১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভাঙ্গায় সংঘর্ষে নিহত এক

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ২১ মে ॥ পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভাঙ্গা উপজেলার নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে শুক্রবার রাতে সংর্ঘষ হয়। এ সময় মোসলেম তালুকদার (৫৫) গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ভাঙ্গা হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। সে উপজেলার নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নের ফুকুরহাটি গ্রামের জসিমউদ্দিন তালুকদারের ছেলে। থানার ওসি জানান, বৃষ্টির মধ্যে শুক্রবার রাতে মেম্বার প্রার্থী আক্কাচ ব্যাপারীর লোকজনের কাছে অপর মেম্বার প্রার্থী মহিউদ্দিন খানের লোকজন ভোট চাওয়াকে কেন্দ্র করে বাগ্বিত-ায় জড়িয়ে পড়ে। সংবাদটি মুহূর্তে উভয় প্রার্থীর লোকজনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই তারা সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়ে। ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের ধাওয়া পাল্টাধাওয়ার সময় আক্কাচ ব্যাপারীর সমর্থক মোসলেম তালুকদার আহত হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সালথায় চারজনকে জরিমানা

এদিকে সালথার দুটি ইউনিয়নের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী, এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভাই ও এক প্রার্থীর সমর্থকসহ চারজনকে ১৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার রাত ৭টা থেকে ১০টার মধ্যে বল্লভদী ও যদুনন্দী ইউনিয়নে এ আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী হাকিম মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া। আদালত বল্লভদী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী সাইফুর রহমানকে (চশমা) নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে একটি ওয়ার্ডে দুটি মাইক দিয়ে প্রচার করার দায়ে তিন হাজার টাকা, যদুনন্দী ইউনিয়নে নির্বাচনী ক্যাম্পে চা বিস্কুট দিয়ে আপ্যায়ন করার দায়ে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খোন্দকার শাহজাহানকে (আনারস) পাঁচ হাজার টাকা, একই ইউনিয়নের বিএনপি প্রার্থী মোঃ আবুল খায়ের মুন্সীর ভাই আবু সাঈদ বিন ইউসুফকে সাত/আটটি মোটরসাইকেল নিয়ে শোভাযাত্রা করায় ছয় হাজার টাকা এবং বল্লভদী ইউনিয়নে বাউষখালী বাজারে স্বতন্ত্র প্রার্থী খোন্দকার সাইফুর রহমানের (মোটরসাইকেল) সমর্থক শেখ আখতার হোসেনকে প্রতিপক্ষ প্রার্থীর সমর্থকদের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করার দায়ে দুই হাজার টাকাসহ মোট ১৬ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

যশোরে আ’লীগ নেতা গ্রেফতার ॥ পরিবহন ধর্মঘট

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস থেকে জানান, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও শহর আওয়ামী লীগ যুগ্ম সম্পাদক ইমাম হাসান লালকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে শহরের ষষ্ঠীতলাপাড়া এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। গত ৩১ মার্চ যশোর সদরের ইউপি নির্বাচনে চাঁচড়া কেন্দ্রে বোমাবাজি, গোলাগুলিতে এক ফেরিওয়ালা নিহতের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে তাকে ‘ষড়যন্ত্রমূলক মামলায়’ আটকের প্রতিবাদে শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। আর মুক্তির দাবিতে আধাবেলা পরিবহন ও ইজিবাইক ধর্মঘট পালন করেছে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

যশোর গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক তৌহিদুল ইসলাম জানান, গত ৩১ মার্চ সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের চাঁচড়া ভাতুড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বোমাবাজি ও গোলাগুলিতে আবদুস সাত্তার বিশে (৭০) নামের এক ফেরিওয়ালা নিহত হন। এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা ইমাম হাসান লালের আটকের প্রতিবাদে শনিবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর জহুরুল ইসলাম। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, যশোর সদরের ইউপি নির্বাচনের দিন আওয়ামী লীগ নেতা ইমাম হাসান লালসহ আজিজুল আলম মিন্টু ও গোলাম মোস্তফা রামনগর ইউনিয়নের নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন। এই নেতৃবৃন্দ ওই ইউনিয়নের ভোটগ্রহণ ও গণনা শেষে ফলাফল নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের কার্যালয়ে ফিরেছেন।

