২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেকনাফে আনসার ক্যাম্পে হত্যা ॥ তদন্তে তিন কমিটি

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ টেকনাফে আনসার কমান্ডারকে হত্যা এবং অস্ত্র লুটের ঘটনায় তিনটি কমিটি গঠন করে তদন্তে নেমেছে কমিটি। এ ঘটনার ৬ দিন অতিবাহিত হলেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এ পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার এবং লুণ্ঠিত অস্ত্র উদ্ধার করতে পারেনি। তবে র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশ তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। তারা দিনরাত চিরুণি অভিযান চালাচ্ছে। টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা আনসার ক্যাম্পে হামলার ঘটনায় ওই ক্যাম্পের আট সদস্যকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে আনসারের দুটি ও জেলা প্রশাসনের একটি কমিটি কাজ করছে। কক্সবাজার জেলা আনসার কমান্ড্যান্ট দেওয়ান মাতলুবুর রহমান জানান, তদন্ত কমিটি কয়েক দফা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ব্যাপক অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। হত্যাকারীদের আটক ও লুণ্ঠিত অস্ত্র ও গুলি উদ্ধারে সমন্বিতভাবে কাজ চলাচ্ছে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও আনসার সদস্যরা।

গত শুক্রবার মধ্য রাতে টেকনাফের হ্নীলা নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যদের শালবাগান ক্যাম্পে হামলা চালায় সশস্ত্র দুর্বৃত্ত। শুক্রবার রাতে আনসার ব্যারাকের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে ৩৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে টেকনাফ থানায়। কক্সবাজারের পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ বলেন, ঘটনার পর থেকে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার সদস্যরা মোচনীর রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের আশপাশের পাহাড়ী এলাকা, পাহাড়সহ বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। অভিযান পরিচালনাকারী দল আবদুল হাকিম নামে রোহিঙ্গা ডাকাতকে হন্যে হয়ে খুঁজছে বলে জানা গেছে।

এদিকে মিয়ানমার সীমান্ত সংলগ্ন উখিয়া, টেকনাফ ও নাইক্ষ্যংছড়ি এবং কক্সবাজার শহরে বসবাসকারী রোহিঙ্গা জঙ্গীদের খোঁজখবর এবং তাদের পাকড়াও করতে মাঠে নেমেছে প্রশাসন। চিরুনি অভিযান চলছে টেকনাফের একাধিক পাহাড়ে। টেকনাফ পাহাড় তথা বাহারছড়ায় রোহিঙ্গা জঙ্গীগোষ্ঠীর (আরএসও) আস্তানা-প্রশিক্ষণ ক্যাম্প রয়েছে বলে ইতোপূর্বে গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছিল। মিয়ানমারের নাগরিকদের নিয়ে গঠিত জঙ্গী সংগঠন রোহিঙ্গা সলিডারিটি অর্গানাইজেশনের বহু প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জঙ্গী চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে ঘাপটি মেরে রয়েছে।

দুই যুবকের কারাদণ্ড

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ নবাবগঞ্জ উপজেলায় মাদক সেবনের অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ২ যুবককে ৬ মাস করে কারাদ- প্রদান করেছে। নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বজলুর রশিদ বুধবার দুপুর ২টায় আটক ওই ২ যুবককে মাদক সেবনের অভিযোগে দোষী সাব্যস্তে এ কারাদ-ে দ-িত করেন। দ-িত ২ যুবক হলো উপজেলার দাউদপুর গ্রামের বাবু মিয়া ও আব্দুর রহিম বুধবার বিকেলে পুলিশ প্রহরায় তাদের দিনাজপুর জেল কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ঠাকুরগাঁওয়ে অস্ত্রসহ আটক ২

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও, ১৮ মে ॥ ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল উপজেলার ধর্মগড়ে শর্টগানসহ অতুল চন্দ্র সিংহ ও আশরাফুল ইসলাম নামে দুইজনকে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় ধর্মগড় ইউনিয়নের কাউন্সিল বাজারে অভিযান চালিয়ে নীলফামারী র‌্যাব-১৩ তাদের আটক করে।

আটক অতুল ধর্মগড় কাশিপুরের ঘরিয়া গ্রামের দ্বিনেশ চন্দ্র সিংহের ছেলে ও আশরাফুল নেকমরদ ভবানন্দপুর গ্রামের আলমের ছেলে।