২১ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আন্তঃজেলা রুটে আজ থেকে বাস ভাড়া কমছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ থেকে কমছে দূরপাল্লার বাস ভাড়া। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহানগরী বাদে সারা দেশে বাস ভাড়া কিলোমিটার প্রতি ৩ পয়সা কমানোর ঘোষণা দেয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। এই হিসেবে প্রতিকিলোমিটারে এখন থেকে এক টাকা ৪৫ পয়সার স্থলে এক টাকা ৪২ পয়সা ভাড়া হবে। যদিও ১৫ মে থেকে বাসভাড়া কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। পরিবহন মালিকদের চাপের মুখে এক পর্যায়ে পিছু হটে সরকার। এদিকে ভাড়া কার্যকর করতে রাজধানীতে তিনটি মনিটরিং টিম গঠন করেছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। তবে নামমাত্র তেলের দাম ও বাস ভাড়া কমানোর বিরোধিতা করেছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও পরিবহনসংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো। তারা আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে তেলের দাম লিটারপ্রতি আরও অন্তত ২০ টাকা কমানোর দাবি জানিয়েছে।

সর্বশেষ ২০১৩ সালে আন্তঃজেলা রুটে বাস ভাড়া বাড়ানো হয়। তখন ভাড়া নির্ধারণ করা হয় কিলোমিটারপ্রতি এক টাকা ৪৫ পয়সা। এর আগে ২০১২ সালের ১ জানুয়ারি দূরপাল্লার বাসের ভাড়া প্রতিকিলোমিটারে ১৫ পয়সা করে বাড়িয়ে এক টাকা ৩৫ পয়সা করা হয়। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর পর বাসের ভাড়া কামানো হলেও যাত্রী পর্যায়ে তা বাস্তবায়ন না হওয়ার অভিযোগ যাত্রী অধিকার নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংগঠনের।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষের (ডিটিসিএ) আওতায় সাত জেলায় পরিবহনের ভাড়া কমবে না। এসব জেলার মধ্যে রয়েছে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর, ও নরসিংদী। চট্টগ্রামেও বাস ভাড়া কমবে না। মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, এসব জেলায় সিএনজি চালিত গ্যাসে গাড়ি চলায় ভাড়া কমবে না। সিএনজি চালিত পরিবহনের জন্য পৃথক ভাড়া নির্ধারণ করার কথা জানিয়েছে তারা।

নতুন বাস ভাড়া কার্যকর প্রসঙ্গে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ জনকণ্ঠকে বলেন, প্রজ্ঞাপনে পরিবহন মালিকদের প্রস্তাবের প্রতিফলন হয়নি। মন্ত্রণালয় কোন রকম বৈঠক ছাড়াই প্রতিকিলোমিটারে তিন পয়সা ভাড়া কমানোর ঘোষণা দিয়েছে। এমন বাস্তবতায় আমাদের মেনে নেয়া ছাড়া কোন উপায় নেই।

বাস ভাড়া কার্যকর বিষয়ে জানতে চাইলে বিআরটিএ’র সচিব শওকত আলী জনকণ্ঠকে বলেন, কেউ যেন বাড়তি ভাড়া যাত্রী থেকে আদায় করতে না পারে তা নিশ্চিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি বলেন, ভাড়া কার্যকর করতে রাজধানীতে তিনটি মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকে সায়েদাবাদ, মহাখালী ও গাবতলী টার্মিনালে তারা দায়িত্ব পালন করবে। কেউ বাড়তি ভাড়া নিলে সঙ্গে সঙ্গে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা অনুযায়ী ১৫ মে থেকে বাসভাড়া কার্যকর হওয়ার কথা ছিল। পরিবহন মালিক সমিতির অনুরোধে ৫দিন সময় বৃদ্ধি করে সরকার। এই হিসেবে আজ ২০ মে থেকে ভাড়া কার্যকর হতে যাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগে থেকেই বাস মালিকদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন। তিনি বলেছেন, কেউ যাত্রীর থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ২৫ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে অকটেন ও পেট্রোলের দাম লিটারপ্রতি ১০ টাকা এবং কেরোসিন ও ডিজেলের দাম তিন টাকা কমিয়েছে সরকার। তেলের দামের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে এর আগে বাসসহ অন্যান্য গণপরিবহনের ভাড়া বাড়ানো হয়েছিল। সে যুক্তি দেখিয়ে এবার ভাড়া কমানোরও দাবি ওঠে যাত্রী অধিকার আন্দোলনে যুক্তদের। অবশ্য যাত্রী অধিকার নিয়ে কাজ করে এমন একটি সংগঠন ‘যাত্রী কল্যাণ সমিতি’র মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, দুই বা তিন পয়সা ভাড়া কমিয়ে যাত্রীর কোন লাভ হবে না। এক্ষেত্রে দূরপাল্লায় তিন থেকে চার টাকা ভাড়া কমতে পারে। তবে জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে এর কয়েকগুণ ভাড়া বৃদ্ধি হতো। এই ধরনের বৈঠক একটি আইওয়াশ বলেও মনে করেন তিনি।

জ্বালানি তেলের দাম কমার পর দূরপাল্লার বাস ভাড়া কমানোর বিষয়টি আলোচনায় আসে। বিভিন্ন মহলের দাবির প্রেক্ষিতে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও ঘোষণা দিয়েছিলেন, তেলের দাম কমার পর ভাড়া কমানো হবে। তেলের দাম কমার পর ব্যয় বিশ্লেষণ কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে ভাড়া নির্ধারণের প্রস্তাব তৈরি করতে বিআরটিএকে নির্দেশ দেয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) পরিবহন কর্তৃপক্ষসহ ব্যয় বিশ্লেষণ কমিটির সঙ্গে বৈঠক করে। বৈঠকে পরিবহন নেতারা প্রতিকিলোমিটারে দুই পয়সা ভাড়া কমানোর দাবি জানান। কিন্তু বিআরটিএ’র পক্ষ থেকে বলা হয়েছে তিন পয়সা কমানোর।