১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৬৬ যাত্রী নিয়ে মিসরীয় বিমান ভূমধ্যসাগরে বিধ্বস্ত

৬৬ যাত্রী নিয়ে মিসরীয় বিমান ভূমধ্যসাগরে বিধ্বস্ত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ প্যারিস থেকে কায়রো যাওয়ার পথে মিসরের একটি যাত্রীবাহী বিমান ভূমধ্যসাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে। ফরাসী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ খবরটি নিশ্চিত করেছেন। প্যারিসে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেছেন। তবে সর্বশেষ খবর অনুযায়ী গ্রীসের ক্রিট দ্বীপের কাছে এই বিধ্বস্ত বিমানটির কিছু ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে বলে মিসরীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আদেল বলেছেন, গ্রীসে বিমানটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়ায় উদ্ধারকাজ আরো সহজ হবে। খবর বিবিসি অনলাইনের।

এর আগে ইজিপ্ট এয়ার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল ৬৬ আরোহীসহ তাদের কায়রোগামী বিমানটি নিখোঁজ হয়েছে। পরে বিমানটির অনুসন্ধান অভিযানে ফ্রান্স নৌকা ও বিমান পাঠিয়ে সহায়তার ঘোষণা দেয় এবং কায়রাতে ফরাসী দূতাবাসে ক্রাইসিস সেল খোলা হয়। ফরাসী প্রেসিডেন্ট ওলাঁদ জরুরী বৈঠকে বসেন। কায়রো সময় রাত আড়াইটায় মিসরের আকাশসীমায় ঢোকার আগ মুহূর্তে এয়ারবাস এ৩২০ বিমানটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বিমানটিতে তিন শিশুসহ ৫৬ জন যাত্রী ছিলেন। এছাড়া সাত ক্রু ও তিন নিরাপত্তাকর্মী ছিলেন। যাত্রীদের মধ্যে ৩০ জন মিসরের, ১৫ জন ফ্রান্সের ও দু’জন ইরাক ছাড়াও ব্রিটেন, কানাডা, বেলজিয়াম, কুয়েত, সৌদি আরব, আলজিরিয়া, সুদান, চাদ ও পর্তুগালের নাগরিক ছিলেন। ফ্লাইট এমএস ৮০৪ বিমানটি পূর্ব ভূমধ্যসাগরের ৩৭ হাজার ফুট ওপর উড়ে চলার সময় নিখোঁজ হয়। স্থানীয় সময় ২টা ৪৫ মিনিটে নিয়ন্ত্রণকক্ষ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

বিমান কর্তৃপক্ষ বলছে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার সময় ওই বিমানটি মিসরের আকাশসীমা থেকে মাত্র ১৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। বিশ্বজুড়ে যাত্রীবাহী বিমানগুলোর গতিপথ পর্যবেক্ষণ করে এমন একটি ওয়েবসাইট জানিয়েছে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বিমানটি ছিল এয়ারবাস এ৩২০ বিমান। প্যারিস সময় রাত এগারটায় ছেড়ে আসা বিমানটি রাত সোয়া তিনটায় কায়রো পৌঁছানোর কথা ছিল।

যদিও সরকারীভাবে বিমানটি ভূমধ্যসাগরে বিধ্বস্ত হওয়ার কথা বলা হচ্ছে কিন্তু বিশেষজ্ঞরা এক্ষেত্রে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন। বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ পর্যালোচনা করে তারা এমন মন্তব্য করেছেন। ফ্রান্স এবং মিসর উভয় দেশেই সাম্প্রতিক সময়ে অনেকবার সন্ত্রাসী হামলা ঘটেছে। গত অক্টোবরে মিসরের অবকাশ শহর শার্ম আল শেখ থেকে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গ যাওয়ার পথে রাশিয়ার একটি ভাড়া করা এ৩২১ বিমান সিনাই উপত্যকায় বিধ্বস্ত হয়েছিল। জঙ্গী গ্রুপ আইএস বিমানটি ভূপাতিত করার কৃতিত্ব দাবি করেছিল। ওই দুর্ঘটনায় বিমানের ২২৪ আরোহীই নিহত হয়। মিসরের বিমান উড্ডয়ন মন্ত্রী শেরিফ ফাতহি অবশ্য দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত করে কিছু বলেননি। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘কারিগরি ত্রুটি না সন্ত্রাসী হামলায় বিমানটি দুর্ঘটনা কবলিত হয়েছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না।’ এ৩২০ বিমানের নিরাপত্তা রেকর্ড যথেষ্ট ভাল। এ ধরনের বিমান আচমকা দুর্ঘটনাকবলিত হওয়ার রেকর্ড নেই। তবে বিশেষজ্ঞরা একথাও বলেছেন, ভূমি থেকে আকাশে গোলা ছুড়ে বিমানটি বিধ্বস্ত করার সম্ভাবনা তারা দেখছেন না।