২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সবাইকে ছাড়িয়ে কোহলি-‘কিং’

সবাইকে ছাড়িয়ে কোহলি-‘কিং’
  • আইপিএল ইতিহাসের সর্বাধিক রান এখন ব্যাঙ্গালুরু অধিনায়কের, টি২০ ফরমেটের এক আসরে সর্বাধিক ৪ সেঞ্চুরির রেকর্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বাধিক আন্তর্জাতিক রানের মালিক শচীন টেন্ডুলকর। ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটে যত রান করেছেন তারচেয়ে অনেকখানি পিছিয়ে অন্যরা। এমনকি সর্বাধিক সেঞ্চুরিরও মালিক তিনি। কিন্তু ‘লিটল মাস্টার’ শচীন অবসর নেয়ার আগেই বলেছিলেন, ‘আমার রেকর্ড যদি কেউ ভেঙ্গে ফেলে তবে সে হবে কোহলি।’ সেই নমুনাটা ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ধারাবাহিকভাবে রান করে দেখিয়ে চলেছেন এ বিরাট কোহলি। বিশ্বের যেকোন প্রান্তেই ব্যাট হাতে ধারাবাহিকভাবে রান করে চলা কোহলি অবশ্য এবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) গত ২৪ এপ্রিল গুজরাট লায়ন্সের বিপক্ষে অপরাজিত ১০০ রানের ইনিংস খেলার আগে ১৮০ টি২০ খেলে কোন সেঞ্চুরিই পাননি এ ফরমেটে। কিন্তু তবু তিনি ব্যাটিং ‘কিং’ হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। এবার সেই খরাটাও কেটেছে। সর্বশেষ ৯ ম্যাচে হাঁকিয়েছেন ৪ সেঞ্চুরি। টি২০ ক্রিকেটের কোন একটি আসরে সর্বাধিক শতক হাঁকানোর রেকর্ড এটি। আর আইপিএলের ইতিহাসে এখন প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৪০০০ রানেরও মাইলফলক ছুঁয়েছেন কোহলি। সবাইকে ছাড়িয়ে তাই এখন মুকুটহীন ‘কিং’ কোহলি এতে কোন সন্দেহই নেই।

২৭ বছর বয়সী কোহলি এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে করেছেন ৩৬ সেঞ্চুরি (ওয়ানডেতে ২৫, টেস্টে ১১)। কিন্তু ৪৩ আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচে সর্বোচ্চ ইনিংসটি অপরাজিত ৯০ রানের। কিন্তু ব্যাটিং গড়ে অন্য যেকোন ব্যাটসম্যানের চেয়ে অনেকদূর এগিয়ে তিনি। কোহলির আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচে গড় ৫৮.৬০! রান সংগ্রহের দিক থেকে ৬ নম্বরে। কিন্তু আইপিএলে তার ওপরে আর কেউ নেই। এবার চলমান আসর শুরুর আগে তিনি আইপিএলে রান সংগ্রহকের তালিকায় ছিলেন চার নম্বরে। কিন্তু ব্যাটে আশ্চর্য ধারাবাহিক কোহলিকে থামানোই যাচ্ছে না। এ আসরে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১৩ ম্যাচে ৮৬.৫০ গড়ে ৮৬৫ রান। দ্বিতীয় স্থানে থাকা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু দলে তার দক্ষিণ আফ্রিকান সতীর্থ এবি ডি ভিলিয়ার্স করেছেন ৫৯৭ রান। শুধু তাই নয় এখন পর্যন্ত কোহলি হাঁকিয়েছেন ৪ সেঞ্চুরি। সঙ্গে আছে ৫ ফিফটি! এখন পর্যন্ত এ আইপিএলে সর্বাধিক ৭২ চার ও ৩৬ ছক্কাও হাঁকিয়ে সবার ওপরে কোহলি। এসবই প্রমাণ করে তিনিই আসল কিং!

আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে টি২০ ফরমেটে সেঞ্চুরির দেখা পেতে এই বিস্ময়কর রকমের ধারাবাহিক ডানহাতি ব্যাটসম্যানের অপেক্ষা করতে হয়েছে ১৮০ ম্যাচ। ২৪ এপ্রিল গুজরাটের বিপক্ষে সেই খরাটা কাটিয়ে অপরাজিত ১০০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। ৭ মে রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টসের বিপক্ষে অপরাজিত ১০৮, ১৪ মে গুজরাটের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচে ১০৯ এবং বুধবার রাতে (১৮ মে) কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে বৃষ্টির কারণে ১৫ ওভারের ম্যাচেও করেছেন ১১৩! এ বিষয়ে পরে কোহলি প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘সবকিছু যখন খুব ভালভাবে ঘটছিল আমার নিশ্চিতভাবেই চিন্তাটা মাথায় এসেছিল যে আমি ১৫ ওভারের এ ম্যাচেও সেঞ্চুরি করতে পারব। কিন্তু আগে কখনও এ বিশ্বাসটা ছিল না যে এমনটা ঘটতে পারে।’ মোট চারটি শতক গত ৯ ম্যাচেই! কোন একটা টি২০ আসরে এর আগে কেউ এত সেঞ্চুরি করতে পারেননি। মাইকেল ক্লিঞ্জার গত বছর ন্যাটওয়েস্ট ব্লাস্ট টি২০ আসরে হাঁকিয়েছিলেন ৩ সেঞ্চুরি। আইপিএলের ইতিহাসে সর্বাধিক ৫ সেঞ্চুরি আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইলের। এরপরই এখন অবস্থান কোহলির।

ধীরে ধীরে টি২০ ক্রিকেটের অন্যতম বিস্ফোরক ব্যাটসম্যানে পরিণত হচ্ছেন তিনি। বুধবার রাতে মাত্র ৪৭ বলেই শতক পূর্ণ করেন। আগের তিন শতক ছিল যথাক্রমে ৬৩, ৫৬ ও ৫৩ বলে। এই সেঞ্চুরির দিনে তিনি প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আইপিএলে ৪০০০ রানের মাইলফলকও ছুঁয়ে ফেলে সবার ওপরে চলে গেছেন। সুরেশ রায়না আইপিএলে ৩৯৮৫ রান করে দুইয়ে নেমে গেছেন। ১৩৬ ম্যাচে ৩৭.৭৫ গড়ে এখন কোহলির রান ৪০০২! সর্বাধিক চার হাঁকানোর তালিকায় গৌতম গাম্ভীরের (৪১৮) পরেই কোহলি (৩৪৮)। আর ছক্কার তালিকায় ক্রিস গেইল (২৪৩), রোহিত শর্মা (১৬১), রায়নার (১৫৭) পরেই তিনি ১৪৬ ছক্কা হাঁকিয়ে। নির্দিষ্ট এক ভেন্যুতে কোহলির চেয়ে বেশি রান কেউ করতে পারেননি। ব্যাঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে কোহলি করেছেন ২০৪২ রান। নির্দিষ্ট কোন একটি ভেন্যুতে টি২০ ক্রিকেটে আর কোন ব্যাটসম্যানই ২০০০ রানের বেশি করতে পারেননি।