১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিকল ইঞ্জিন নিয়ে সাগরে ভাসছে জাহাজ ॥ নাবিকদের আকুতি

বিকল ইঞ্জিন নিয়ে সাগরে ভাসছে জাহাজ ॥ নাবিকদের আকুতি

অনলাইন ডেস্ক ॥ উত্তাল সাগরে ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে ভাসছে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) জাহাজ ‘এমভি বাংলার শিখা’। জাহাজের ক্যাপ্টেন বেতারবার্তা পাঠিয়ে সাহায্য চেয়েছেন। জাহাজটি নিরাপদে সরিয়ে রাখার জন্য নৌবাহিনী ও বন্দর কর্তৃপক্ষের সহায়তা চেয়েছে বিএসসি।

ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর প্রভাবে বঙ্গোপসাগর প্রচণ্ড উত্তাল। বন্দরের বহির্নোঙরে অবস্থানরত জাহাজগুলো ইঞ্জিন চালু রেখে জাহাজ নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করছে। এ অবস্থায় বিএসসির জাহাজ এমভি বাংলার শিখা থেকে ‘এসওএস’ (সেভ আওয়ার সোলস) বার্তা পাঠানো হয়। এই বার্তা পায় সব জাহাজ, বন্দর, নৌবাহিনীর নিয়ন্ত্রণকক্ষও। কোনো জাহাজ বিপদে পড়ার পর জাহাজের লোকজনের কোনো কিছু করার সুযোগ না থাকলে এই বার্তা পাঠানো হয়।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) কমোডর হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া আজ শনিবার বেলা দুইটার দিকে জানিয়েছেন, তখনও পর্যন্ত জাহাজটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছেন নাবকিরা। বহির্নোঙরে অবস্থানরত এমভি বাংলার শিখা জাহাজটি ইঞ্জিন চালু রেখে ভারসাম্য রাখার চেষ্টা করছিল। হঠাৎ করে জাহাজটির দুটো ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। এ পরিস্থিতিতে ক্যাপ্টেন জাহাজের দুটি নোঙর ফেলে নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করেন। কিন্তু উত্তাল সাগরে ঢেউয়ের তোড়ে নোঙর মাটি আঁকড়ে রাখতে পারছিল না। তবে কতজন নাবিক ওই জাহাজে রয়েছেন, তা জানাতে পারেননি বিএসসি কর্মকর্তারা।

ঘূর্ণিঝড় এগিয়ে আসায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সকালের মধ্যেই বন্দরের বিভিন্ন জেটিতে অবস্থানরত বড় জাহাজগুলো নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়।

সাধারণত ঘূর্ণিঝড়ের সময় বড় জাহাজগুলো গভীর সমুদ্রে নিরাপদ স্থানে নিয়ে ইঞ্জিন চালু রেখে নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করা হয় বলে বন্দর কর্মকর্তারা জানান। বন্দরের বহির্নোঙ্গরে বর্তমানে ১২৭টি জাহাজ রাখা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।