১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে ॥ সিইসি

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাঙ্গামাটি, ২১ মে ॥ রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় আসন্ন ষষ্ঠ দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দীন আহমদ ঘোষণা দেন। ইউপি নির্বাচনের পরিবেশ সরেজমিনে দেখার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনার রাঙ্গামাটিতে এসে শনিবার সকালে স্থানীয় প্রশাসন ও রাজনৈতিক ব্যক্তি ও প্রার্থীদের নিয়ে জেলা প্রশাসকের হলরুমে নির্বাচন সংক্রান্ত এক সভা করেন। সভায় তিনি সর্বশেষ নির্বাচনী পরিবেশ ও আইন শৃঙ্খলা বিষয় নিয়ে মত বিনিময় করতে গিয়ে এই কথা বলেন।

নির্বাচনের দিন পুলিশ, বিজিবি, আনসার বাহিনীর পাশাপাশি টহলে সেনাবাহিনী থাকবে। এখানে সেনাবাহিনী আগে থেকে তাদে রুটিন মাফিক কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা হচ্ছে আগামী ৪ জুনের নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হবে। এজন্য তিনি সকলের সহায়তা কামনা করেন।

জেলা প্রশাসক সামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা নির্বাচন কমিশন সচির সিরাজুল ইসলাম, বিজিবির রাঙ্গামাটির সেক্টর কমান্ডার, পুলিশ সুপার জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দীপংকর তালুকদার জেলা বিএনপি সভাপতি শাহ আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাজী কামাল, সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক দীপেন তালুকদার, কলমপতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম, বিশ্বজিত চাকমা প্রমুখ। চেয়ারম্যান প্রার্থীরা অভিযোগ করে বলেন তারা সন্ত্রাসীদের হুমকির মুখে রয়েছেন। তারা নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের দাবি জানান। আগামী ৪ জুন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলায় ১০টি উপজেলার ৪৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ২১ মে ॥ স্বামীসহ শশুরবাড়ির লোকজনের হাতে রুবি আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার ব্রাহ্মণগাঁও এলাকায় ঘটে এ ঘটনা। গৃহবধূ রুবি আক্তার কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার সখিপুর এলাকার রফিক মিয়ার মেয়ে। গৃহবধূ রুবি আক্তার জানান, গত ৪ বছর আগে উপজেলার ব্রাহ্মণগাঁও এলাকার মৃত আব্দুল রহমান মোল্লার ছেলে আসাদ মিয়ার সঙ্গে রুবি আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসারে আশামনি (৩) নামে এক সন্তান হয়। রুবি আক্তারকে বিয়ে করার আগেই আরও দুটি বিয়ে করে আসাদ মিয়া। পূর্বের বিয়ের কথা জিজ্ঞাস করার পর থেকেই তাকে বিভিন্নভাবে জ্বালাযন্ত্রণা ও ভরন পোষণ বন্ধ করে দেয়। তারপরও সন্তানের দিকে চেয়ে কোন রকমে সংসার চালিয়ে আসছেন রুবি।