২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রাণের টানে নাড়ির কাছে

  • সব্যসাচী দাশ

পবিত্র রমজান মাসের এখন শেষ সপ্তাহ। আর কয়েক দিন বা রোজা পার হলেই পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। এ কারণে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনার উচ্ছ্বাসও ব্যাপক। এ উৎসবের অংশ হিসেবে সারাদেশে চলছে কেনাকাটার ধুম। ছোট বড় প্রায় সব বয়সের মানুষ এখন ঈদ আনন্দের অপেক্ষায়। ঈদের বিশেষ উপলব্ধি আপনজনের মাসে আনন্দঘন সময় কাটানো। জীবনের প্রয়োজনে যেসব মানুষ আপনজন ছেড়ে দূর শহরে পাড়ি জমান এবং ব্যস্ত থাকেন প্রায় সারা বছর, সে সব মানুষের অন্তরআত্মার আকাক্সক্ষা ঈদ উৎসবে সকলকে কাছে পাওয়ার।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষ জীবিকার প্রয়োজনে রাজধানীসহ অন্য বড় শহরগুলোতে বাস করেন, এর মধ্যে ঢাকাতেই প্রায় দেড় কোটি মানুষের বসবাস। বছরের অন্য সময় কর্মস্থল ত্যাগের সুযোগ না থাকায় ঈদ বা অন্যান্য ধর্মীয় উৎসবের অপেক্ষায় থাকেন, নিজ বাড়িঘর ছেড়ে আসা মানুষগুলো। আর কয়েকটি দিন বাদেই অপেক্ষা করছে প্রাণের টানে নাড়ির কাছে যাবার সুযোগ। কেনাকাটার পর্ব প্রায় শেষ এখন প্রস্তুতি কিভাবে পরিবার-পরিজন নিয়ে নিরাপদে বাড়ি ফেরা যায়। কয়েক দিন আগে থেকেই শুরু হয়েছে অগ্রিম টিকেট সংগ্রহের সুযোগ।

সরকারের পক্ষ থেকে আগেই জানানো হয়েছে এবারের ঈদ উপলক্ষে ৯ দিনের ছুটি থাকবে। ৯ দিন বেশ বড় ছুটি। এর আগে কোন বছর আমাদের দেশের মানুষ এত বড় সরকারী ছুটির ঘোষণা পায়নি। অবশ্য বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে যারা কর্ম করেন তারা হয়ত সবাই এই ৯ দিনের ছুটি ভোটের সুযোগ পাবেন না। ছুটি ৯ দিন হোক আর তিন দিন হোক ঈদ উপলক্ষে মানুষ বাড়ি যাবে এবং প্রিয়জনের সঙ্গে আনন্দঘন সময় কাটাবে এটা নিশ্চত।

বাসের ইঞ্জিন কভার, ট্রেনের ছাদ কিংবা লঞ্চের সিঁড়ি তিল ধারণের ঠাঁই থাকবে না এটা নিশ্চিত। পেশাগত রুক্ষ জীবন অন্যদিকে প্রেমহীন মায়াহীন, জঞ্জাল শহরের যাপিত জীবন মানুষ এক প্রকার স্যাক্রিফাই করে চলে। স্বাভাবিকভাবেই সুযোগ খোঁজে স্বস্তির শ্বাস ফেলতে। তাই তো ট্রেনের ছাদ কিংবা লঞ্চের সিঁড়ি কোন যাত্রাই অসুবিধার নয়। বাড়িতে ঢুকে মায়ের খোকা ডাক বোনের ভাইয়া ডাক কিংবা ছোট ভাইয়ের আদুরে আবদার স্পর্শ করে মনের অনেক গভীরে। এই অনুভূতির কাছে ছোট্ট এ্যাডভেঞ্চার কিছুই না। আসছে ঈদে প্রায় ৭০ লাখ মানুষ ঢাকা ছাড়বে। আপনজনের সঙ্গে উৎসব পালনের লক্ষ্যে। বোঝাই যাচ্ছে বাড়ি ফেরার বিড়ম্বনা। তা সত্ত্বেও কষ্ট হোক আর দেরি হোক সবাই সবার আপনজনের সঙ্গে আনন্দের ভাগাভাগি করবেন এটাই সকলের আত্মিক দাবি।

ছবি : মানস সেন

মডেল : রুবেল, সেলিম ও ফারজানা