আর এ দিন বেলা সোয়া ১১টার দিকে চাঁচড়া ইউনিয়নের ভাতুড়িয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে একজন ইউপি সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ ও গোলাগুলি হয়। এতে একজন ফেরিওয়ালা নিহত হন। এ ঘটনায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ইমাম হাসান লালকে আসামি করা হয়েছে। কারণ ওইদিন তিনি চাঁচড়া ইউনিয়নেই যাননি। অথচ এই ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় তাকে আটক করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য, মুক্তিযোদ্ধা খয়রাত হোসেন, আব্দুল খালেক, দফতর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, ইউপি চেয়ারম্যান শাহারুল ইসলাম, এহসানুর রহমান লিটু, পরিবহন শ্রমিক নেতা আজিজুল আলম মিন্টু, আওয়ামী লীগ নেতা পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া পারভীন ডলি, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তা, হাবিবুর রহমান চাকলাদার মনি ও গোলাম মোস্তফা প্রমুখ।

মধুপুরে তিন গ্রাম পুরুষশূন্য

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল থেকে জানান, মধুপুর উপজেলায় গত ৭মে ইউপি নির্বাচনে পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী ও তার সমর্থকদের তা-বের জেরে থানায় দায়েরকৃত মামলায় ২৪-২৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত দুই শতাধিক গ্রামবাসীকে আসামি করা হয়েছে। পরাজিত ওই মেম্বার ও তার এক সহযোগীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। আসামি ধরতে প্রায় রাতেই ওই গ্রামগুলোতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। ফলে তিন গ্রামের পুরুষরা গ্রেফতার এড়াতে এক সপ্তাহ ধরে গ্রামছাড়া। রাতযাপন করছেন অন্যত্র। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, গত ৭ মে চতুর্থ ধাপের নির্বাচনের দিন মধুপুর উপজেলার মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মির্জাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ শেষে গণনা হয়। ফলাফলে টিউবওয়েল প্রতীকের জুয়েল আহমেদ মোরগ প্রতীকের হুরমুজ আলীর চেয়ে ২৩৮ বেশি ভোটে জয়লাভ করেন। এ ফল প্রত্যাখ্যান করে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় পরাজিত হুরমুজ ভোট পুনরায় গণনার দাবিতে উত্তেজনা সৃষ্টি তৈরি করেন। তার সঙ্গে সমর্থকরা যোগ দিলে পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়ে ওঠে। রাস্তায় কাঠের গুঁড়ি ফেলে নির্বাচন অফিসের ভাড়া গাড়ি ফেরার পথে আটকিয়ে দেয়। লাঠিসোটা নিয়ে গাড়িতে ভাংচুর চালায়। দায়িতপ্রাপ্ত পুলিশ ও কর্মকর্তাদের ওপরও চড়াও হতে চেষ্টা করে। এদিকে এ মামলার আসামি ধরতে পুলিশ প্রায় প্রতিরাতে ওই গ্রামগুলোতে অভিযান চালাচ্ছে। পুলিশের গ্রেফতারের হাত থেকে রক্ষা পেতে রাতে ওই গ্রামের পুরুষ সদস্যরা বাড়িতে থাকছেন না বলে এলাকার আরশেদ মেম্বার, আজাহার আলী, জোয়াহের আলী জানিয়েছেন। তারা জানান, অহেতুক সৃষ্ট এ ঘটনার জেরে গ্রামের অসহায় সহজ সরল মানুষগুলো দুর্ভোগে পড়েছেন। এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মধুপুর থানার (এসআই) রোকনুজ্জামান জানান, আসামি ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে। এলাকায় গিয়ে আসামিদের কাউকে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে এলাকা পুরুষশূন্য কথাটি ঠিক নয়।

