১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কান নিয়ে মাতামাতি

  • তৌফিক অপু

১১ মে আনুষ্ঠানিকভাবে পর্দা উঠেছে বিশ্বের সবচেয়ে দাপুটে কান আন্তর্জাতিক ফিল্ম ফেস্টিভালের ৬৯তম আসরের। বিশ্বে এই চলচ্চিত্র উৎসবটিকে অস্কার, ভেনিস ফিল্ম ফেস্টিভাল এবং বার্লিন ফিল্ম ফেস্টিভালের থেকেও গুরুত্বপূর্ণ ও মর্যাদাপূর্ণ হিসেবে মনে করা হয়। এমন মর্যাদাপূর্ণ আসরে সিনেমা নিয়ে প্রতিযোগিতা ছাড়াও সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিকটি হচ্ছে ‘রেড কার্পেট’-এ হাঁটা। বিশ্বের এমন কোন মডেল, অভিনেত্রী খুঁজে পাওয়া যাবে না যে কান চলচ্চিত্র উৎসবের লাল গালিচায় হাঁটার স্বপ্ন দেখে না। তাই প্রতিবছর এই উৎসবকে ঘিরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অভিনেত্রী আর মডেলরা বিভিন্ন কোম্পানি আর দেশের প্রতিনিধি হয়ে আসেন শুধু লাল গালিচায় একবার হাঁটতে! প্রতিবারের মতো এবারও হয়নি তার ব্যতিক্রম। উদ্বোধনী দিন থেকেই কান উৎসবের লাল গালিচায় ভিড় জমাতে দেখা গেছে বিশ্বের নামী-দামী তারকা অভিনেত্রী ও মডেলদের। এরপর থেকে প্রতিনিয়তই চলছে কানের লাল গালিচায় তারকাদের ঝড়। গত বছরে ফ্রান্সের রক্তাক্ত স্মৃতি মাথায় নিয়ে উৎসবটি শুরু হওয়ার আগে তাই কানে আগত বিশ্ব সিনেমার তারকাদের নিয়ে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ এখন ‘নিরাপত্তা’। গত বছরের নবেম্বরে ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হামলায় রক্তাক্ত হয়েছিল ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস। প্রায় একই সময়ে কয়েকটি স্থানে বোমা হামলা ও বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত হয়েছিল শতাধিক মানুষ। সন্ত্রাসী হামলার সেই ভয়ঙ্কর স্মৃতি মাথায় নিয়ে ফ্রান্সের দক্ষিণের শহর কানে পর্দা উঠল যেন আন্তর্জাতিক কান চলচ্চিত্র উৎসবের। আর বিশ্বের গৌরবময় এই উৎসবে যোগ দেয় কান শহরে উপস্থিত হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকা অভিনেতা অভিনেত্রীসহ নির্মাতারাও! উদ্বোধনী উৎসবকে ঘিরে পুরো কান শহরে এলিট ফোর্স ছাড়াও সাধারণ পুলিশ ও অন্যান্য নিরাপত্তারক্ষীরা উৎসবটিকে ঘিরে সজাগ থাকছে পুরো ১২টি দিন। কান চলচ্চিত্র উৎসবে মূল প্রতিযোগিতায় পাম ডি’ওর-এর জন্য লড়ছে বিশ্বের মোট ২১টি সিনেমা। অন্যদিকে কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৬৯তম আসরের জুরিবোর্ডের প্রধান হিসেবে ছিলেন চলতি বছরে ‘মেড ম্যাক্স ফিউরি রোড’ অস্কারজয়ী নির্মাতা, প্রযোজক ও অস্ট্রেলিয়ান লেখক জর্জ মিলার। তারসহ বিচারক হিসেবে এবার জুরিবোর্ডে ছিলেন নির্মাতা আর্নড ডিসপেলচিন, অভিনেত্রী ক্রিস্টেন ডান্সট, অভিনেত্রী ও নির্মাতা ভ্যালেরিয়া গলিনো, অভিনেতা ম্যাডস মিকেলসেন, লেজিও নেমেস, অভিনেত্রী ও শিল্পী ভেনিসা প্যারাডিস, প্রযোজক কাটায়ন সাহাবি ও অভিনেতা ডোনাল্ড সাথারল্যান্ড।

