১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মার্কিন কোম্পানির প্রযুক্তিপণ্য নীরবে পর্যালোচনা চীনের

  • ওয়াশিংটন-বেজিং সম্পর্কে টানাপোড়েন

মার্কিন প্রযুক্তি জায়ান্ট এ্যাপল ও বিদেশী অন্য বড় কোম্পানিগুলোর চীনে বিক্রি করা প্রযুক্তি পণ্য নীরবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে চীনা কর্তৃপক্ষ। এই পণ্যগুলো চীন ও তার ভোক্তাদের নিরাপত্তার প্রতি হুমকি হয়ে উঠেছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এর ফলে ডিজিটাল নিরাপত্তা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইতোমধ্যেই চীনের সম্পর্কের যে টানাপোড়েন ছিল তাতে আরও নতুন উত্তেজনা যুক্ত হলো। খবর ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমসের।

প্রযুক্তি পণ্যের এনক্রিপশন ও তথ্য ভা-ারকে লক্ষ্য করে চীন সাম্প্রতিক মাসগুলোতে এ্যাপল ও অন্য কোম্পানিগুলোকে নজরদারির আওতায় নিয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। এই কর্মকর্তারা আরও জানান, পর্যবেক্ষণের সময় বিদেশী কোম্পানিগুলোকে তাদের পণ্য সম্পর্কে সরাসরি প্রশ্নের জবাব দিতে তাদের কর্মকর্তা বা কর্মী চেয়েছেন চীনা কর্মকর্তারা। চীনের ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো সাইবারস্পেস এ্যাডমিনিস্ট্রেশন অব চায়নার সহযোগিতায় একটি কমিটি এই পর্যবেক্ষণ পরিচালনা করে। এই ব্যুরোতে চীনের সামরিক ও নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর সঙ্গে সম্পৃক্ত বিশেষজ্ঞ ও প্রকৌশলীরা কাজ করেন। যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রিটেনের মতো অন্যদেশগুলোও কিছু প্রযুক্তি পণ্যের পর্যবেক্ষণ করে। বিশেষ করে সামরিক বাহিনী ও নিরাপত্তা বিষয়ে উদ্বেগ রয়েছে এমন বিষয়ে পণ্যের পরীক্ষা করা হয়। সাধারণ জনগণের কাছে বিক্রি হয় এমন প্রযুক্তি পণ্যে নয়। চীনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা লক্ষণীয় কারণ সেখানে বিস্তৃতভাবে এরূপ পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হচ্ছে। এমনকি দেশটিতে জনপ্রিয় মার্কিন সফটওয়্যার ও গ্যাজেটও এর অন্তর্ভুক্ত। যেহেতু চীনা কর্মকর্তারা তাদের পরীক্ষার ধরন প্রকাশ করেনি তাই যুক্তরাষ্ট্র সরকার ও মার্কিন কোম্পানিগুলো উভয়েই উদ্বিগ্ন যে, এই পরীক্ষার মাধ্যমে প্রযুক্তি জ্ঞানের মূল তথ্য বের করার পাশাপাশি নিশ্চিত করা হবে যে, যুক্তরাষ্ট্র এই পণ্য গুপ্তচর বৃত্তির জন্য ব্যবহার করেনি। পরিশেষে এই পর্যবেক্ষণ ব্যবহৃত হতে পারে কোন ব্যাখ্যা ছাড়াই পণ্য ব্লক করে দেয়ার লক্ষ্যে অথবা চীনা মার্কেটে প্রবেশের বিনিময়ে গোপন বাণিজ্যিক তথ্য আদায়ের লক্ষ্যেও। ওই গোপন তথ্য চীনা প্রতিযোগীদের কাছে ফাঁস হয়ে যেতে পারে।