২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সোহেল হত্যার ৫ আসামি জেলে, ছুরিকাঘাতকারী সোহান এখনও পলাতক

  • প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার ক্ষুব্ধ

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএর ছাত্র সোহেল হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৫ আসামিকে রিমান্ড শেষে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালত ৫ জনকে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, ৩ দিন বা ৭২ ঘণ্টার রিমান্ড কার্যক্রম ৪৮ ঘণ্টায় শেষ হওয়ার পেছনে কোন কারণ রয়েছে কিনা। কারণ, গত বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে চকবাজার থানা পুলিশ এ ৫ আসামিকে রিমান্ডে নেয়। কিন্তু ৪৮ ঘণ্টা পর শনিবার দুপুরে আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালত তাদের জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, ৫ আসামির পক্ষ থেকে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করা হলেও হত্যাকা-ের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। পুলিশ জানায়, সোহান নামের এক ছাত্রের উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে সোহেলের মৃত্যু হয়েছে। যে সোহান এখনও পলাতক। পুলিশ তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে।

প্রশ্ন উঠেছে, সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনের কর্মী হওয়ায় আসামিদের সাধারণত পুলিশ যেভাবে তদন্ত করে জিজ্ঞাসাবাদ করে এক্ষেত্রে তা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। যে কারণে ৭২ ঘণ্টার রিমান্ড ৪৮ ঘণ্টায় সমাপ্ত হয়ে গেছে, যা সংশ্লিষ্ট সকলকে বিস্মিত করেছে। তবে পুলিশ বলেছে, যেহেতু তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত কিন্তু হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত নয়; সঙ্গত কারণে এর চেয়ে বেশি জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজনীয়তা ছিল না। তাই তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আশরাফুল ইসলাম প্রকাশ আশরাফ, ওয়াহিদুজ্জামান প্রকাশ নিশান, জিয়াউল হায়দার চৌধুরী, এহসান গোলাম মোস্তফা ও তামিম-উল-আলম প্রকাশ তামিমকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চকবাজার থানা পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়। রিমান্ডের আসামিরা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকা- করা হয়েছে। কোন ধরনের আধিপত্য বিস্তারের জন্য নয়, বরং অনুষ্ঠান ভ-ুল করার উদ্দেশেই এ ধরনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। অভিযোগ উঠেছে, আজ রবিবার ৭২ ঘণ্টা বা ৩ দিন রিমান্ড শেষে চট্টগ্রাম আদালতে এসব আসামিকে সোপর্দ করার কথা ছিল। কিন্তু সেক্ষেত্রে চকবাজার থানা পুলিশ ৪৮ ঘণ্টা শেষে শনিবার দুপুরে কেন আদালতে আসামিদের সোপর্দ করেছে তার কোন সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা নেই।

এ ব্যাপারে চকবাজার থানার ওসি আজিজ আহমেদ জনকণ্ঠকে জানিয়েছেন, রিমান্ড শেষে আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত আসামির বেশিরভাগই প্রবর্তক মোড়ের প্রিমিয়ার ভার্সিটি ক্যাম্পাসের আইন বিভাগের ছাত্র। হত্যাকারী সোহানকে এখনও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে অভিযান অব্যাহত । একদিন আগে রিমান্ড শেষ হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জেলখানার হিসেব অনুযায়ী তিন দিনের রিমান্ড দুদিনে শেষ হয়েছে।

চট্টগ্রাম আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার দুপুরে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএর ২৩তম বিদায় অনুষ্ঠান কেন্দ্র করে এমবিএ শিক্ষার্থী নাসিম আহমদ সোহেলকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে খুন করা হয়। প্রতিপক্ষ গ্রুপের দলনেতা সোহানের ছুরিকাঘাতে এ হত্যাকা- ঘটেছে। ঘটনার পর থেকে সোহানসহ ১১ জন পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় চকবাজার থানায় সোহেলের বাবা আবু তাহের বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় চকবাজার থানা পুলিশ ১৬ জনকে আসামি করেছে ভিডিও ফুটেজ দেখে।

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার ক্ষুব্ধ ও বিস্মিত ॥ গত ২৯ মার্চ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা প্রশাসন অনুষদের এমবিএ ছাত্র নাসিম আহমদ সোহেল তার কয়েক সহপাঠী ও বহিরাগতের ছুরিকাঘাতে নির্মমভাবে নিহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে তাতে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার ক্ষুব্ধ ও বিস্মিত। সংবাদপত্রে প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ৩০ মার্চ ছাত্রলীগের একাংশের একটি সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয় ভিসি একুশে পদকপ্রাপ্ত ও বাংলা একাডেমির সিনিয়র ফেলো হিসেবে সম্মানিত আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজ বিজ্ঞানী প্রফেসর ড. অনুপম সেন সোহেল হত্যাকা-ে নীরব সম্মতি ছিল বলে যে বক্তব্য দিয়েছে তাতে সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারী মর্মাহত। এতে বলা হয়, একজন ছাত্রের মৃত্যুতে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির নীরব সম্মতি রয়েছে বলে যারা প্রচার করে তারা কতটুকু হীনমানসিকতাসম্পন্ন তা ভেবে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার বিস্মিত ও পীড়িত।

প্রসঙ্গত, ভিসি অনুপম সেন সুদীর্ঘ ৫০ বছর বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতায় নিয়োজিত ছিলেন। ১৯৬৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত অসংখ্য ছাত্রছাত্রী তার নিবিড় ভালবাসা পেয়েছেন। তিনি ছাত্রদের তার সন্তান হিসেবে বিবেচনা করে অপত্য ¯েœহ দিয়েছেন। নিহত সোহেল ‘তার ওপর হামলার আশঙ্কা’ রয়েছে ভিসিকে জানিয়েছে বলে যে বক্তব্য সংবাদ সম্মেলনে দেয়া হয়েছে তা সর্বৈব মিথ্যা বলে ভিসি জানিয়েছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ভিসিকে নিয়ে যে মিথ্যাচার করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানানো হয়।