কান ক্লাসিকসে খান আতার ছবি

কান চলচ্চিত্র উৎসবের এবারের আসরে ধ্রুপদী ছবি বিভাগ কান ক্ল্যাসিকসে রাখা হয়েছে খান আতা অভিনীত উর্দু ছবি ‘জাগো হুয়া সাভেরা’ (১৯৫৮)। চলচ্চিত্রটির দৃশ্যায়ন হয়েছিল ঢাকা থেকে ৩০ মাইল দক্ষিণে মেঘনা নদীর তীরের এক জেলেপল্লীতে। উৎসবের মূলকেন্দ্র প্যালে ডি ফেস্টিভ্যাল ভবনের সাল বুনুয়েল প্রেক্ষাগৃহে রবিবার সকাল ১১টায় ছিল আইজাই কারদার পরিচালিত ‘জাগো হুয়া সাভেরা’ চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। এ ছবির সহকারী পরিচালক ছিলেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার জহির রায়হান। ছবিটিতে জেলে কাসিম চরিত্রে দেখা যায় খান আতাকে। তবে পর্দায় তার নাম উল্লেখ করা হয়েছে আনিস। তখন তিনি এই নামেই পরিচিত ছিলেন। ছবিটিতে তার সহশিল্পী ছিলেন কলকাতার তৃপ্তি মিত্র। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালজয়ী উপন্যাস ‘পদ্মা নদীর মাঝি’ অবলম্বনে কবি ফয়েজ আহমেদ ফয়েজের চিত্রনাট্যে তৈরি হয় ছবিটি। তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানের জেলে সম্প্রদায়ের জীবনযাপন নিয়েই এর গল্প। তারা প্রত্যেকেই নিজের একটি নৌকার স্বপ্ন দেখে। ‘জাগো হুয়া সাভেরা’ চলচ্চিত্রটির মূল নেগেটিভ হারিয়ে গেছে। ছবিটি ও এর শব্দ পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে লন্ডনের ডিলাক্স রিস্টোরেশন। তাদেরকে ছবিটি দিয়েছে ছবিটির প্রযোজক নোমান তাসিরের ফাউন্ডেশন। তার ছেলে আনজুম তাসির বাবার নামে ফাউন্ডেশনটি চালান।

কানের মার্শে দু’ফিল্মে ‘অজ্ঞাতনামা’

এবং ‘আয়নাবাজি’

কান চলচ্চিত্র উৎসবের বাণিজ্যিক শাখা মার্শে দু’ফিল্মে বাংলাদেশের দুই চলচ্চিত্র তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ‘অজ্ঞাতনামা’ এবং অমিতাভ রেজা পরিচালিত ‘আয়নাবাজি’ এর প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে ‘অজ্ঞাতনামা’ সিনেমার পরিচালক তৌকীর আহমেদ, তার স্ত্রী বিপাশা হায়াৎ এবং ‘আয়নাবাজি’ চলচ্চিত্রের পরিচালক অমিতাভ রেজা, গাউসুল আলম শাওন এখন ফ্রান্সে অবস্থান করছেন। মার্শে দু’ফিল্ম কান উৎসবের মূল অফিশিয়াল সিলেকশনের বাইরে একটি পুরোপুরি বাণিজ্যিক বিভাগ। উৎসবের সময়ে প্যালে ডে ফেস্টিভ্যালের নিচতলার জায়গাটায় নির্দিষ্ট ফি দিয়ে যে কেউ তাদের ছবি দেখাতে পারেন। প্রযোজনা সংস্থাগুলোর সুযোগ থাকে বুথ বা টেবিল ভাড়া নিয়ে নিজেদের কাজ তুলে ধরার। কান চলচ্চিত্র উৎসবের আমন্ত্রণে বাংলাদেশের প্রথম সিনেমা হিসেবে ২০০২ সালে তারেক মাসুদ পরিচালিত ‘মাটির ময়না’ প্রদর্শিত হয়। এটিই কান উৎসবে অংশ নেয়া একমাত্র বাংলাদেশী সিনেমা। তারেক মাসুদ, রোকেয়া প্রাচী ও জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় কান উৎসবের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে সেই বছর অংশ নিয়েছিলেন। অজ্ঞাতনামা সিনেমায় অভিনয় করেছেন— মোশারফ করিম, নিপুণ, ফজলুর রহমান বাবু, আবুল হায়াত, শতাব্দী ওয়াদুদ, শাহেদ আলী, শহিদুজ্জামান সেলিম, শাহেদ শরীফ খান প্রমুখ। মোশাররফ করিম অভিনয় করছেন ফরহাদ চরিত্রে ও নিপুণের চরিত্রের নাম বিউটি। চলচ্চিত্রটির গল্প চিত্রনাট্য ও সংলাপ রচনা করেছেন তৌকীর আহমেদ নিজেই। প্রযোজনা করেছে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম। অন্যদিকে ‘আয়নাবাজি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেনÑ চঞ্চল চৌধুরী, নাবিলা, গাওসুল আলম শাওন, এজাজ প্রমুখ।