২১ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পানিতে ফেলে শিশু হত্যা ॥ মুয়াজ্জিন গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ২১ মে ॥ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সুমাইয়া আক্তার (৮) নামে এক শিশুকে পানিতে ফেলে হত্যার অভিযোগে ঘাতক হাফেজ জহিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হত্যার ঘটনার দুই দিন পর শনিবার দুপুরে উপজেলার তারাব পৌরসভার সুতালাড়া এলাকার একটি পুকুর থেকে ওই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত হাফেজ জহিরুল ইসলাম চাঁদপুর জেলার কচুয়া থানার রাগদুল এলাকার মৃত মোবারক হোসেনের ছেলে। তিনি সুতালাড়া জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন। নিহত শিশু সুমাইয়া আক্তার নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপুর থানার সিংগারচারগোপাড়া এলাকার ওয়াজিদ মিয়ার মেয়ে। রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) একেএম মাহাবুবুল আলম জানান, শনিবার সকালে সুতালাড়া জামে মসজিদসংলগ্ন পুকুরে শিশু সুমাইয়া আক্তারের মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুপুর ১২টার দিকে ওই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। শিশুর শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের আলামত পাওয়া গেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সুতালাড়া জামে মসজিদের মোয়াজ্জেম হাফেজ জহিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তিনি আরও জানান, বৃহস্পতিবার সকালে আরবি পড়ার উদ্দেশ্যে সহপাঠীদের সঙ্গে সুতালাড়া জামে মসজিদে যায় শিশু সুমাইয়া। এরপর অন্য শিশুদের ছুটি দিলেও সুমাইয়াকে ছুটি দেয়নি জহিরুল। পরে সুমাইয়াকে হত্যার পর মসজিদের পাশের পুকুরে ফেলে দেয়। পরিবারের লোকজন শিশু সুমাইয়া আক্তারকে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও পায়নি। পানিতে ফেলে হত্যার ঘটনা ঘটিয়ে ফের মসজিদের মাইকে শিশুকে পাওয়া যাচ্ছে না বলে ঘোষণাও দিয়েছিল ওই মোয়াজ্জেম। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পানিতে ফেলে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেছে জহিরুল ইসলাম। এ ঘটনায় শিশুর পিতা ওয়াজিদ মিয়া বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।