১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রোয়ানু মোকাবেলায় প্রস্তুত মংলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, মংলা ॥ বাংলাদেশের উপকূলের দিকে অগ্রসর ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু। ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে প্রশাসন। আর সাধারণ মানুষের ভেতর এ নিয়ে তেমন আতঙ্ক এখনও চোখে পড়েনি। এদিকে শুক্রবার দুপুরে মংলার আকাশে ঝলমলে রোদ। তার ফাঁকে ফাঁকে ছিটে-ফোঁটা বৃষ্টি। মানুষের ভাবনা যাইহোক ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে প্রশাসন। প্রতি ঘণ্টায় মংলা পৌরসভার মাইক দিয়ে দেওয়া হচ্ছে সতর্কবার্তা।

মংলা পৌর মেয়র জুলফিকার আলী বলেন ‘নাগরিকদের জানমাল রক্ষায় সতর্ক রয়েছে তার প্রশাসন। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিলসহ কাউন্সিলরদের নিজ নিজ ওয়ার্ডে দায়িত্ব পালনের জন্য মেসেজ দেওয়া হয়েছে।’

মংলা বন্দরের সহকারী ট্রাফিক ম্যানেজার মো সোহাগ বলেন, ‘নিম্নচাপের কারণে মংলা বন্দরে বর্তমানে সার, ক্লিংকার, কয়লা, মেশিনারিজ যন্ত্রাংশসহ দেশি-বিদেশি ১৩টি জাহাজ অবস্থান করছে। এর মধ্যে জেটিতে একটি বিদেশি জাহাজ রয়েছে। সেটি ছাড়া বহিঃনোঙ্গরে থাকা সবকটি জাহাজের কাজ বন্ধ রয়েছে।’

দুর্যোগ মোকাবেলায় বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সতর্ক করে বন্দর কর্তৃপক্ষের উদ্ধার যানগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মংলার কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের জোনাল কমান্ডার মেহেদী মাসুদ বলেন, সতর্কতা সংকেত জারির পর কোস্টগার্ডের ১২টি স্টেশনকে সতর্ক করা হয়েছে। খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। এছাড়াও কোস্টগার্ডের একাধিক উপকূলীয় দল বঙ্গোপসাগর ও সুন্দরবনের নদী-খালে মাছ ধরা জেলেদের নিরাপদে সরিয়ে নিচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় কোস্টগার্ডের আধুনিক জাহাজসহ উদ্ধার যান প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

মংলা বন্দরে বর্তমানে ৪ নাম্বার সতর্ক সংকেত রয়েছে। আবহাওয়া অফিস বলছে ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’ ক্রমেই উপকূলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টি গত ২৪ ঘণ্টায় আড়াইশ’ কিলোমিটার এগিয়েছে।