২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিউইয়র্কে আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব

নিউইয়র্কে আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব

এনা, নিউইয়র্ক থেকে ॥ প্রবাসে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির বাতিঘর মুক্তধারা ফাউন্ডেশন আয়োজিত তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব ও বইমেলা শেষ হচ্ছে আজ। গত ২০ মে শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া উৎসব চলবে আজ রবিবার পর্যন্ত। প্রবাসে উৎসব মানেই বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাস, অন্যরকম এক অনুভূতি। উৎসবের উদ্বোধনী দিনে বাঙালীর বাঁধভাঙ্গা জোয়ার শুরু হয় জ্যাকসন হাইটের পিএস-৬৯ স্কুলে। জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজা থেকে শুরু হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। নেচে গেয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নেন আমন্ত্রিত অতিথি ও সংস্কৃতিপ্রেমী প্রবাসীরা। বেলুন উড়িয়ে ও ফিতা কেটে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। এ সময় তিনি বলেন, বইমেলা ঐক্যবদ্ধ বাঙালীর শক্তি ও সাহসের জায়গা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল শামীম আহসান, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক আনিসুল হক, রামেন্দু মজুমদার, দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এবং অনন্যা সম্পাদক ও প্রকাশক তাসমিমা হোসেন, লেখক গুলতেকিন খান, রঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়, একুশে পদকপ্রাপ্ত নাট্যাভিনেতা জামাল উদ্দিন হোসেন, সত্যায় রায় চৌধুরী, লুৎফর রহমান রিটন, আমীরুল ইসলাম, সৈয়দ আল ফারুক, ত্রিদিব কুমার চ্যাটার্জি, প্রকাশক ফরিদ আহমেদ, হুমায়ূন কবীর, মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরন নবী, অধ্যাপক আব্দুল সেলিম, ভয়েস অব আমেরিকা বাংলা বিভাগের প্রধান রোকেয়া হায়দার, কমলিনী মুখোপাধ্যায়, লেখিকা নাজমুন নেসা পেয়ারি, অর্বিন ঘোষ, ইকবাল হাসান, ফেরদৌস সাজেদীন, আলমগীর শিকদার লোটন, মনিরুল হক, মুহিত কামাল, মেলার আহ্বায়ক হাসান ফেরদৌস, মুক্তধারার কর্ণধার বিশ্বজিৎ সাহা প্রমুখ। এরপরে কবি রফিক আজাদ মূল মঞ্চে শিশুদের পরিবেশনায় শুরু হয় উদ্বোধনী সঙ্গীত ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে’। মঞ্চে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন হাসান ফেরদৌস। এরপর মঞ্চে প্রদীপ প্রজ্ব¡লন করেন আমন্ত্রিত ২৫ জন কবি, লেখক ও অতিথি। মঞ্চে তাদের উত্তরীয় পরিয়ে দেয়া হয়। উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে সহযোদ্ধা হিসেবে ড. ডেভিড নেইলিনকে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হয়। তাকে মঞ্চে উত্তরীয় পরিয়ে দেন দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এবং অনন্যা সম্পাদক ও প্রকাশক তাসমিমা হোসেন ও রামেন্দু মজুমদার।

উদ্বোধনী দিন শুক্রবার উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল নতুন প্রজন্মের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠান ‘নতুনের কেতন’, মুক্তধারার পঁচিশ বছরপূর্তি উপলক্ষে আলোচনা ‘ফিরে দেখা।’ এতে অংশ নেন ড. নূরন নবী, আনিসুল হক, নামিসুন্নাহার নিনি ও ওবায়দুল্লাহ মামুন। রাত সোয়া ১০টায় শুরু হয় ফেরদৌস আরার সঙ্গীতানুষ্ঠান। তাকে মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেন মো. আনোয়ার হোসেন। উদ্বোধনী দিনে অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সেমন্তী ওয়াহেদ, ডানা ইসলাম, মোশররফ হোসেন। এদিকে শনিবার রফিক আজাদ মূলমঞ্চে বেলা ১১টা থেকে শুরু হয়ে অনুষ্ঠান, চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। এসব অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল শিশু-কিশোরদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতা, লেখক, পাঠক ও প্রকাশকদের নিয়ে অনুষ্ঠান ‘মুখোমুখি’, নতুন বই নিয়ে আলোচনা ‘এ বছরের বই’, স্বরচিত কবিতা পাঠ, সম্পাদক ও প্রকাশকদের পরামর্শমূলক অনুষ্ঠান ‘যারা লেখক হতে চান’। সঞ্চালনা করেন তানভীর রাব্বানি। আজ রবিবার উৎসবের শেষ দিনে অনুষ্ঠান শুরু হবে বেলা ১১টা থেকে। এদিন অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে সেরা শিশুশিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠান, স্বরচিত কবিতা, আবৃত্তি, চ্যানেল আই-মুক্তধারা বইমেলা ২০১৬ সাহিত্য আলোচনা, হৃদয়ে রবীন্দ্রনাথ, উন্মুক্ত আলোচনা ‘গণতন্ত্র ও উন্নয়ন’, লোকগান, নজরুলের গান, সেলিনা হোসেনকে সম্মাননা এবং সবশেষে অতিথি শিল্পী সামিনা চৌধুরীর গান।