১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাস্তুভিটা থেকে উচ্ছেদ করতে ডেকে নিয়ে মারপিট

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ১৩ মে ॥ মুসা গাজী নামের ষাটোর্ধ শ্রমজীবীকে বেধড়ক লাঠিপেটা করা হয়েছে। মারধরে ক্ষান্ত থাকেনি, তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে দেয়া হয়নি। শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ৮-৯ সন্ত্রাসী তাকে হাসপাতাল থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে। তার স্ত্রী মুকুল বেগম বলেন, ‘৮-১০ পোলাপানে হাসপাতাল গিয়া সকালবেলা নামাইয়া দেছে।’ টিয়াখালী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমুর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করা হয়েছে। মুসা গাজী এখন বিনা চিকিৎসায় শরীরের ফোলা-জখম এবং আঘাতের চিহ্ন নিয়ে বাড়িতে পড়ে থাকতে বাধ্য হচ্ছে। মুসা গাজীর অভিযোগ, তার খাস জমিতে ১৭ বছরের বসতঘরের ভিটি উঁচু করতে চেয়ারম্যান নিষেধ করছিল। এ কারণে তাকে বৃহস্পতিবার দুপুরে চার চৌকিদার পাঠিয়ে ডেকে নেয়া হয়। এরপর তাকে লাঠিপেটা করা হয়। ইউপি মেম্বার বিএনপি নেতা ইব্রাহিম হাওলাদারকেও এ ঘটনার জন্য দায়ী করেছেন মুসা গাজী। মুসা গাজীর দাবি তাকে উচ্ছেদ করে ওই জায়গা দখলের জন্য মারধর করা হয়েছে। ফের হামলা কিংবা মারধরের শঙ্কায় মুসা গাজী এখন স্বাভাবিকভাবে কথা পর্যন্ত বলতে পারছেন না। টিয়াখালী ইউনিয়নের সাতানি গ্রামে বাড়ি মুসা গাজীর। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে গিয়ে মুসার খোঁজ করলে নার্সরা কিছুই জানাতে পারেনি। তাদের কাগজপত্রে মুসা গাজী ভর্তি রয়েছে বলে জানায়। চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান জানান, মুসা গাজী অন্যের জমি দখল করে ঘর তুলছিল।