২৪ জুলাই ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুমিল্লায় পাস ৮৪ শতাংশ

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা, ১১ মে ॥ কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে গড় পাসের হার ৮৪ শতাংশ। এ বছর ১ লাখ ৬০ হাজার ৫১৭ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৮৩৩ জন। এদের মধ্যে ৬২ হাজার ৭৭৭ জন ছাত্র এবং ৭২ হাজার ৫৬ জন ছাত্রী। ৩টি বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৯৫৪ জন। জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের মধ্যে ৩ হাজার ৮৭২ জন ছাত্র এবং ৩ হাজার ২৮২ জন ছাত্রী।

বোর্ড সূত্রে জানা যায়, এ বছর বিজ্ঞান বিভাগে পাসের হার ৯৪ দশমিক ৭৯ শতাংশ। এ বিভাগে ৪১ হাজার ১ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ৩৮ হাজার ৮৬৫ জন,এ বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৫৬১ জন। মানবিক বিভাগে ৪২ হাজার ৪৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৩০ হাজার ৪৪২ জন, পাসের হার ৭২ দশমিক ৪১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে পাসের হার ৮৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এ বিভাগে ৭৭ হাজার ৪৭২ পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৬৫ হাজার ৫২৬ জন। এ বিভাগে-৫ পেয়েছে ৩৬০ শিক্ষার্থী। এ বছর ১ হাজার ৬৭১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১১৯ এবং ৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে কেউই পাস করতে পারেনি।

বরিশালে মেয়েরা এবারও এগিয়ে

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বরিশাল শিক্ষাবোর্ডে এবার পাসের হার কমে দাঁড়িয়েছে শতকরা ৭৯.৪১। গত বছর এ বোর্ডের পাসের হার ছিল ৮৪.৩৭ ভাগ। গত বছরের চেয়ে এ বছরে পাশের হার কমেছে ৪ দশমিক ৯৬ ভাগ এবং জিপিএ-৫ কমেছে ৫৮টি। এবার জিপিএ ফাইভ পেয়েছে ৩ হাজার ১১৩ শিক্ষার্থী। গড় পাসের হারে এবং জিপিএ-৫ এর ক্ষেত্রে এবারও ছেলেদের চেয়ে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মুহাম্মদ শাহ আলমগীর হোসেন জানান, জেলাভিত্তিক পাসের হারে ৮৩.৩ ভাগ পাস করে ভোলা জেলা এগিয়ে রয়েছে। গণিতে সৃজনশীল বিষয়ে পরীক্ষার্থীরা ভাল করতে পারেনি বলে ফলাফলে বিরূপ প্রভাব হলেও শিক্ষার গুণগতমান বেড়েছে বলেও ওই কর্মকর্তা উল্লেখ করেন।

ঝিনাইদহ ক্যাডেটে শতভাগ পাস

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঝিনাইদহ, ১১ মে ॥ ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে এবারও শতভাগ পাসের গৌরব অর্জন করেছে। এ কলেজ থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৫২ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। তাদের সবাই জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে।

গাইবান্ধায় ফল বিপর্যয়

নিজস্ব সংবাদদতা, গাইবান্ধা, ১১ মে ॥ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে এবারে ফলাফল বিপর্যয় ঘটেছে। কোন বিদ্যালয়েই শতভাগ উত্তীর্ণ নেই। এ ফল অভিভাবক মহল চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। গাইবান্ধা সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ২৪০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ২৩৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৯ জন। অপরদিকে গাইবান্ধা সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ২২২ পরীক্ষার্থীর উত্তীর্ণ হয়েছে ২১৯ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬৯। ঐতিহ্যবাহী বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আহমেদ উদ্দিন শাহ শিশু নিকেতন স্কুল এন্ড কলেজের ১৪০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৩৬ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৩ জন। সদর উপজেলা মডেল স্কুল এন্ড কলেজে ১১৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১১৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ১১ জন। তবে সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় দুটি সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ উত্তীর্ণ হয়েছে। তাদের মধ্যে আব্দুল মজিদ সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০১ পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪১ জন। অপরদিকে সরকারী আমিনা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭১ পরীক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩১ জন। কোন অনুত্তীর্ণ নেই।

নির্বাচিত সংবাদ