২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সারাদেশে লঞ্চ-ট্রলার চলাচল বন্ধ

সারাদেশে লঞ্চ-ট্রলার চলাচল বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক ॥ ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু বর্তমানে পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশের উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে সতর্ক সংকেত বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সারা দেশে সব ধরনের লঞ্চ ও ট্রলার চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় এখনো ফেরিকে রাখা হয়নি। তবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে ফেরি চলাচল। তবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত ও প্রচণ্ড স্রোতের কারণে দুর্ঘটনার ঝুঁকি থাকায় শুক্রবার রাত ১১টা থেকে শনিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত বরিশাল-পটুয়াখালী রুটে (লেবুখালী) ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। পরে একবার গাড়ি পারাপার করা হলেও পরে প্রচণ্ড স্রোতের কারণে ফের ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

শনিবার সকাল সোয়া ১০টায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটের পাটুরিয়া ঘাটে দায়িত্বরত নৌ পুলিশের আইসি শামসুল আলম জানান, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ রুটে লঞ্চ ও ট্রলার চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে এই রুটে এখনো ফেরি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে প্রচণ্ড স্রোতের কারণে ফেরির গতি কম থাকায় পারাপারে সময় বেশি লাগছে। এতে ঘাটে শতাধিক বাস, ট্রাক ও প্রাইভেটকারসহ বিভিন্ন গাড়ি নদী পার হওয়ার অপেক্ষায় আছে।

এদিকে, শুক্রবার দুপুরের পর থেকে মাওয়া রুটে ট্রলার ও লঞ্চসহ সব ধরনের ছোট নৌ যান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বিআইডব্লিউটিএ। এর পরপরই সারা দেশে অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। মাওয়ায় দায়িত্বরত বিআইডব্লিউটিসির সহকারী ব্যবস্থাপক চন্দ্র শেখর জানান, শনিবার সকাল ৭টা থেকে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি রুটে সব ধরনের ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে মাওয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে দেড় শতাধিক যানবাহন।

মাওয়া ঘাটের বিআইডব্লিউটিএ-এর বন্দর কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, পদ্মা উত্তাল ও আবহাওয়া খারাপ থাকায় শুক্রবার দুপুর ২টা থেকে লঞ্চ, সি-বোট ও ট্রলার চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে যাত্রীবাহী লঞ্চ, স্পিডবোট ও ডাম্প ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।