২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুঁজিবাজারে ৫ মাসের সর্বনিম্ন লেনদেন

  • দুই বাজারেই সূচক কমেছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের পুঁজিবাজারে দরপতন কোনভাবেই থামছে না। সেই সঙ্গে বাড়ছে বিনিয়োগকারীদের হৃদয়ের রক্তক্ষরণ। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অতি সর্তক নীতির কারণে প্রতিদিনই কমছে মূল্যসূচক। একই সঙ্গে লেনদেনও কমতে কমতে তলানিতে নেমে গেছে।

রবিবারও সূচক পতনেই লেনদেন শেষ হয়েছে। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২৫৮ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা গত সাড়ে ৫ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন লেনদেন। এর আগে গত ২৭ মার্চ ডিএসইতে ২৭৮ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

বাজার সংশ্লিষ্টদের মতে, পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বাড়তি বিনিয়োগ সংক্রান্ত জটিলতার মধ্যেই বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইনসাইডার ট্রেডিং ঠেকাতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর উদ্যোক্ত বা পরিচালকদের বিও হিসাব মনিটরিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দরপতনের বাজারে এ সিদ্ধান্ত কিছুটা হলেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। কারণ উদ্যোক্তাদের বিও হিসাবগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষার আওতায় আনা হলেও বড় লেনদেনে কিছুটা ধারাবাহিকতা হারাবে বলে অনেকেই মনে করছেন। এছাড়া বিষয়টি নিয়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে কিছুটা বিভ্রান্তি ছড়াবে বলে তাদের ধারণা।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, রবিবার ডিএসইতে ২৫৮ কোটি এক লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় ৫৩ কোটি ২৭ লাখ টাকা কম। গত বৃহস্পতিবার এ বাজারে লেনদেন হয়েছিল ৩১১ কোটি ২৯ লাখ টাকা।

এদিন ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩১৪টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৪টির, কমেছে ২০৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির শেয়ারদর। এদিকে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্যসূচক ২৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার ২৭৫ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৫০ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৬৬০ পয়েন্টে।

ডিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ লিন্ডে বাংলাদেশ, ডরিন পাওয়ার, ইউনাইটেড পাওয়ার, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম, মবিল যমুনা বিডি, লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স, বিএসআরএম লিমিটেড, সামিট পোর্ট এ্যালায়েন্স, ফার ইস্ট নিটিং ও স্কয়ার ফার্মা।

দরবৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ ডরিন পাওয়ার, এক্সিম ব্যাংক ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, বাটা সু, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম, ঢাকা ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, আইসিবি ১ম এনআরবি, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া ও ম্যারিকো।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ ড্রাগন সোয়েটার, বেক্সিমকো, তাল্লু স্পিনিং, বে-লিজিং, ৭ম আইসিবি, কেএ্যান্ডকিউ, বঙ্গজ, প্রাইম লাইফ, সামিট পোর্ট ও ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ১৪ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এদিন সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ১৬৭ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২১৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৫২টির, কমেছে ১৩৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির।

সিএসইর লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ ডরিন পাওয়ার, বিএসআরএম লিমিটেড, তিতাস গ্যাস, বেক্সিমকো, বিএসআরএম স্টিল, ফারইস্ট লাইফ, লঙ্কা বাংলা ফাইন্যান্স, ইউনাইটেড পাওয়ার, বাংলাদেশ বিল্ডিং সিস্টেম ও কেয়া কসমেটিকস।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া