২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তিস্তায় পানি বৃদ্ধিতে চরাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করেছে

তিস্তায় পানি বৃদ্ধিতে চরাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করেছে

স্টাফ রির্পোটার, নীলফামারী ॥ উজানের সিকিমের পাহাড়ে ভারী বর্ষনের ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। পানি বৃদ্ধির কারনে নীলফামারীর ডালিয়ায় অবস্থিত তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি কপাট খুলে রাখা হয়েছে। এদিকে সিকিমের ভারী বর্ষনের পানি নেমে আসায় ভারত অংশে তিস্তা অববাহিকায় হলুদ সংকেট জারী করা হয়েছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের বন্যা পূর্বাভাস ও সর্তকীকরন কেন্দ্র জানায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি ৫১ দশমিক ৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। সুত্র মতে বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি ৫২.০০ সেন্টিমিটার ছিল। এই পয়েন্টে বিপদসীমা ৫২ দশমিক ৪০ সেন্টিমিটার। সুত্র মতে ২৪ ঘন্টায় তিস্তা অববাহিকার ডালিয়ায় বৃস্টি হয়েছে ১২ মিলিমিটার।

তিস্তাপাড়ের স্থানীয়রা জানায় উজানের ভারী বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলের কারনে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার পূর্বছাতনাই, খগাখড়িবাড়ি, টেপাখড়িবাড়ি, খালিশা চাপানী,ঝুনাগাছচাঁপানী,জলঢাকা উপজেলার গোলমুন্ডা,ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়নের তিস্তা নদীর চর এলাকা গুলো প্ল¬াবিত করছে।

সিকিমে বৃষ্টি চলতে থাকায়, তিস্তায় পানি বাড়ছে। ভারতের গজলডোবা তিস্তা ব্যারাজের নির্বাহী বাস্তুকার সুমিলন ঘোষের বরাত গিয়ে আজ বৃহস্পতিবার আনন্দবাজার অনলাইনে বলা হয়েছে পাহাড়ে বৃষ্টির জেরে পানি বেড়ে যাওয়াতেই ভারতের কালীঝোরার বাঁধ থেকে পানি ছাড়া হয়। ফলে গজলডোবায় চাপ বাড়ে। এ কারনে স্বাভাবিক ভাবেই গজলডোবা ব্যারাজের চাপ কমাতে গড়ে ঘন্টায় ১১০০ কিউমেক করে তিস্তায় পানি ছাড়া হয়। ফলে তিস্তার চর এলাকা প্লাবিত হচ্ছে।

আর উজানের এই ঢল এসে প্রবেশ করছে বাংলাদেশের ডিমলা উপজেলার কালিগঞ্জ জিরো পয়েন্ট দিয়ে

নির্বাচিত সংবাদ