২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে স্কুলছাত্র ও অজ্ঞাত তরুণীর লাশ উদ্ধার

রাজধানীতে স্কুলছাত্র ও অজ্ঞাত তরুণীর লাশ উদ্ধার
  • অস্ত্রের মুখে সাংবাদিকের ৬০ হাজার টাকা ছিনতাই

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর সবুজবাগ এবং বাড্ডায় খাল থেকে স্কুলছাত্র ও অজ্ঞাত এক তরুণীর লাশ উদ্ধার হয়েছে। মিরপুরে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে পুলিশের এক কর্মকর্তা সর্বস্ব খুঁইয়েছেন। পল্টনে ছিনতাইকারীরা অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এক সাংবাদিকের ৬০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে। বৃহস্পতিবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাজধানীর সবুজবাগ থানার দক্ষিণগাঁও এলাকার একটি ঝিল থেকে সিরাজুল ইসলাম সিয়াম (১২) নামে এক ছাত্রের লাশ উদ্ধার হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে ওই এলাকার একটি ঝিল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দুপুরে ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃত সায়েম মতিঝিল মডেল স্কুলের বাসাবো শাখার ৭ম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। তার বাবার নাম হামিদুল ইসলাম হীরা। গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার অভিরামপুরে। নিহত সিয়ামের চাচা শফিকুল ইসলাম জানান, বুধবার স্কুল থাকায় দুপুর ১২টার দিকে সাইকেল নিয়ে বাসা থেকে বের হয় সায়েম। তিনি জানান, দুপুর ২টা থেকে তার খোঁজ শুরু হয়। তার সন্ধান না পেয়ে বুধবার রাতে সবুজবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

সবুজবাগ থানার ওসি আব্দুল কুদ্দুস ফকির জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে দক্ষিণগাঁও ঝিলের ডোবায় সায়েমের লাশ ভাসতে দেখা যায়। তার শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন ছিল না। মহানগর পুলিশের খিলগাঁও জোনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার নূর-ই আলম জানান, প্রাথমিকভাবে এটি দুর্ঘটনা বলেই মনে করা হচ্ছে। তিনি জানান, বুধবার দুপুরে বৃষ্টির মধ্যে সায়েম সাইকেল চালিয়েছিল। সেই কাদামাখা সাইকেল পাওয়া গেছে দক্ষিণগাঁওয়ে তাদের বাসার নিচে। ওই বাসা থেকে দুই শ’ গজ দূরেই ঝিল। সহকারী কমিশনার নূর-ই আলম জানান, মায়ের বকার ভয়ে সায়েম পা ধোয়ার জন্য ঝিলে গিয়েছিল বলে মনে হচ্ছে। তার ট্রাউজার গোটানো অবস্থায় ছিল। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পা পিছলে সে পানিতে পড়ে যায়। আর সাঁতার না জানায় সে পানিতে তলিয়ে যায়। নূর-ই আলম জানান, বৃষ্টির মধ্যে ওই ঘটনার সময় অন্য কেউ ঝিলের কাছে ছিল না। সায়েমকে খুঁজে না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে এলাকায় মাইকিং করা হয়। রাতে তার মামা জামাল উদ্দিন সবুজবাগ থানায় একটি জিডি করেন। দক্ষিণগাঁওয়ের ওই বাসা সায়েমের নানার। সায়েমরা দুই ভাই ও তাদের মা সেখানেই থাকতেন। তাদের বাবা হামিদুল ইসলাম বালুর ড্রেজার মেশিনে কাজ করেন। পরিবারের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল।

এদিকে একই দিন সকালে রাজধানীর বাড্ডায় একটি খাল থেকে অজ্ঞাত (২৩) এক তরুণীর লাশ উদ্ধার হয়েছে। বাড্ডা থানার ওসি এমএ জলিল জানান, বৃহস্পতিবার সকালে বাড্ডার এক শ’ ফুট রাস্তার শেষ মাথায় বেরাইদ শ্মশান ঘাটের খালে ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। তিনি জানান, মৃতদেহে কোন ধরনের জখমের চিহ্ন নেই। খালের পাশ দিয়ে নতুন রাস্তা রয়েছে। হেঁটে যাওয়ার সময় দুর্ঘটনাবশত পড়ে গিয়েছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নাকি অন্য কিছু। ওসি জানান, তরুণীর পরনে সালোয়ার কামিজ ছিল। তার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য ॥ রাজধানীর মিরপুরে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়েন পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) বদিউজ্জামান (৩৫)। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মিরপুর পুলিশ লাইনের সামনে থেকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তার সহকর্মী পুলিশের নায়েক রানা জানান, বদিউজ্জামান তার স্বজনদের কল্যাণপুরে বাসে তুলে দিয়ে মিরপুর-১৪ পুলিশ লাইনে ফিরছিলেন। পুলিশ লাইনের গেটে আসার পর হঠাৎ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রথমে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে তাকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নেয়া হয়। পরে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তার পাকস্থলী ওয়াশ করেছেন। এরপর তাকে মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তিনি আরও জানান, ধারণা করা হচ্ছে তিনি অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়েছিলেন।

ছিনতাই ॥ রাজধানীর পল্টনে ছিনতাইকারীরা অস্ত্রের মুখে মনিরুল আলম (৫০) নামে এক সাংবাদিকের ৬০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী সাংবাদিক মনিরুল আলম পল্টন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে ইস্টার্ন ব্যাংক মতিঝিল শাখা থেকে ৬০ হাজার টাকা উত্তোলন করে ইংরেজী দৈনিক ডেইলি সানের সিনিয়র রিপোর্টার মনিরুল রিক্সায় করে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ফিরছিলেন। পল্টনের দৈনিক বাংলা মোড়ের কাছে পৌঁছলে তিন ছিনতাইকারী তার রিক্সাটির গতিরোধ করে। এ সময় তারা আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে মনিরুলের কাছ থেকে ওই টাকা ছিনিয়ে নেয়। পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোর্শেদ আলম বলেন, ছিনতাইয়ের অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার তদন্ত চলছে।