১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্যাঙ্ককে লিচেস্টার বীরদের বরণ

  • ঐতিহাসিক ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ শিরোপা জয়ের সম্মাননা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রূপ কথার জন্ম দেয়া লিচেস্টার সিটির মালিক থাইল্যান্ডের কোটিপতি ভিচাই শ্রিবধানাপ্রভা। মূলত তার অর্থায়নের কারণেই অভাবনীয়ভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ইংলিশ ক্লাবটি। ১৩২ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়া লিচেস্টার এখন উৎসব-বরণে ভাসছে। নিজেদের আঙিনায় উৎসব করা দলটি এবার থাইল্যান্ড সফরে এসেছে।

বুধবার ব্যাঙ্ককে এসে পৌঁছেছেন লিচেস্টারের বীরেরা। ক্লাবের মালিকের আমন্ত্রণে এক সপ্তাহের এই আনন্দ সফর। পরশু বিমানবন্দরে নামার পর কোচ রানিয়েরি, ফুটবলারদের স্বাগত জানায় সেখানে উপস্থিত উৎসবমুখর সমর্থকরা। তারকা মিডফিল্ডার রিয়াদ মাহরেজ, ড্যানি ড্রিংকওয়াটার আর জিমি ভার্ডি অবশ্য এই সফরে আসেননি। তিনজনই তাদের জাতীয় দলের সঙ্গে আছেন ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য। ছয় বছর আগে শ্রিবধানাপ্রভা কিনে নেয়ার আগ পর্যন্ত থাইল্যান্ডে বেশিরভাগ মানুষের কাছেই অপরিচিত একটি ক্লাব ছিল লিচেস্টার। তবে এখন দেশটির ফুটবল সমর্থকরা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর লিভারপুলের মতো ক্লাব বাদ দিয়ে লিচেস্টারের সমর্থন করতে শুরু করেছে।

২০ বছর বয়সী এক বলেন, আমি এখন অর্ধেক লিভারপুল, অর্ধেক লিচেস্টার সমর্থক। খুব রোমাঞ্চকর এক মৌসুম ছিল এটা। প্রিমিয়ার লীগ জেতাটা এককথায় দারুণ। ক্লাবের ওয়েবসাইটে অধিনায়ক মরগান থাইল্যান্ডে পাওয়া সংবর্ধনাকে ‘অসাধারণ’ হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, অতীতে আমরা যখন থাইল্যান্ডে গেছি, তখন বিশেষ কিছু অভ্যর্থনা পেয়েছি। কিন্তু এর মতো কিছু নয়। এটা অসাধারণ।

ইপিএলের নতুন চ্যাম্পিয়ন লিচেস্টার ২০১৪-১৫ মৌসুমে কোনরকমে অবনমন এড়িয়েছিল। মৌসুমটাও তারা শুরু করেছিল অবনমন এড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে। মৌসুমের শুরুতে ইপিএলের শিরোপা লড়াইয়ে তাদের পক্ষে বাজির দর ছিল ৫০০০:১। বাজি ধরার প্রতিষ্ঠান আর ফুটবল বিশেষজ্ঞদের সব হিসেব পাল্টে দিয়ে সাফল্যের চূড়ায় উঠেছে দলটি। অভাবিত এই সাফল্য উদ্যাপনের একটা পর্ব ক্লাবটি শেষ করেছে নিজেদের শহর লিচেস্টারেই। গত সোমবার ২৪ হাজার মানুষের সামনে ছাদ খোলা বাসে শহর প্রদক্ষিণ করেন ক্লাবটির খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ আর কর্মকর্তারা। এবার উৎসব আনন্দে মাততে তারা পাড়ি জমিয়েছেন এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ডে।

১৮৮৪ সালে জন্ম নেয়ার পর ১৩২ বছরের ইতিহাসে এবার প্রথম শিরোপা জিতেছে লিচেস্টার। সঙ্গত কারণেই এখন উৎসব-আনন্দে ভাসছে দ্য ফক্সেস খ্যাত ক্লাবটি। ৩৮ বছরের মধ্যে এই প্রথম নতুন চ্যাম্পিয়ন পেয়েছে ইংলিশ ফুটবলের সর্বোচ্চ টুর্নামেন্ট। অর্থাৎ ১৯৭৮ সালে নটিংহাম ফরেস্টের নতুন চ্যাম্পিয়ন পেয়েছে ইংল্যান্ডের শীর্ষ লীগ। এর আগে ১৯২৯ সালে দ্বিতীয় স্থানে থেকে প্রিমিয়ার লীগ শেষ করেছিল লিচেস্টার। সেটাই ছিল ক্লাবের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অর্জন। এছাড়া ২০০০ সালে লীগ কাপে শিরোপা জিতেছিল রূপকথার গল্প লেখা ক্লাবটি। এবার সব সাফল্যই ছাপিয়ে গেছে তারা। শুধু তাই নয়, ক্রীড়াবিশ্বের সেরা সাফল্যগুলোর মধ্যেও জায়গা হয়েছে লিচেস্টারের রূপকথা।

অবিশ্বাস্য সাফল্য পাওয়া দলটি এবারের লীগে মাত্র তিন ম্যাচ হেরেছে। একটি ঘরের মাঠে, দুটি প্রতিপক্ষের মাঠে। ২০১৫ সালে অবনমন থেকে বাঁচার জন্য লড়া একটি দলের মৌসুম জুড়ে এমন অবিশ্বাস্য ধারাবাহিকতা, দুর্দান্ত পারফর্মেন্স ক্রীড়া ইতিহাসের অনন্য এক দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।