১১ মে ২০১৬

১১ জুন যশোর চেম্বারের নির্বাচন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দু’দফা পেছানোর পর যশোর চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের নির্বাচন আগামী ১১ জুন অনুষ্ঠিত হবে। রমজান মাসে ভোটের তারিখ নির্ধারণ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন, ‘রমজান মাসে ব্যবসায়ীরা ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন। তাছাড়া রোজা থেকে কেউ ভোট নিয়ে আগ্রহ দেখাবে না।’ তবে নির্বাচনী বোর্ডের আহ্বায়ক ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল আরিফ জানান, ব্যবসায়ীরা আপত্তি জানালে মন্ত্রণালয় নির্বাচনের তারিখ পেছাতে পারে। মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ২০১৫ সালের ১৬ মে যশোর চেম্বারের ভোটগ্রহণের দিন নির্ধারণ করা হয়েছিল। পরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞার কারণে নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়। পরে একই বছরের ২৮ ডিসেম্বর ফের নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু পৌরসভার নির্বাচন চলাকালে চেম্বারের ভোটের দিন নির্ধারণ হওয়ায় আবারও বাতিল করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

দু’দফা পেছানোর কারণে এবার আসছে রমজানের সময় যশোর চেম্বার অব কমার্সের নির্বাচনের নতুন তারিখ ঘোষণা করা হলো। তার শঙ্কা, রমজান মাসে নির্বাচন হলে ব্যবসায়ীরা তা মেনে নেবেন না। যশোর চেম্বার অব কমার্সের সাবেক নির্বাহী সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক হুমায়ন কবীর কবুও ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘রমজানের সময় মানুষ নিজেদের ব্যবসা ও ইবাদত নিয়ে ব্যস্ত থাকবেন। এ সময় ভোটের তারিখ ঘোষণা দুঃখজনক। কেননা প্রার্থীদের পক্ষে রোজা থেকে কেউ প্রচারণা চালাবেন না।’ যশোর টায়ার ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সাবেক সভাপতি কাওছার আহমদ বলেন, ‘চেম্বারের ভোট হলো আমাদের কাছে উৎসব। রমজানের দিনে ভোট হলে সেটি থাকবে না।’

রোহিনী কুমার পাল কৃষি ব্যাংকের নতুন জিএম

বিশিষ্ট ব্যাংকার রোহিনী কুমার পাল সম্প্রতি পদোন্নতি পেয়ে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে মহাব্যবস্থাপক হিসেবে যোগদান করেছেন। পূর্বে তিনি একই ব্যাংকে উপ-মহাব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করেন। মি. পাল ১৯৮৩ সালে প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা (সিনিয়র অফিসার) হিসেবে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে যোগদানের মাধ্যমে ব্যাংকিং ক্যারিয়ার শুরু করেন। তিনি ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিভিএম (উঠগ) ডিগ্রী অর্জন করেন। ৩১ বছরের বর্ণাঢ্য ব্যাংকিং জীবনে তিনি শাখা ব্যবস্থাপকসহ আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক ও মুখ্য আঞ্চলিক ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি দু’টি বিভাগীয় কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।-বিজ্ঞপ্তি।