২১ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাদ পড়ে ক্ষুব্ধ গেইল-সামি-ব্রাভো

বাদ পড়ে ক্ষুব্ধ গেইল-সামি-ব্রাভো

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জুনে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকাকে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতেই হবে সিরিজটি। সেই সিরিজে নেই টি২০ বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক ড্যারেন সামি, আন্দ্রে রাসেল, ডোয়াইন ব্রাভো ও ক্রিস গেইল! এতে করে ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন গেইল-সামি-ব্রাভোরা। অথচ দলে আছেন ইনজুরি থেকে মুক্ত হওয়া কাইরন পোলার্ড ও বোলিং এ্যাকশন শুধরে নেয়া সুনিল নারাইন।

বাদ পড়ার পর সিরিজে দলের নির্বাচন প্রক্রিয়া নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন ক্যারিবীয় এই তারকারা। এমনকি তারা স্কোয়াডে নারাইন ও পোলার্ডের দলভুক্ত হওয়া নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। তাদের মতে, নির্বাচন প্রক্রিয়ায় যেসব বিধি মানতে হয় তা নাকি পূরণ করননি পোলার্ড ও নারাইন!

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এক প্রকার ধারাবাহিক এসব বিষয় নিয়ে সরব হয়েছেন বাদ পড়া ক্রিকেটাররা। গেইল প্রশ্ন করে টুইটারে লিখেছেন, ‘পোলার্ড ও নারাইন ত্রিদেশীয় সিরিজে জায়গা পেয়েছেন। এটা কিভাবে সম্ভব?’ ব্রাভো টুইটারে বিষয়টিকে ম্যাজিক বলেই উল্লেখ করেছেন টুইটারে, ‘জোক অব দ্য ডে: পোলার্ড ও নারাইন উপযুক্ত ছিল না। কিন্তু তারপরেও ত্রিদেশীয় সিরিজে পারফেক্ট? এটা আসলেই ম্যাজিক!’

স্যামি পোলার্ডকে ধ্যনবাদ জানিয়ে প্রশ্ন করে লিখেছেন, ‘ওয়ানডে দলে তোমাকে দেখতে পেয়ে ভাল লাগছে। কিন্তু তুমি আমাকে বল, ২০১৪ সালের পর থেকে ওয়ানডে ও ঘরোয়া লীগে না খেলে কিভাবে তুমি জায়গা পেলে?’

এই স্কোয়াডে বাদ পড়েছেন রাসেলও। তবে বলা হচ্ছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) এবারের আসরে চোটের কারণে ছিটকে পড়াতেই তাকে দলে নেয়নি নির্বাচকরা। এর আগে গেল বছরের নবেম্বর থেকেই জাতীয় দলের বাইরে ছিলেন পোলার্ড-নারাইন। তবে ভারতে অনুষ্ঠিত টি২০ বিশ্বকাপ দলে তাদের রাখা হলেও ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে দু’জনই সরে দাঁড়ান। হাঁটুর ইনজুরির কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বাইরে ছিলেন পোলার্ড। এ কারণে বিশ্বকাপের দলে থাকা সত্ত্বেও নিজেকে সরিয়ে নেন তিনি। এছাড়া নবেম্বরে শ্রীলঙ্কা সফরকালে নারাইন অবৈধ বোলিং এ্যাকশনের জন্য অভিযুক্ত হন। যে কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে তাকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। বিশ্বকাপ দলে তাকে দলে রাখা হয়েছিল; কিন্তু নিজে থেকেই সরে দাঁড়ান নারাইন। এরপর চলতি বছরের এপ্রিলে আইপিএল শুরুর ঠিক একদিন আগে নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পান তিনি।

আগামী ৩ জুন ওয়েস্ট ইন্ডিজ-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ দিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ মাঠে গড়াবে। গায়ানায় বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায় হাইভোল্টেজ ম্যাচটি শুরু হবে। একই ভেন্যুতে একদিন পরেই অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে ক্যারিবীয়রা।

ব্রাভো আরও চাচাছোলা সমালোচনা করেছেন। বলেছেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের নির্বাচকরা হচ্ছে সবচেয়ে বড় কৌতুক। যারা একটু আগেই দলের জন্য যথেষ্ট ভাল ছিল না, এখন তারা ত্রিদেশীয় সিরিজে জায়গা পাচ্ছে। আর আমাদের একবার বলা হলো, আমরা ঘরোয়া সুপার ফিফটিতে খেলিনি বলে বাদ পড়েছি। পরে জানা গেল, কারণ সেটা নয়। হাস্যকর!’

গেইল নির্বাচকদের এমন সিদ্ধান্তকে যেন হাস্যকর বলতে চাইছেন, ‘আগে পোলার্ডকে বাদ দেয়া হলো, সুযোগই দেয়া হলো না। এখন নিশ্চয়ই বোর্ড বলবে তার আসলে চোট ছিল, ইত্যাদি ইত্যাদি। নারাইনকে বোর্ডই সুপার ফিফটিতে খেলতে দিল না, এখন আবার তাকে দলে নিল!’