২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্বে বজ্রপাতের ‘হটস্পট’ ভেনিজুয়েলা

আফ্রিকা বা ফ্লোরিডার কোন স্থান নয়, বিশ্বের বজ্রপাতের নতুন ‘হটস্পট’ হয়ে উঠেছে ভেনিজুয়েলার মারাকাইবো হ্রদ। সিএনএন বলছে, আমেরিকান মেটেওরোলজিক্যাল সোসাইটির জার্নালে প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার সাম্প্রতিক এক গবেষণার ফলাফলে বিষয়টি জানানো হয়েছে। খবর ওয়েবসাইটের।

পৃথিবীর কক্ষপথে নাসার স্থাপিত আবহাওয়া স্যাটেলাইটের লাইটেনিং ইমেজিং সেন্সর থেকে ১৬ বছর ধরে পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে, প্রতি বছর হ্রদটির প্রতি বর্গকিলোমিটার এলাকার উপর গড়ে ২৩৩টি বজ্রপাত হয়। এর আগে আফ্রিকার কঙ্গো নদীর অববাহিকাকে বিশ্বের সবচেয়ে বজ্রপাতপ্রবণ এলাকা বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে, সাগর ও পর্বত উপত্যকা থেকে প্রবাহিত বায়ু মারাকাইবো হ্রদের উষ্ণ পানির উপরিভাগে জড়ো হয়ে প্রতি বছর গড়ে ২৯৭ দিন-রাত্রিকালীন বজ্রঝড় সৃষ্টি করে। বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও ধারাবাহিকভাবে সৃষ্টি হওয়া এসব বজ্রঝড় সারাবছর ধরে প্রায় একই এলাকাকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়। এ কারণেই এলাকাটিতে বজ্রপাতের ঘনত্ব এত বেশি। তবে মহাদেশগত বজ্রপাতের হিসাবে আফ্রিকা মহাদেশ এখনও বিশ্বের বজ্রপাতের ‘হটস্পট’ রয়ে গেছে। আফ্রিকার পরে যথাক্রমে আছে এশিয়া, দক্ষিণ আমেরিকা, উত্তর আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া। সিএএনের আবহাওয়াবিদ পেদরাম জাভাহেরির তথ্যানুযায়ী উত্তর আমেরিকার সবচেয়ে বজ্রপাতপ্রবণ এলাকা ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের মধ্যাঞ্চল।

গোধরায় ট্রেনে আগুন লাগানোর ‘পরিকল্পনাকারী’ গ্রেফতার

ভারতের গুজরাটের গোধরা স্টেশনের কাছে শবরমতি এক্সপ্রেস ট্রেনে হামলা চালিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়ার ঘটনার কথিত মূল পরিকল্পনাকারী ফারুক ভানাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

২০০২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ওই ঘটনার পর ১৪ বছর ধরে পালিয়ে থাকা ফারুককে বুধবার গোধরার কাছ থেকেই গ্রেফতার করা হয়। খবর এনডিটিভির।

ফারুককে শবরমতি এক্সপ্রেস আগুনে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার প্রধান ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে অভিহিত করেছে পুলিশ। ট্রেন পোড়ানোর ওই ঘটনায় ৫৯ জন নিহত হয়েছিলেন। এদের অধিকাংশই ছিলেন কার সেবক। তারা উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা ভ্রমণের পর ফিরছিলেন।