১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমিই দলের মনোনয়ন পাব ॥ হিলারি

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট পাার্টির মনোনয়নপ্রত্যাশী হিলারি ক্লিনটন বলেছেন, আমিই আমার দল থেকে মনোনয়ন পাব। দলীয় প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডারসের সঙ্গে মনোনয়ন দৌড় কার্যত শেষ হয়ে গেছে দাবি করে সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে হিলারি এ মন্তব্য করেছেন। হিলারি বলেন, এটি (মনোনয়নের প্রতিযোগিতা) ইতোমধ্যে কার্যত শেষ হয়ে গেছে। আমাকে না দেয়ার (মনোনয়ন) আর কোন সুযোগ নেই। খবর বিবিসির।

রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়নের ক্ষেত্রে ডোনাল্ড ট্রাম্প যখন থেকে সম্ভাব্য নিশ্চিত প্রার্থী হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন তখন থেকেই বার্নি স্যান্ডারস চাপের মুখে পড়েছেন। কিন্তু ভারমন্টের এই বর্ষীয়ান সিনেটর ঘোষণা দিয়েছেন, দলীয় কনভেনশনের আগ পর্যন্ত তিনি লড়াই চালিয়ে যাবেন। ডেলিগেট ভোটের হিসেবে হিলারি ক্লিনটন প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডারসের থেকে অনেক এগিয়ে রয়েছেন। তবে ডেমোক্র্যাটিক নেতারা দলীয় ঐক্যের বিষয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। বিশেষ করে নেভাডায় দলীয় কনভেনশনে কর্মকর্তাদের সঙ্গে স্যান্ডারসের সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনা তাদের উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। স্যান্ডারসের সমর্থকরা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে চিৎকার-চেঁচামেচি করেন এবং চেয়ারও ছুঁড়ে মারার মতো পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছিল। এমনকি পার্টির অঙ্গরাজ্য চেয়ারওম্যান প্রাণনাশের হুমকিও পেয়েছেন। হিলারি ক্লিনটন ডেলিগেট ভোটের অঙ্কের হিসাবে জোর দিয়ে বলেছেন, কার্যত মনোনয়নের দৌড় শেষ। কিন্তু এ হিসাব তার ও স্যান্ডারসের সমর্থকদের মধ্যকার বিরোধ নিরসনে সামান্যই ভূমিকা রাখছে। স্যান্ডারস ধারাবাহিকভাবে এ বিষয়টির ওপরই জোর দিচ্ছেন যে, মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে তার ক্ষীণ সম্ভাবনা হলেও রয়েছে। ফলে তিনি প্রতিটি ডেলিগেট ভোটের জন্য লড়াই চালিয়ে যাবেন। হিলারি এখন চেষ্টা করছেন গণমাধ্যমের ফোকাস ট্রাম্পের কাছ থেকে সরিয়ে নিজের দিকে টানতে। আসছে সপ্তাহগুলোতে তিনি তাই রিপাবলিকান পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিকেই নানা কায়দায় বাক্যবাণ ছুড়বেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি প্রমাণ করার চেষ্টা করবেন, ট্রাম্পের হাতে ওভাল অফিসের দায়িত্ব ন্যস্ত করা হবে অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। ট্রাম্পকে বিপজ্জনক বলে অভিহিত করে হিলারি ইতোমধ্যে বলেছেন, স্পর্শকাতর জাতীয় নিরাপত্তা পরিস্থিতিতে ট্রাম্প নির্ভরযোগ্য হবেন না। এ প্রসঙ্গে তিনি ওসামা বিন লাদেন হত্যাকা-ে মার্কিন অভিযানের বিষয়টি তুলে ধরেন।