১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সন্ত্রাস-চক্রান্তের প্রতিবাদে ২৪ মে জেলায় জেলায় বিক্ষোভ ১৪ দলের

সন্ত্রাস-চক্রান্তের প্রতিবাদে ২৪ মে জেলায় জেলায় বিক্ষোভ ১৪ দলের

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রশ্নে তুরস্ক-পাকিস্তানের বিরূপ অবস্থানে ক্ষোভ জানিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করতে দেশ দুটির প্রতি কড়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। একই সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে অবিলম্বে তাকে চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি জানানোর পাশাপাশি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে আদর্শিক এই জোটটি। বুধবার আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ধানম-ির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক থেকে এ দাবি জানানো হয়। বৈঠকে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস-নৈরাজ্য ও চক্রান্তের প্রতিবাদে ধারাবাহিক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ২৪ মে দেশের সব জেলায় বিক্ষোভ সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ওইদিন চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানের সমাবেশে ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা বক্তব্য রাখবেন। পরবর্তীতে গ্রাম পর্যায়েও অনুরূপ কর্মসূচী নেবে ক্ষমতাসীন জোটটি।

বৈঠক শেষে ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র ও আওয়ামী লীগ সভাপতিম-লীর সদস্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম নারায়ণগঞ্জের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে চাকরিতে পুনর্বহাল করা উচিত মন্তব্য করে বলেন, সেখানে সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান যে কাজটি করেছেন, সংসদ সদস্য’র মর্যাদা তিনি রক্ষা করতে পারেননি। বরং অন্য সংসদ সদস্যদের মর্যাদাও ক্ষুণœ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যে ব্যক্তির (শ্যামল ভক্ত) ওপর অন্যায় করা হলো, যাকে অপদস্ত করা হলো- একটি অজুহাতে তারই আবার চাকরি চলে গেল! এটা আরও অন্যায় করা হয়েছে। তাই নারায়ণগঞ্জের শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে চাকরিতে পুনর্বহাল করা উচিত। তিনি বলেন, কেউ অপরাধ করলে আইন আছে। কিন্তু একজন সংসদ সদস্য (সেলিম ওসমান) প্রকাশ্যে যে কাজটি করেছেন, তা ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ। তার এমন ভূমিকা কোনভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। ১৪ দল মনে করে, এর সঙ্গে যেই জড়িত থাক না কেন, আইন অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। এতে সব সম্প্রদায়ের মানুষের জন্য শান্তিপূর্ণ অবস্থান বজায় থাকবে।

ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীর বৈঠক প্রসঙ্গে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, এর পেছনে আরও কারা আছে, কে মদদ দিয়েছেÑ সবাইকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে হবে। কঠোর শান্তি নিশ্চিত করতে হবে। যাতে ভবিষ্যতে কেউ হত্যাসহ সরকার উৎ?খাতের চক্রান্ত করতে না পারে। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে কোন ক্ষমা নেই, কোন ছাড়ও দেয়া যাবে না। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রশ্নে তুরস্ক-পাকিস্তানের বিরূপ অবস্থানে ক্ষোভ জানিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করতে দেশ দুটির প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণও করেন তিনি।

বৈঠক সূত্র জানায়, বৈঠকে রমজান মাসকে সামনে রেখে দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির প্রবণতায় উদ্বেগ জানিয়ে তা স্থিতিশীল রাখতে সরকারের কঠোর পদক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন ১৪ দলের শরিক দলগুলোর নেতারা। পাশাপাশি ধানের দাম বাড়িয়ে কৃষকের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত, বেসরকারী বিদ্যালয়ের বর্ধিত বেতন ও বাসভাড়া কমানো, রাজশাহীতে শিক্ষক হত্যার বিচার এবং ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে চক্রান্তকারী বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীর বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান তারা।

বৈঠকে জেলা-উপজেলায় ১৪ দলের দুর্বল অবস্থানের কথা জানিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে জোটকে শক্তিশালী ও দৃঢ় করতে কার্যকর ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান জোটের নেতারা। ধানের দাম বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া বলেন, এক্ষেত্রে মধ্যস্বত্বভোগীদের প্রতিরোধ করা দরকার। মোসাদের সঙ্গে মিলে বিএনপির সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র প্রসঙ্গে জাসদ নেতা মঈনউদ্দিন খান বাদল এমপি বলেন, ’৯৪ সালে লন্ডনে বসে মোসাদের নেতৃত্বে শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য আরও একবার ষড়যন্ত্র হয়েছিল। ওয়াজেদুল ইসলাম খান সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র চলছে জানিয়ে বলেন, ঐক্যবদ্ধভাবে এ ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে।

ন্যাপের ইসমাইল হোসেন বলেন, রাজনৈতিক আলোচনার বাইরেও দৈনন্দিন সমস্যার সমাধান না করলে জনগণ আমাদের পক্ষে থাকবে না। এজন্য দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখার পাশাপাশি জ্বালানি তেলের দাম কমানোর সঙ্গে সমন্বয় করে দ্রুত বাসভাড়া কমাতে হবে। আওয়ামী লীগের আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি বলেন, ধ্বংসের রাজনীতি করা বিএনপি এখন মোসাদের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। ঐক্যবদ্ধ থেকেই সব ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত মোকাবেলা করতে হবে।

মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, আহমদ হোসেন, ড. আবদুর রাজ্জাক এমপি, এবি তাজুল ইসলাম এমপি, মৃণাল কান্তি দাস এমপি, সুজিত রায় নন্দী, এস এম কামাল হোসেন, জাসদের (ইনু) শিরীন আখতার, জাসদের (আম্বিয়া) শরীফ নুরুল আম্বিয়া, নাজমুল হক প্রধান, ওয়ার্কার্স পার্টির কামরুল আহসান, গণতন্ত্রী পার্টির শাহাদাৎ হোসেন, ন্যাপের নজরুল মজিদ বেলাল, গণআজাদী লীগের এস কে শিকদার, তরিকত ফেডারেশনের এম এ আউয়াল, বাসদের রেজাউর রশীদ খান, জাতীয় পার্টি-জেপি’র এজাজ আহমেদ মুক্তা প্রমুখ।

বিএনপি সমস্ত মুসলিম জাহানের শত্রু- ড. হাছান ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি এখন আর শুধু বাংলাদেশের শত্রু নয়, সকল মুসলিম জাহানের শত্রু। ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে দলটির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরীর বৈঠকের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়ার থলের বিড়াল বেরিয়ে এসেছে।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ’ আয়োজিত ‘ইসলাইলের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক ও শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাতের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদ’ শীর্ষক মানববন্ধন ও সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে বৈঠক করা বিএনপি নেতা আসলাম চৌধুরীকে শুধু নয়, বিএনপির অন্যান্য নেতা এবং প্রয়োজনে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকেও রিমান্ডে নেয়ার দাবি জানান তিনি।

২০ দলীয় জোটে থাকা ইসলামী দলগুলোকে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট থেকে বের হয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, আপনারা দয়া করে অতি দ্রুত মুসলিম জাহানের শত্রু বিএনপিকে ত্যাগ করুন। তা না হলে দেশের সাধারণ জনগণ বিএনপির মতো আপনাদেরও ধিক্কার জানাবে।

সংগঠনের ঢাকা মহানগরের সভাপতি শাহাদত হোসেন টয়েলের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহ-সম্পাদক এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, এম এ করিম, শাহবাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম আতিক প্রমুখ।