১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাজেটে শিক্ষায় ৬ শতাংশ বরাদ্দের দাবি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে আসন্ন জাতীয় বাজেটে শিক্ষাখাতে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ৬ শতাংশ বরাদ্দের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি। একই সঙ্গে শিক্ষকদের মর্যাদা বিষয়ক আইএলও সনদের সুপারিশমালা বাস্তবায়ন, পূর্ণাঙ্গ উৎসবভাতা প্রদান, নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করণ, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের স্বল্পতা দূরকরাসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরে সংগঠনটি।

শনিবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিকী।

লিখিত বক্তব্যে আবু বকর সিদ্দিকী বলেন, জাতিসংঘের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বিজ্ঞান বিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো’র অন্তঃরাষ্ট্রীয় শিক্ষামন্ত্রীদের সভায় জাতীয় বাজেটে জিডিপির ৬ শতাংম বরাদ্দের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু পরিতাপের বিষয় জাতীয় বাজেটে এ পর্যন্ত শিক্ষাখাতে ২ দশমিক ১ শতাংশ, ২ দশমিক ৩ শতাংশের বেশি বরাদ্দ না দিয়ে সামগ্রিক শিক্ষাব্যবস্থাকে উপেক্ষা করা হয়েছে। তাই জাতীয় বাজেটে শিক্ষাখাতে ৬ শতাংশ বরাদ্দ রেখে শিক্ষকদের জাতীয়করণের আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে বিরাজমান সব সমস্য দূর করার একমাত্র উপায় হচ্ছে জাতীয় বাজেটে বরাদ্দ বৃদ্ধি ও শিক্ষা ব্যবস্থার জাতীয়করণ। এসময় তিনি আরও বলেন, সমস্যাগুলো দূর না করলে শিক্ষক-কর্মচারীরা আবার আন্দোল সংগ্রামে যেতে বাধ্য হবেন।

প্রাথমিক শিক্ষাকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত করার বিরোধিতা করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আগামী ২৫ বছরেও প্রাথমিককে অষ্টম শ্রেণী এবং মাধ্যমিককে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত চালু করা সম্ভব হবে কি-না তা ভেবে দেখা দরকার। জাতীয় শিক্ষানীতি ভালোভাবে গবেষণা না করেই বাজেটের ঠিক আগ মুহূর্তে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. আবুল কসেম, সহ সভাপতি রঞ্জিত কুমার সাহা, অধ্যক্ষ বজলুর রহমান মিয়া, আলী আসগর হাওলাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. ছিদ্দিকুর রহমান শামীম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. কাওছার আলী শেখ ও অধ্যক্ষ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মণি হাওলাদার প্রমুখ।