতুন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান

শাহনাজ রহমান রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিষ্ঠানটির ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন শ্রী রাজিব প্রসাদ সাহা। ঢাকার একটি হোটেলে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় সর্বসম্মতিক্রমে তাদের নির্বাচিত করা হয়। এর আগে একই স্থানে কোম্পানির ২৮তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কোম্পানির বিদায়ী চেয়ারম্যান জাকিয়া রউফ চৌধুরী। রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক শাহনাজ রহমান বর্তমানে ট্রান্সকম লিমিটেড, ট্রান্সকম বেভারেজ লিমিটেড, বাংলাদেশ ল্যাম্পস লিমিটেড, ট্রান্সকম ফুডস লিমিটেড, ট্রান্সকম ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড, এস্কায়েফ বাংলাদেশ লিমিটেড, ট্রান্সকম ডিস্ট্রিবিউশন কোঃ লিমিটেড, ট্রান্সকম কনজিউমার প্রডাক্টস লিমিটেড, ট্রিনকো লিমিটেড, মিডিয়া স্টার লিমিটেড, মিডিয়াওয়ার্ল্ড লিমিটেডসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। শ্রী রাজিব প্রসাদ সাহা রিলায়েন্স ইন্সু্যুরেন্স লিমিটেডের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক। তিনি জানুয়ারি, ২০০০ সাল থেকে কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল (বিডি) লিমিটেড এবং কুমুদিনী ফার্মা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। এ ছাড়াও তিনি মাইক্রো ইন্ডাস্ট্র্রিজ ডেভেলপমেন্ট এ্যাসিস্ট্যান্স এ্যান্ড সার্ভিস (মাইডাস)-এর একজন সম্মানিত সদস্য। তিনি কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট অব বেঙ্গল (বিডি) লিমিটেড এবং কুমুদিনী ফার্মা লিমিটেডে ১৯৮৭ সাল থেকে ডিসেম্বর, ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত পরিচালক পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।Ñবিজ্ঞপ্তি

দক্ষিণ এশিয়ার বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে সমন্বিত নীতি গ্রহণের তাগিদ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে সমন্বিত নীতির তাগিদ দিয়েছেন সার্ক চেম্বার অব কমার্সের প্রতিনিধিরা। শনিবার সকালে এক সেমিনারে তারা বলেন, এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়ন করতে হলে আঞ্চলিক সহযোগিতা বাড়ানোর বিকল্প নেই।

সেমিনারে বাণিজ্য সচিব হেদায়েতুল্লা আল মামুন বলেন, একবিংশ শতাব্দীর অভিন্ন বৈশ্বিক ব্যবস্থায় কোন দেশই একা চলতে পারে না। ইউরোপের দেশগুলোতে বাণিজ্য উন্মুক্ত হলেও নানা কারণে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য মোট বাণিজ্যের মাত্র পাঁচ শতাংশ।

তিনি আরও বলেন, ‘বিভিন্ন দেশে রাজনৈতিক বিভেদ থাকতে পারে তবে বাণিজ্যিক বিভাজন খুব খারাপ। এতে সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ে।