দুর্গাপুরে চেয়ারম্যান পদে পাঁচ শিক্ষক

স্টাফ রিপোর্টার রাজশাহী থেকে জানান, পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এবার দুর্গাপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৫ শিক্ষক। আগামী ২৮ মে অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনকে ঘিরে শেষ মুহূর্তের প্রচারে মাঠে প্রার্থীরা। উপজেলার সাত ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা ঘুম হারাম করে ছুটে চলেছেন ভোটারদের কাছে। তবে এবারের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে পাঁচ শিক্ষক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাইফুল ইসলাম। তিনি উপজেলার শিবপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে রয়েছেন। কিশমত গণকৈড় ইউনিয়নে রয়েছেন বিএনপি প্রার্থী মাসুদ রানা প্রামাণিক। তিনি উজালখলসী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। একই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী প্রভাষক আলিফ আলী শিক্ষকতা করছেন বাগমারার সালেহা ইমারত ডিগ্রী কলেজে। পানানগর ইউনিয়নে বিএনপি প্রার্থী রবিউল ইসলাম খাঁন রবিন শিক্ষকতা করছেন দুর্গাপুর ফাযিল মাদ্রাসায়। এছাড়া মাড়িয়া ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোল্লা হাসান ফারুক ইমাম সুমন রয়েছেন মাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে। বর্তমানে মাসুদ রানা প্রামাণিক, রবিউল ইসলাম খাঁন রবিন ও মোল্লা হাসান ফারুক ইমাম সুমন তাদের নিজ নিজ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১১ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হন তারা। তবে শিক্ষকতা পেশাও ধরে রেখেছেন।

রূপগঞ্জে বসতবাড়িতে হামলা

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ থেকে জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন বসতবাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুট করা হয়। প্রতিবাদ করায় নারীসহ ২ জনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার আমলাবো এলাকায় ঘটে এ ঘটনা।

গত ইউপি নির্বাচনে দুই মেম্বার প্রার্থীকে সমর্থন করা নিয়ে স্থানীয় জাহিদ মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার দায়েন মিয়ার বিরোধ চলে আসছিল। আর ওই বিরোধের জের ধরেই রাত ৯টার দিকে প্রতিপক্ষ দায়েন মিয়া, নেছার মিয়া, দিপু মিয়াসহ তাদের লোকজন জাহিদ মিয়ার বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় নগদ টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুটে নেয় প্রতিপক্ষের লোকজন। প্রতিবাদ করায় জাহিদ মিয়ার ভাই দেলোয়ার হোসেন ও বোন মাহমুদা আক্তারকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করা হয়। এ সময় চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ দায়েন মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে দাবি করেন। এ ঘটনায় রূপগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বিরলে এক ইউপির নির্বাচন স্থগিত

স্টাফ রিপোর্টার দিনাজপুর থেকে জানান, বিরল উপজেলার সীমান্তবর্তী ধর্মপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হাইকোট স্থগিত করেছে। ভোটার তালিকায় প্রায় ১৭শ’ মৃত্যু ভোটারদের নাম থাকায়, ওই তালিকায় নির্বাচনে আপত্তি জানিয়ে এক ভোটার হাইকোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করলে, নির্বাচন কার্যক্রম স্থগিতের আদেশ প্রদান করা হয়েছে। দায়েরকৃত রিট পিটিশনকারী হলেন, বিরল উপজেলার কামদেবপুর গ্রামের গিয়াস উদ্দীন বিশ্বাসের পুত্র মোঃ হাবিবুর রহমান। তার পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী এএইচএম মুশফিকুর রহমান তুহিন জানান, ১৮ মে এ সংক্রান্ত একটি রিট পিটিশন হাইকোর্টের বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী এবং বিচারপতি খশরুজ্জামান সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে আনয়ন করা হয়। শুনানি শেষে বিচারপতিদ্বয় আদেশ প্রদান করেন।

শরীয়তপুরে চেয়ারম্যান প্রার্থীকে জরিমানা

নিজস্ব সংবাদদাতা শরীয়তপুর থেকে জানান, নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে কয়েক হাজার লোককে মেজবানি খাওয়ানোর অভিযোগে নড়িয়া উপজেলার মোক্তারের চর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বাদশা শেখকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সোহাগ হাওলাদার আনোয়ার হোসেন বাদশা শেখের নিজবাড়িতে উপস্থিত হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এ জরিমানা করেন।