১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ডিএনএ প্রোফাইলের ওপর ঝুলে আছে তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত রিপোর্ট

ডিএনএ প্রোফাইলের  ওপর ঝুলে আছে তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত রিপোর্ট

মীর শাহ আলম, কুমিল্লা থেকে ॥ কুমিল্লায় কলেজছাত্রী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনুর ডিএনএ প্রোফাইল ও দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে তদন্তকারী সংস্থা সিআইডির সঙ্গে মেডিক্যাল বোর্ডের মধ্যে মতবিরোধ এখন অনেকটা স্পষ্ট রূপধারণ করেছে। সিআইডির রাসায়নিক পরীক্ষাগারে প্রস্তুত তনুর ডিএনএ রিপোর্ট প্রাপ্তিসাপেক্ষে দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত রিপোর্ট দ্রুত দেয়া হবে মর্মে অজুহাত দেখিয়েছিল মেডিক্যাল বোর্ড। এদিকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক গাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ময়নাতদন্তকারী মেডিক্যাল বোর্ডকে চিঠি দিয়ে আদালতের মাধ্যমে ডিএনএ প্রতিবেদন সংগ্রহ করার জন্য জানিয়েছে।

সিআইডির চিঠি পেয়ে মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান ডাঃ কামদা প্রসাদ সাহা সাংবাদিকদের জানান, পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য পরবর্তী কার্যদিবসে বোর্ড বৈঠকে বসবে এবং আইনগত পরামর্শের জন্য আইনজীবীর শরণাপন্ন হবে। এতে ডিএনএ প্রোফাইলের ওপর ঝুলে আছে তনুর দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন।

গত ১৬ মে সোমবার সিআইডি-কুমিল্লার বিশেষ পুলিশ সুপার ড. নাজমুল করিম খান সাংবাদিকদের জানান, তনুর ডিএনএ প্রতিবেদনে ৪ জনের প্রোফাইল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একটি তনুর এবং অপর ৩টি পৃথক ৩ ব্যক্তির। ডিএনএ পরীক্ষায় ৩ জন পুরুষের বীর্য পাওয়া গেছে। তনুর লাশ উত্তোলনের পর ডিএনএ প্রতিবেদন সিআইডি পেলেও দ্বিতীয় দফায় ময়নাতদন্তের ৫১ দিন পেরিয়ে গেলেও এ পর্যন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি ময়নাতদন্তকারী ৩ সদস্যের মেডিক্যাল বোর্ড। দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য মেডিক্যাল বোর্ড মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট চিঠি দিয়ে ডিএনএ প্রতিবেদন চেয়ে চিঠি প্রেরণ করে এবং এর অনুলিপি আদালত ও কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ বরাবরে প্রেরণ করা হয়। এ চিঠির জবাবে বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক গাজী মোঃ ইব্রাহীম পাল্টা চিঠিতে মেডিক্যাল বোর্ডকে আদালতের মাধ্যমে তনুর ডিএনএ প্রতিবেদন সংগ্রহের পরামর্শ দেন। সূত্র জানায়, মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে আদালত থেকে কোন কিছু পাওয়ার জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তাই আবেদন করতে পারেন, চিকিৎসক নয়। এমতাবস্থায় মেডিক্যাল বোর্ডের সভাপতি ও কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডাঃ কামদা প্রসাদ সাহা বৃহস্পতিবার বিকেলে সাংবাদিকদের জানান, সিআইডি হতে দুপুরের পর একটি চিঠি পেয়েছি। তবে ডিএনএ প্রতিবেদন এখনও পাইনি। চিঠিতে আদালতের মাধ্যমে ডিএনএ প্রতিবেদন সংগ্রহের কথা বলা হয়। এছাড়া সিআইডির প্রেরিত চিঠি এবং দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে আগামী কার্যদিবসে মেডিক্যাল বোর্ড বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সিআইডি ও মেডিক্যাল বোর্ডের এমন অনড় অবস্থানের কারণে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন কবে হবেÑ এ নিয়ে বেশ জটিলতা দেখা দিয়েছে। ডিএনএ নমুনা পরীক্ষায় প্রাপ্ত চারজনের প্রোফাইল নিয়ে মামলার তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি ও দ্বিতীয় ময়নাতদন্তের জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের মধ্যে চলছে চিঠি চালাচালি। ডিএনএ প্রতিবেদন চেয়ে মেডিক্যাল বোর্ডের প্রেরিত চিঠির পর বৃহস্পতিবার সিআইডি পাল্টা চিঠি প্রেরণ করে আদালতের মাধ্যমে ওই প্রতিবেদন সংগ্রহ করার জন্য তাদের (মেডিক্যাল বোর্ড) জানিয়ে দিয়েছে। এর আগে বুধবার মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান বলেছিলেন, ডিএনএ প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর ৩ কার্যদিবসের মধ্যে তারা দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন। কিন্তু চিঠি চালাচালির এ পর্যায়ে দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন কবে নাগাদ দাখিল হতে পারে বৃহস্পতিবারও তা নিশ্চিত করে জানাতে পারেননি মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান। এদিকে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুতকারী সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের নিয়ে আস্থার সঙ্কট দেখা দিয়েছে তনুর বাবা-মা ও স্বজনদের। তারা তনুর ময়নাতদন্তকারীদের বিরুদ্ধে দায়িত্বহীনতার অভিযোগ তোলেন।