২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাজী ট্যাংককে হারাল শেখ জামাল

  • বৃষ্টি আইনে ফয়সালা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবশেষে বৃষ্টি বিঘিœত ম্যাচে জিতল শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাবই। দুইদিন ধরে ম্যাচ হয়েছে। একদিন বৃষ্টির জন্য ম্যাচের ফল মিলেনি। তাতে রিজার্ভ ডে’তে পরের দিন বৃহস্পতিবার খেলা গড়িয়েছে। বৃষ্টি আইনে গাজী ট্যাংককে ৪ রানে হারিয়েছে শেখ জামাল। ম্যাচটিতে আগেরদিন মোহাম্মদ শরীফ হ্যাটট্রিকসহ টানা চার বলে চার উইকেট নিয়েছেন। ইতিহাস গড়েছেন। তবে বৃহস্পতিবার চার উইকেট নিয়ে মুক্তার আলী শেখ জামালকে জেতানোয় ম্যাচসেরা হয়েছেন মুক্তারই।

মিরপুরে গাজী গ্রুপ-শেখ জামাল ম্যাচের দিকে সবারই দৃষ্টি ছিল। সেই দৃষ্টি ভালভাবে আগেরদিন কাড়তে পেরেছেন গাজী গ্রুপের মোহাম্মদ শরীফ। হ্যাটট্রিক করেছেন। শুধু তাই নয়, টানা চার বলে চার উইকেট নিয়ে শেখ জামালকে ধসে দিয়েছেন। ৩৩.৩ ওভারে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে, পরের বলে জাবিদ হোসেনকে, ৩৩.৫ ওভারে নাজমুস সাদাতকে ও ওভারের শেষ বলে মুক্তার আলীকে আউট করেন শরীফ। তার এ দুর্দান্ত বোলিংয়ে শেখ জামাল ৩৮ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান করে। এমন সময়েই আসে বৃষ্টি। যে বৃষ্টি শেখ জামালের জন্যও আশীর্বাদ হয়েই এসেছে বলা চলে। কারণ, গাজী গ্রুপের সামনে ৩৮ ওভারে জিততে ১৯৬ রানের টার্গেট দাঁড়িয়ে যায়। বেড়ে যায় আরও ২৮ রান! গাজী গ্রুপের চেষ্টা করে যায়। তাতে করে ১৬.১ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৮৩ রান করেও ফেলে বুধবার। জিততে হলে ২১.৫ ওভারে ১১৩ রান লাগত গাজী ট্যাংকের। এমন সময়ে বৃষ্টিতে আর খেলাই হলো না। বৃহস্পতিবার রিজার্ভ ডে’তে খেলাটির বাকি অংশ হয়। এনামুল হক বিজয় ৩৬ ও অলক কাপালী ১৪ রানে ব্যাট করছিলেন। বৃষ্টি আইন ভিক্টোরিয়ার পর গাজী গ্রুপকেও দুর্ভাগ্যের সামনে ঠেলে দিয়েছে। মুক্তার আলীর বোলিং তোপে ৩৭.৫ ওভারে ১৯১ রান করতেই অলআউট হয়ে যায় গাজী গ্রুপ। শেষ ওভারে জিততে ১০ রানের প্রয়োজন থাকে। হাতে থাকে ১ উইকেট। বিজয় ৫৩ রান করে দলকে এগিয়ে দেয়ার পর ফরহাদ হোসেন গাজী গ্রুপকে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যান। শেষ ওভারের প্রথম চার বলে ৫ রানও হয়ে যায়। ২ বলে দরকার থাকে ৫ রানের। ভরসা থাকেন একজনই। তিনি ফরহাদ হোসেন। এমন সময়ে পঞ্চম বলে ৫৩ রান করা ফরহাদকে আউট করে দেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ৪ রানে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় শেখ জামালের। তবে ম্যাচটিতে গাজী গ্রুপ দুর্দান্ত খেলেছে। বৃষ্টি আইনে টার্গেট বেড়ে যাওয়ার পরও জয়ের জন্য চেষ্টা করে গেছে।

এ জয়ে সাত ম্যাচে ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে প্রাইম ব্যাংক, গাজী গ্রুপ ও ব্রাদার্সের সঙ্গে সমান পয়েন্ট পেয়েছে শেখ জামাল। মোহামেডান শীর্ষেই আছে। পরের অবস্থানে আছে প্রাইম দোলেশ্বর। এরপর রূপগঞ্জ ও ভিক্টোরিয়ার অবস্থান। তারপরেই শেখ জামাল, প্রাইম ব্যাংক, গাজী গ্রুপ ও ব্রাদার্স আছে। আবাহনী পয়েন্ট তালিকায় ৯ নম্বরে আছে। কলাবাগান ক্রীড়া চক্র দশম, কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমি একাদশ ও ক্রিকেট কোচিং স্কুল আছে দ্বাদশ অবস্থানে।

যেভাবে লীগের খেলাগুলো চলছিল, তাতে ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগের অষ্টম রাউন্ড আজই শুরু হয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু চারদিন পিছিয়ে তা। অষ্টম রাউন্ড ২৪ মে থেকে শুরু হবে। নবম রাউন্ড শুরু হবে ২৮ মে। আগের সূচী অনুযায়ী অষ্টম রাউন্ড ও নবম রাউন্ডের খেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। সোমবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সময়সূচী পরিবর্তন করে নতুন করে প্রকাশ করেছে। জানা গেছে, আম্পায়ার্স এ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভার কারণে এই সময় সূচী পরিবর্তন করা হয়েছে। নতুন সূচী অনুযায়ী অষ্টম রাউন্ড ২৪ ও ২৬ মে এবং নবম রাউন্ড ২৮ ও ৩০ মে অনুষ্ঠিত হবে।

অষ্টম রাউন্ডের প্রথম দিনে মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলবে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ফতুল্লায় নামবে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব ও কলাবাগান ক্রিকেট একাডেমি। বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে খেলবে আবাহনী ও গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। অষ্টম রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনে ফতুল্লায় খেলবে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও ক্রিকেট কোচিং স্কুল। মিরপুরে খেলবে ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব ও কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। আর বিকেএসপিতে খেলবে ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও শেখ জামাল।

নবম রাউন্ডের প্রথম দিনে খান সাহেব ওসমান আলী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ময়দানী লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ও কলবাগান ক্রিকেট একাডেমি। মিরপুরে মাঠে নামবে প্রাইম দোলেশ্বর ও আবাহনী। আর বিকেএসপিতে খেলবে মোহামেডান ও ক্রিকেট কোচিং স্কুল। দ্বিতীয় দিনে ফতুল্লায় মুখোমুখি হবে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও কলাবাগান ক্রীড়া চক্র। মিরপুরে লড়বে ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব ও শেখ জামাল। আর বিকেএসপিতে খেলবে ব্রাদার্স ইউনিয়ন ও গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

গাজী গ্রুপ-শেখ জামাল ম্যাচ-মিরপুর-

শেখ জামাল ইনিংস ১৬৮/৯; ৩৮ ওভার (মামুন ৬৯, মাহমুদুল্লাহ ৩০, জয়রাজ ২৮; শরীফ ৪/৪৩)।

গাজী গ্রুপ ইনিংস (টার্গেট ৩৮ ওভারে ১৯৬ রান) আগেরদিন ৮৩/৩; ১৬.১ ওভার (বিজয় ৩৬*, কাপালী ১৪*; সানি ২/১৩) ও বৃহস্পতিবার ১৯১/১০; ৩৭.৫ ওভার (বিজয় ৫৩, ফরহাদ হোসেন ৫৩, ফারুক ২২; মুক্তার ৪/৩৭)।

ফল ॥ বৃষ্টি আইনে ৪ রানে জয়ী শেখ জামাল। ম্যাচসেরা ॥ মুক্তার আলী (শেখ জামাল)।